সর্বশেষ
বুধবার ৪ঠা আশ্বিন ১৪২৫ | ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

যেসব খাবারে বাচ্চারা স্মার্ট আর বুদ্ধিমান হয়

রবিবার, ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০১৭

487350920_1487488150.jpg
বিডিলাইভ রিপোর্ট :
আপনার সন্তান হয়তো সব রকম খাবার খেতে চায় না। কিন্তু ব্রেনের সঠিক বিকাশের জন্য কয়েকটা খাবার‚ যার মধ্যে ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড বেশি পরিমাণে থাকে তা রোজকার ডায়েটে থাকা খুব জরুরি। তাই বাচ্চাকে যদি অন্যদের থেকে স্মার্ট আর বুদ্ধিমান করে তুলতে চান তাহলে অবশ্যই নিচের এই দশটা খাবার খাওয়াতে হবে।

আপেল:
বাচ্চা হোক বা বুড়ো ফল সবার জন্যেই ভালো। সবরকমের ফলই বাচ্চাদের উপকারে আসবে। কিন্তু আপেলে এক ধরণের অ্যান্টি অক্সিডেন্ট পাওয়া যায় যার নাম Quercetin। এটা ব্রেনের বিকাশের জন্য খুব ভালো। পরীক্ষা করে দেখা গেছে যে বাচ্চারা রোজ একটা করে আপেল খেয়েছে তাদের মনঃসংযোগ অন্যদের থেকে অনেক বেশি|

ডিম:
ডিমের কোনো জুড়ি হয় না। এটা শুধুনাত্র বাচ্চার ব্রেনের বিকাশ ঘটায় তাই নয়‚ সারা শরীর হেলদি রাখে। এছাড়াও নিয়মিত ডিম খেলে স্মৃতি শক্তিও বাড়ে। বেশির ভাগ বাচ্চাই ডিম খেতে ভালোবাসে। তাছাড়াও ডিমের এত রকমের প্রিপারেশন হয় যে রোজ ডিম সেদ্ধ বা ডিমের পোচ না দিলেও চলবে।

মাছ:
মাছে ওমেগা৩ ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে যা বাচ্চাদের ব্রেনের বিকাশের জন্য অত্যন্ত জরুরী। এছাড়াও মেমরি লস হতে দেয় না।

দই:
দইয়ের মধ্যে ক্যালাসিয়াম আর প্রোটিন পাওয়া যায় যা বাচ্চার স্বাস্থ্যের জন্য খুব জরুরী। এছাড়াও দইয়ের মধ্যে প্রোবায়োটিকস আছে যা ব্রেনের বিকাশের সাহায্য করে। এছাড়াও দেখা গেছে দই খেলে বাচ্চার মুডেরও পরিবর্তম ঘটে।

ওটমিল:
এত দিনে নিশ্চই জেনে গেছেন চিনি দেওয়া কর্ণফ্ল্যেক্স বা অন্য কোনো মিষ্টি মেশানো ব্রেকফাস্ট খাওয়া কতটা ক্ষতিকারক। তাই সকালে এইসব না দিয়ে বাচ্চাকে ওটস খাওয়ান। ওটস শরীর থেকে ব্যাড কোলেস্ট্রোল শুষে নেয় ফলে বাচ্চার ব্রেনের আর্টারী পরিষ্কার থাকে। এর ফলে বাচ্চার স্মৃতিশক্তি বাড়ে। বাচ্চা ওটস খেতে না চাইলে তাতে কাজু‚ কিসমিশ‚ স্ট্রবেরি‚ চেরি মিশিয়ে দিন।

অলিভ অয়েল:
অলিভ অয়েলে ম্যনো স্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড পাওয়া যায়, যা বাচ্চা বা বুড়ো সবার সুস্বাস্থ্যের জন্যেই দরকারী। তাই রেগুলার তেলের বদলে অলিভ অয়েল দিয়ে রান্না করার চেষ্টা করুন। অবশ্য ভাজাপোড়া যতটা কম খাওয়াবেন তত ভালো। কারণ অলিভ অয়েলেই ভাজুন বা এমনি তেলে‚ ভাজাভুজি সব সময়ই শরীরের জন্য ক্ষতিকারক।

আমন্ড:
ফ্যাটি অ্যাসিড ছাড়াও এতে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন পাওয়া যায় যা ড্যামেজড ব্রেন সেল রিপেয়ার করে। এছাড়াও স্মৃতি শক্তি বাড়াতেও সাহায্য করে আমন্ড বাদাম। এমনি না খেতে চাইলে আমন্ড বাদাম দিয়ে মিল্ক শেক বানিয়ে দিন বাচ্চাকে।

গ্রিন লিফি ভেজিটেবিলস:
গ্রিন লিফি ভেজিটেবল যেমন পালং শাকে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট পাওয়া যায় যা ব্রেনের বিকাশ ঘটায়। এছাড়াও বাচ্চাদের স্মৃতিশক্তি বাড়াতেও সাহায্য করে পালং শাক।

অ্যাভোকার্ডো:
আমাদের শরীরে যা দরকার হয় মোটামুটি সবই এই ফলে পাওয়া যায়। উপরন্তু এতে গুড ফ্যাট আছে যা বাচ্চার ব্রেনকে ডেভেলপ করতে সাহায্য করে। তবে বাচ্চাদের এর টেস্ট হয়তো ভালো নাও লাগতে পারে। তাই এর স্যান্ডউইচ বানিয়ে দিন। বা চিপসের সঙ্গেও খাওয়াতে পারেন অ্যাভোকার্ডো দিয়ে।

আখরোট:
আমরা ছোটবেলায় অনেকেই ভাবতাম এটা মাথার ঘিলুর মতো দেখতে তাই এটা মাথার জন্য ভালো। সেই ভাবনায় কিন্তু কোনো ভুল ছিল না। আখরোটে ওমেগা ৩ পাওয়া যায়‚ যা হলো গিয়ে আল্টিমেট ব্রেন বুস্টার। এছাড়াও এতে ভিটামিন E আছে যা ব্রেন সতেজ রাখে।

ঢাকা, রবিবার, ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // জে এইচ এই লেখাটি ৭০৪৬ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন