সর্বশেষ
রবিবার ৪ঠা অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৮ নভেম্বর ২০১৮

সুন্দর চুল পেতে নিয়মিত যা খাবেন

সোমবার, মার্চ ২০, ২০১৭

1246709888_1489998985.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
নারী-পুরুষ সবাই সুন্দর স্বাস্থ্যোজ্বল চুল চায়। শুধু শ্যাম্পু করা কিংবা চুলে প্যাক লাগানো সুন্দর চুলের জন্য যথেষ্ট নয়। সুন্দর ঝলমলে চুল পাবার জন্য স্বাস্থ্যকর খাবারের প্রয়োজন রয়েছে। চুলের সবচেয়ে প্রয়োজনীয় উপাদানটি হলো প্রোটিন। প্রোটিন নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে। শুধু প্রোটিন নয় জিঙ্ক, আয়রন, ভিটামিন বি, ফ্যাটি অ্যাসিড, সালফার, কার্বোহাইড্রেইড সবগুলো উপাদান চুলের জন্য প্রয়োজন।

# ডিম
প্রোটিনের অন্যতম উৎস হলো ডিম। ডিমের হেয়ার প্যাক চুলের যেমন উপকারী তেমনি খাবার হিসেবেও এটিকে খাদ্য তালিকায় রাখুন। ডিমে রয়েছে বায়োটিন এবং ভিটামিন বি যা চুল পড়া রোধ করে নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে। প্রতিদিন একটি ডিম খাওয়ার চেষ্টা করুন।

# মিষ্টি আলু
চুল বেশি শুকনো থাকলেও সমস্যা দেখা দেয়। এতে চুলের উজ্জ্বলতা কমে যায়। এর প্রতিরোধে প্রয়োজন অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বিটা ক্যারোটিন। মানুষের শরীর এই বিটা ক্যারোটিনকে ভিটামিন এ-তে রূপান্তরিত করে। এটি মাথার খুলির ওপরের চামড়ায় সেবাম নামের একধরনের তরল পদার্থ নিঃসরণ করে, যা চুলের শুকিয়ে যাওয়া প্রতিরোধ করে। মিষ্টি আলুতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে বিটা ক্যারটিন যা চুলে পুষ্টি যোগাতে পারে। চুল পড়া রোধ করে এবং নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে।

# অ্যাভাকাডো
অ্যাভাকাডোতে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন বি এবং ভিটামিন ই, ফ্যাটি অ্যাসিড রয়েছে। যা চুলের আগা ফাটা, চুল পড়া রোধ করে। এর সাথে চুলে গোড়া মজবুত করে তোলে।

# কাঠাবাদাম
কাঠাবাদামে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ জিঙ্ক যা মাথার তালুতে রক্ত চলাচল বজায় রাখে। এছাড়া কাঠবাদামে রয়েছে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড, ভিটামিন ই চুলের আগা ফাটা রোধ করে নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে। প্রতিদিন এক মুঠো কাঠবাদাম খাওয়ার চেষ্টা করুন। এছাড়া দুই বা তিনটি কাঠাবাদাম আধা কাপ পানিতে সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন সকালে এটি খেতে পারেন।

# পালংশাক
শাকসবজির মধ্যে পালংশাকে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ, আয়রন, বিটা ক্যারোটিন, ফোলেট ও ভিটামিন সি। মাথার ওপরের ত্বক ও চুলকে সুস্থ রাখতে এগুলো কাজ করে। এগুলো চুলের ময়েশ্চার ঠিক রাখে বলে তা সহজে ভাঙে না।

# পেয়ারা
পেয়ারায় প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি রয়েছে। এটি চুল ভেঙে যাওয়া ঠেকায়। এক কাপ পেয়ারার রসে থাকে ৩৭৭ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি। প্রতিদিন মানুষের শরীরে যে পরিমাণ ভিটামিন সি প্রয়োজন হয়, তার চেয়ে এটি চার গুণ বেশি।

# স্ট্রবেরি
লাল ছোট ফলটি চুল দ্রুত বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। এর ভিটামিন সি, ফাইবার, ম্যাগনেসিয়াম, ভিটামিন কে, পটাসিয়াম রয়েছে। যা চুলের গোড়া মজবুত করে তোলে।

# ব্রকলি
ব্রকলিতে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন এ এবং ভিটামিন সি রয়েছে যা সিবাম তৈরি করে। সিবাম হেয়ার ফলিকল তৈরি করে যা প্রাকৃতিক কন্ডিশনার হিসেবে কাজ করে। এছাড়া এতে রয়েছে আয়রন, ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড যা চুল সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

# হলুদ ক্যাপসিকাম
একটি কমলার চেয়ে সাড়ে পাঁচ গুণ বেশি ভিটামিন সি আছে হলুদ ক্যাপসিকামে। ভিটামিন সি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট চুলের গোড়ায় পুষ্টি দিয়ে চুল মজবুত করে। এটি চুলের আগা ফাটাও রোধ করে থাকে।

# দারুচিনি
চা বা কফি পান করছেন? একটুখানি দারুচিনির গুঁড়ো ছিটিয়ে দিন। কিংবা কোনো খাবারেও দারুচিনির গুঁড়ো ব্যবহার করতে পারেন। শরীরের রক্তপ্রবাহে দারুণভাবে সহায়তা করে এটি। এতে চুলের গোড়া বা রোমকূপ প্রয়োজনীয় অক্সিজেন ও পুষ্টি পায়।

ঢাকা, সোমবার, মার্চ ২০, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // টি এ এই লেখাটি ১৯৭৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন