সর্বশেষ
সোমবার ৯ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বাংলাদেশেও বিস্তৃত হচ্ছে বিসিসিবি’র কার্যক্রম

শনিবার, এপ্রিল ১৫, ২০১৭

292578453_1492198544.jpg
বিডিলাইভ রিপোর্ট :
শুধু আক্ষরিক অর্থে ‘হৃদয়ে বাংলাদেশ’ নয়, মন-প্রাণ উজাড় করে, ক্লান্তি ও অবকাশকে তুচ্ছ করে, নিজেদের মেধা ও সময় দিয়ে কমিউনিটির জন্য কাজ করে চলেছে প্রবাসী কানাডিয়ান বাংলাদেশীরা| আর তাতে নেতৃত্ব দিচ্ছে ১৪ হাজার সদস্য বিশিষ্ট প্রবাসী বাংলাদেশিদের সংগঠন বিসিসিবি। বিসিসিবি এতদিন মূলত: কানাডার অভ্যন্তরে বসবাসকারী তথা বাংলাদেশী কানাডিয়ান এবং কানাডিয়ান বাংলাদেশীদের জন্য কাজ করছিলো। এবার তাতে যোগ হলো নতুন মাত্রা। বিসিসিবি’র সেবাকে বাংলাদেশ পর্যন্ত পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে ইমিগ্রেশন ও বিদেশে লেখাপড়া বিষয়ে সহায়তাকরী একটি ফোরামের সাথে সমঝোতা করেছে বিসিসিবি।

সমঝোতার অংশ হিসেবে বিসিসিবি’র প্রেরণায় BDandCanada.ca নামের ফোরামটি বিসিসিবি’র সাথে একীভূত হওয়ার ঘোষণা দেয়| ইতিমধ্যে ফোরামটি অনেক চমৎকার কাজ করেছে। এর সহায়তায় অনেকেই কানাডায় এসেছেন। বেশ কয়েকজন আসার পথে আছেন।

পহেলা বৈশাখ ১৪২৪ এর প্রাক্কালে বিসিসিবি’র সাথে একীভূত হওয়ার ঘোষণা আসে বিসিসিবি সভাপতি রিমন মাহমুদ এবং ফোরামটির প্রতিষ্টাতা এম সিদ্দিকুর রহমানের যৌথ বিবৃতিতে| ঘোষণা অনুযায়ী ফোরামটি “BCCB for All Bangladeshis” নামে বিসিসিবি’র একটি সাবসিডিয়ারিতে রূপান্তরিত হলো BDandCanada.ca| এর ফলে কার্যত ইন্ডিপেন্ডেন্ট বডি BDandCanada.ca বিলুপ্ত হয়ে বিসিসিবি’র অন্যতম সাবসিডিয়ারি হয়ে নতুন উদ্যমে ও বড় পরিসরে কাজ করে যাবে যার সেবা পাবে কানাডায় ইমিগ্রেশন ও লেখাপড়ায় আগ্রহী যেকোন বাংলাদেশী। বিসিসিবির সাথে একীভূত হওয়ার কারণ জানতে চাওয়া হলে ফোরামটির প্রতিষ্টাতা এম সিদ্দিকুর রহমান বিডিলাইভকে জানান, “বিসিসিবি ইতোমধ্যে ব্যাপক আস্থাভাজন এবং কার্যকর প্রতিষ্ঠানে রূপ নিয়েছে। বিসিসিবি কাজ করে যাচ্ছে কানাডার মানচিত্রে বাংলাদেশের সুনির্দিষ্ট অবস্থান তৈরির লক্ষ্যে। বিসিসিবি কানাডাতে জাতি হিসেবে বাংলাদেশীদের মাথা সমুন্নত করতে বদ্ধ পরিকর। আমরা মনে করি, বিসিসিবি’র সাবসিডিয়ারি হয়ে আমরা আমাদের সেবাকে নতুন মাত্রায় নিয়ে যেতে পারবো। পহেলা বৈশাখে এর চেয়ে বড় চমক দেবার মত আমাদের কাছে কিছু নেই।”

বিসিসিবি সভাপতি রিমন মাহমুদ তার অভিব্যক্তিতে বলেন, “সম্ভাব্য সব দিক দিয়ে আমরা বাংলাদেশকে সাহায্য করতে চাই। অন্যতম প্রতিষ্টাতা এডমিন হিসেবে আমি জানি বিসিসিবি’তে কত লোক জয়েন করতে চায় কানাডার বুকে নিজেদের মাথা গুজার চেষ্টায়। আমার মন কাঁদে যখন বিসিসিবিতে জয়েন করার জন্য কারো রিকোয়েস্ট ডিক্লাইন করতে হয়, যাদের বেশিরভাগই স্বপ্ন কানাডায় পড়াশুনা বা ইমিগ্রেশন নিয়ে আসা। সিদ্দিক আমার কষ্ট উপশমের একটি সুযোগ করে দিয়েছে। ক্রাইটেরিয়া অনুযায়ী বিসিসিবি মূল গ্রূপে কাউকে অন্তর্ভুক্ত করা না গেলেও, সাবসিডিয়ারি অন্য গ্রূপের মাধ্যমে সবার সাথেই কানেক্টেড থাকার সুযোগ থাকবে। পাশাপাশি সুযোগ এসেছে বিসিসিবি’র অন্যতম লক্ষ্য বাংলাদেশ এবং কানাডার মধ্যে সংযোগকে প্রমোট করে উভয়কেই প্রমোট করার। এই একীভূতকরণ এবারের পহেলা বৈশাখ উদযাপনের অন্যতম প্রতিপাদ্য। স্বদেশ ও স্বজাতির সেবা করার অঙ্গীকার, এই উৎসবকে করেছে স্বার্থক।”


শিহাব উদ্দিন, কো-অর্ডিনেটর, প্রবাসী ডেস্ক, বিডিলাইভ



ঢাকা, শনিবার, এপ্রিল ১৫, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // কে এইচ এই লেখাটি ২৩৪৭ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন