সর্বশেষ
সোমবার ৫ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৯ নভেম্বর ২০১৮

বাড়ি বদলের আগে জরুরি কিছু বিষয়

রবিবার, ফেব্রুয়ারী ১২, ২০১৭

1936267454_1486896605.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
ভাড়াবাড়িতেও নিজের চাহিদা আর শখ মিটিয়ে থাকতে চান সবাই। স্বাভাবিক এই চাওয়ার মধ্যেও ঝামেলা হয়ে দেখা দিতে পারে বাসা বদলের চিন্তা। সমস্ত জিনিসপত্র প্যাক করে নতুন বাসায় তুলতে হিমশিম খাওয়ার অবস্থা হয়। তাই কাজের ধরন অনুযায়ী আলাদা আলাদাভাবে কাজ ভাগ করে নিলে ঝামেলা কম হবে। জিনিসপত্র পরিপাটি করে গুছিয়ে নিলে পরে তা খুঁজে পাবেন অনায়াসেই। জেনে নিন বাসা বদলের সময় কী করা উচিত-

# বিছানার চাদর, পর্দা, টেবিল ক্লথ প্রভৃতি পরিষ্কারভাবে ধুয়ে ইস্ত্রি করে প্যাকেট করে নেওয়া ভালো।

# বাক্সে যে জিনিসগুলো ভরবেন, সেগুলোর নাম বাক্সের ওপর মোটা করে লিখে রাখা ভালো। পরে খুঁজে পেতে সুবিধা হবে।

# আসবাব পরিষ্কার করে নিয়ে ভালোভাবে কাগজে মুড়িয়ে নিয়ে স্কচটেপ দিয়ে ভালোমতো আটকে নিন। স্কচটেপের পরিবর্তে মজবুত দড়ির সাহায্যেও আসবাবের সঙ্গে কাগজগুলো ভালোমতো বেঁধে নিতে পারেন। আজকাল সহজেই অনেক আসবাবের স্ক্রু খুলে এর বিভিন্ন অংশকে আলাদা করে নেওয়া যায়। এতে আসবাব পরিবহন করতে সুবিধা হয়।

# জিনিসপত্র প্যাকিং করতে আগে থেকে প্রয়োজনীয় সামাগ্রী কিনে রাখুন। কাগজের বাক্স, দড়ি, আঠা ইত্যাদি জিনিসের বন্দোবস্ত করে রাখুন। আগে থেকেই একটু একটু করে জিনিসপত্র গুছিয়ে রাখুন।

# ড্রেসিং টেবিল বা আলমারির আয়না এবং শোকেসের কাচ ভঙ্গুর। টেলিভিশন ও কম্পিউটার মনিটরেও আঘাত লেগে ক্ষতি হতে পারে। অনেক ক্ষেত্রে আসবাবের আয়না ও কাচ খুলে আলাদাভাবে নেওয়ার সুযোগ থাকে। খুলে নেওয়ার পর এসব ভঙ্গুর সামগ্রী খুব যত্ন করে ভারী কাগজের স্তর দিয়ে পেঁচিয়ে নিন। যেসব জিনিসের ক্ষেত্রে ভঙ্গুর অংশটি সরিয়ে নেওয়া সম্ভব নয়, সেগুলো বহনে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করা প্রয়োজন। পরিবহনের সময় এগুলো উল্টোভাবে রাখলে (অর্থাৎ, গাড়ির আবদ্ধ অংশের দিকে আসবাবের ভঙ্গুর অংশ ঘুরিয়ে রাখলে) ভাঙার আশঙ্কা কম থাকে। তবে যেকোনো আসবাব পরিবহনের আগেই পরিষ্কার করে নিয়ে কাপড় বা কাগজের ভারী স্তর দিয়ে পেঁচিয়ে নিতে ভুলবেন না। কাপড়-কাগজের ওপর দিয়ে পলিথিন পেঁচিয়ে নেওয়াও প্রয়োজন।

# বাসনকোসন বহন করার জন্য বাক্স বা লাগেজের ভেতর ছোট ছোট কাপড় বা কাগজ পেঁচিয়ে রাখুন। এগুলোর মধ্যে ভালোভাবে বসিয়ে নিন কাচ ও সিরামিকের সামগ্রী। মাঝে কোনো ফাঁকা রাখা চলবে না; ফাঁকা থাকলে ওই অংশে কাপড় বা কাগজ ঢুকিয়ে দিতে হবে। শখের ঘড়ি, বাঁধানো ছবি বা অন্যান্য ভঙ্গুর সামগ্রীও একইভাবে বহন করা সম্ভব।

# বাল্ব, ফ্যান সাবধানে খুলে নিয়ে পরিষ্কার করুন। এরপর খুব ভারী কাপড় বা কাগজের স্তর দিয়ে পেঁচিয়ে নিন। বৈদ্যুতিক সামগ্রীর সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে বৈদ্যুতিক মিস্ত্রির সাহায্য নিন।

# গ্যাসের চুলার সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে এবং নতুন বাসায় চুলার সংযোগ দিতে অবশ্যই চুলার মিস্ত্রির সাহায্য নিন। আপনার নতুন বাসা এবং যে বাসা ছেড়ে যাচ্ছেন, গ্যাসের চুলা বা গ্যাসলাইনের ত্রুটিজনিত দুর্ঘটনা এড়াতে সতর্ক থাকুন। গ্যাসের চুলা কেনার সময় যে প্যাকেটে রাখা থাকে, তা বাসা বদলানোর সময় চুলাটি বহন করতে কাজে লাগাতে পারেন। তবে কেনার সময়কার প্যাকেট সংরক্ষিত না থাকলে অবশ্যই নতুন প্যাকেটের ব্যবস্থা করতে হবে।

# ফ্রিজ বহনের সময়ও ভারী এবং মজবুত আচরণের প্রয়োজন, নইলে ফ্রিজের গায়ে দাগ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। দা, বঁটি, চাকু, চাপাতি প্রভৃতি ধারালো সামগ্রী বহনের সময় অবশ্যই ভারী কাগজ ও কাপড় দিয়ে শক্তভাবে পেঁচিয়ে নিন।

# নির্দিষ্ট ট্রাঙ্ক বা বাক্সে আলাদা কিছু জিনিস গুছিয়ে রাখতে পারেন। পানি, কিছু শুকনো খাবার, রান্নাঘরের সামগ্রী, বাথরুমের প্রয়োজনীয় সামগ্রী, শিশুর খাবার, শিশুর পোশাক, শিশু ও বয়স্ক ব্যক্তিদের প্রয়োজনীয় ওষুধ, বাড়ির স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়পড়ুয়া সদস্যদের বই, খাতা ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আলাদা আলাদা বাক্সে রাখুন এবং বাক্সের গায়ে লিখে রাখুন কোনটিতে কী আছে। মালামাল গুছিয়ে রাখতে গিয়ে বা ভারী আসবাব টানতে গিয়ে হাত-পা কেটে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই প্রাথমিক চিকিৎসার সামগ্রী দিয়ে সাজানো একটি বাক্সও কাছে রাখা জরুরি। এই বাক্সটিতে স্যাভলন, তুলা, ব্যান্ডেজ প্রভৃতি রাখা প্রয়োজন।

ঢাকা, রবিবার, ফেব্রুয়ারী ১২, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // টি এ এই লেখাটি ৬৯৯ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন