সর্বশেষ
রবিবার ৮ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ক্যান্সারের বিস্তার কমাতে গবেষণায় সাফল্য

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ১২, ২০১৭

1475909450_1484209527.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
প্রাণিদেহের উপর পরীক্ষা চালিয়ে ক্যান্সারের ভয়াবহ বিস্তার তিন-চতুর্থাংশ রোধ করা গেছে বলে দাবি করেছেন বিজ্ঞানীরা। ইঁদুরের ওপর পরিচালিত এক গবেষণায় এমন তথ্য পাওয়া যায় বলে বিবিসি জানায়।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই পরীক্ষায় রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা পাল্টে দিয়ে ত্বক থেকে ফুসফুসে ক্যান্সারের বিস্তার থামানো গেছে।

ক্যান্সার রিসার্চ ইউকে বলছে, ক্যান্সারে মৃত্যুর ৯০ শতাংশের জন্য দায়ী টিউমারের শুরু দেহের যে কোনো জায়গায় হতে পারে। আর সেই টিউমার ছড়ানোর বিষয়ে নতুন তথ্য বের করেছে প্রাথমিক এই গবেষণা, যা নতুন চিকিৎসায় অবদান রাখতে পারে।

কোন উপাদান শরীরে টিউমারের বিস্তারের ওপর প্রভাব ফেলে তা খুঁজে বের করার চেষ্টা করছিলেন গবেষণা পরিচালানকারী কেমব্রিজের স্যাংগার ইন্সটিটিউটের গবেষক দল।

ডিএনএর কোন শাখাগুলো একটি ক্যান্সারের বিস্তার প্রতিরোধে শরীরে সম্পৃক্ত থাকে তা খুঁজে বের করতে গবেষকরা পরীক্ষাগারে তৈরি জেনেটিক্যালি মডিফায়েড ইঁদুরের ৮১০ সেট তৈরি করেন।

তার পর ওই প্রাণিগুলোর শরীরে মেলানোমা (ত্বকের ক্যান্সার) ঢুকিয়ে দেওয়া হয়। এর ফলে কতগুলো ইঁদুরের ফুসফুসে টিউমার তৈরি হয়েছিল তার হিসাব রাখে গবেষক দল।

তারা ডিএনএ বা জিনের ২৩টি শাখা খুঁজে পেয়েছেন, যেগুলো ক্যান্সারের বিস্তারকে সহজতর বা কঠিনতর করার ক্ষেত্রে ভূমিকা রেখেছে।যেগুলোর অনেকগুলোকেই রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা নিয়ন্ত্রণের সঙ্গে সম্পৃক্ত দেখা গেছে।

গবেষক দলের অন্যতম ড. ডেভিড অ্যাডামস বলেন, “ফুসফুসের ভেতরের প্রতিরোধী কোষগুলোর ভারসাম্যকে এটা নিয়ন্ত্রিত করেছিল।

“এটা কোষগুলোর ভারসাম্যকে বদলে দিয়ে টিউমার কোষগুলোর পাশাপাশি রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা ধ্বংসকারী কোষগুলো নিধনে ভূমিকা রাখে।”

চূড়ান্ত পর্যায়ের গুটিকয়েক রোগীর দেখা গেছে, তাদের শরীর থেকে ক্যান্সারের সব চিহ্ন দূর হয়েছে। তারপরও ওষুধগুলো অনেক রোগীর ক্ষেত্রে কাজে আসেনি।

ক্যান্সার রিসার্চ ইউকের গবেষক ড. জাস্টিন আলফ্রেড বলেন, “ইঁদুরকে নিয়ে এই গবেষণা জিন বিষয়ে নতুন অন্তর্দৃষ্টি এনেছে, যা ক্যান্সার বিস্তারের ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখতে পারে এবং ভবিষ্যতে ক্যান্সারের চিকিৎসায় সম্ভাব্য পথ দেখাতে পারে।

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ১২, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // টি এ এই লেখাটি ১০১৫ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন