সর্বশেষ
বুধবার ৪ঠা আশ্বিন ১৪২৫ | ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

কোমাতেই সন্তানের জন্ম, নতুন জীবন পেলেন সন্তানের স্পর্শে

শনিবার, এপ্রিল ২২, ২০১৭

833281487_1492842334.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
আর্জেন্টিনার এক পুলিশ কর্মী এমিলিয়া বাননা। সমস্ত বৈজ্ঞানিক যুক্তিকে মিথ্যে প্রমাণ করে আপাতত চিকিৎসক মহলে আলোচনার বিষয় তিনি। মাস চারেক আগে কর্তব্যরত অবস্থাতে পথ দুর্ঘটনায় মারাত্মক আহত হন এমিলিয়া।

এতোটা অসুস্থ হয়ে পড়েন যে চলে যান কোমায়। তখন তার গর্ভে পাঁচ মাসের সন্তান। চিকিৎসকেরা আইসিইউইতেই তার শরীরের মধ্যে বাঁচিয়ে রাখলেন ছোট্ট প্রাণটিকে। সঠিক সময়ে সন্তানের জন্ম হয় এবং সেই সন্তানের স্পর্শেই ধীরে ধীরে কোমা থেকে বেরিয়েও এলেন এমিলিয়া। এমিলিয়া-ক্রিস্টিয়ানের ছেলের নাম রাখা হয়েছে সান্টিনো-র।

অ্যামেলিয়ার ভাই চেসার জানান, চলতি বছরে এসে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় কখনো কখনো তার বোন নড়াচড়া এমনকি বেশ কয়েকবার জেগে ওঠার চেষ্টা করেছেন। গত বৃহস্পতিবার ক্লিনিকে আমরা তাকে দেখতে যাই। এসময় আমরা শুনতে পাই কেউ একজন হ্যাঁ বলছে। সত্যিই দারুণ একটা অনুভূতি হয়েছিল সে সময়।’

এমনই ‘অদ্ভুত’ ঘটনার সাক্ষী থাকল আর্জেন্টিনার এক দম্পতি। ৩৪ বছরের এমিলিয়া বাননা এবং তার স্বামী ক্রিস্টিয়ান এসপিনডোলা দু’জনেই পুলিশে কর্মরত। গত বছর নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে উত্তর-পূর্ব আর্জেন্টিনার পোসাদাস এলাকা দিয়ে গাড়ি করে যাচ্ছিলেন এই দম্পতি। গাড়ি চালাচ্ছিলেন তার স্বামী ক্রিস্টিয়ান। সঙ্গে ছিলেন আরও চার সহকর্মী। এমন সময় হঠাৎই মারাত্মক পথ দুর্ঘটনার কবলে পড়ে এমিলিয়াদের গাড়িটি। মাথায় চোট পান এমিলিয়া। মস্তিষ্কের ভিতরে রক্ত জমাট বেঁধে যায়। সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও কোমায় চলে যান এমিলিয়া। তিনি গর্ভবতী ছিলেন।

সিজারের মাধ্যমে তার গর্ভের সন্তান বের করে আনেন চিকিৎসকরা। তার পর থেকে অ্যামেলিয়ার বোন নরমা ওই শিশুর দেখাশুনা করতে থাকেন। গত চারমাসে প্রত্যেকদিন তিনি সন্ধ্যা ছয়টায় অ্যামেলিয়ার কাছে বাচ্চাটি নিয়ে আসতেন। তারা ওই বাচ্চার নাম রেখেছেন সান্তিনো।
কোমায় সন্তানের জন্ম
এভাবে কেটে গেছে প্রায় চারমাস। চার মাসে সান্তিনোও অনেকটা বেড়ে উঠেছেন। বৃহস্পতিবার কোমা থেকে চেতনা ফিরে পাবার পর তিনি সান্তিনোকে তার বোনের ছেলে বলে মনে করেছিলেন। এরপর পরিবারের সদস্যরা তাকে সুসংবাদ দেন, সুন্দর ওই বাচ্চাটি আর কেউ নয়; তারই গর্ভের সন্তান।

এরপর অ্যামেলিয়া তার সঙ্গে ঘটে যাওয়া সেই নির্মম দুর্ঘটনার স্মৃতি মনে করার চেষ্টা করেন। প্রথমে অগোছালোভাবে কথা বললেও পরে তা ঠিক হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন ভাই চেসার।

চিকিৎসকরাও এই ঘটনাকে অলৌকিক ঘটনা বলেই মনে করছেন। মস্তিষ্কের আঘাত নিয়ে কোমায় চলে যাওয়ার পর অ্যামেলিয়া সুস্থ হয়ে ওঠায় তারাও অবাক হয়েছেন।

ঢাকা, শনিবার, এপ্রিল ২২, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ৩১৮২ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন