সর্বশেষ
রবিবার ৮ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

শীতে পুরুষের ত্বকের যত্ন

সোমবার, ডিসেম্বর ৫, ২০১৬

1256032087_1480918031.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
শীত প্রায় চলে এসেছে বললেই চলে। শীত মানে ত্বক শুকিয়ে যাওয়া, ফাটা ঠোঁটের শুকনো হাসি। পায়ের গোড়ালি ফেটে চামড়া উঠা।

শীতে দেখা যায় ত্বকের নানা সমস্যা। শীত এলে মেয়েদের ত্বকের বাড়তি যত্ন নিতে দেখা যায়। তবে ছেলেদের ত্বকেরও বাড়তি যত্ন নেওয়া উচিত।

দেখে নিন শীতে ছেলেদের ত্বকের যত্ন যেভাবে নিবেন-

ত্বক
শীতে ত্বক শুষ্ক হয় বেশি। পুরুষেরা বাইরে যান নিয়মিত, থাকেনও বেশি। শীতের শুষ্ক পরিবেশে বাতাসে প্রচুর ধুলা থাকায় রোমকূপে ময়লা বেশি জমে। তাই সবসময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে। এর জন্য প্রতিদিন সকালে ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ পরিষ্কার করুন। মুখ পরিষ্কারের জন্য ব্যবহার করতে পারেন কুসুম গরম পানি। মুখ পরিষ্কার করার পর টানটান ভাব দূর করার জন্য ভেজা ভাব থাকা অবস্থায়ই ব্যবহার করুন আপনার ত্বক অনুযায়ী ময়েশ্চারাইজার ক্রিম।

ত্বকের টানটান ভাব বেশি হলে গুড়া দুধ, মধু, আমন্ড অয়েল মিশিয়ে ১০ মিনিট লাগিয়ে কুসুম গরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে দু-তিনবার করতে পারেন, ভালো ফল পাবেন।

ত্বকের ধরন অনুযায়ী বাজার থেকে শসা, গাজর, টক দই, চালের গুঁড়া, মধুসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে নিজেই স্ক্রাব তৈরি করে ব্যবহার করতে পারেন।

শীতে তৃষ্ণা কম পায় বলে পানি কম খাবেন না, পর্যাপ্ত পানি পান ও শাকসবজি খেলে ত্বকে মসৃণতা বজায় থাকবে।

শেভিং
শেভ করার পূর্বে ত্বক খানিক সময় ভিজিয়ে রাখুন। তারপর ফোম দিয়ে শেভ করুন। শেভ শেষে ময়েশ্চারাইজার লাগাতে ভুলবেন না। এ সময় আফটার শেভ বাম লাগাতে পারেন। এর পরেও ত্বক বেশি শুষ্ক লাগলে ময়েশ্চারাইজারযুক্ত লোশন লাগাতে পারেন।

ঠোঁট
ঠোঁট ফাটা বন্ধ করতে বাজারে যে গ্লিসারিন সমৃদ্ধ লিপবাম পাওয় যায়, তা ব্যবহার করুন। কিংবা রাতে মধু, গ্লিসারিন মিশিয়ে ঠোঁটে লাগিয়ে ঘুমাতে যান।

হাত-পা
শীতে শরীর ও হাত-পা শুষ্ক হয়ে যায়। গোসলের পরে হালকা ভেজা শরীরে লোশন, অলিভ অয়েল, গ্লিসারিনের সঙ্গে পানি বা গোলাপ জল মিশিয়ে লাগাতে পারেন। পা ফাটা বেশি থাকলে পা ফাটা রোধক ক্রিম ব্যবহার করুন। প্রতিদিন গোসলের সময় শক্ত কিছু দিয়ে পায়ের গোড়ালি একটু ঘষে নিতে পারেন, এতে মৃত কোষগুলো উঠে যাবে। রাতে শোবার আগে হাত-পায়ের আঙুলের ফাকে লোশন বা অলিভ অয়েল লাগিয়ে নিন।

চুল
শীতের সময় রোদে বেশি থাকা, গরম পানি দিয়ে গোসল ও পানি কম খাওয়া হয়। ফলে মাথার তালু আর চুল আদ্রর্তা হারাতে থাকে। রুক্ষ হয়ে যায় চুল, খুশকিও একটা বড় সমস্য হয়ে দেখা দেয়। বেশি খুশকি থাকলে মেহেদিপাতা বাটা, টক দই, ডিমের সাদা অংশ ও আধা চা-চামচ মেথি বাটা মিশিয়ে আধ ঘণ্টা চুলে লাগিয়ে রেখে শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। চুলের জেল ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।

ঢাকা, সোমবার, ডিসেম্বর ৫, ২০১৬ (বিডিলাইভ২৪) // টি এ এই লেখাটি ১৫৯৭ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন