সর্বশেষ
শুক্রবার ১০ই ফাল্গুন ১৪২৫ | ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

এ্যাজমা ঝুঁকি রোধে টমেটো ও গাজর

রবিবার, এপ্রিল ৩০, ২০১৭

1986139649_1493536325.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
পরিবেশদূষণ ও খাদ্যদ্রব্য থেকে শুরু করে ওষুধের প্রতিক্রিয়ার কারণে অনেক দেশেই এ্যাজমা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। শাক-সবজি যে কোন রোগের প্রধান প্রতিরোধক।

যাদের প্রচুর পরিমাণে টমেটো, গাজর ও সবুজ পাতাওয়ালা শাকসবজি খাওয়ার অভ্যাস আছে, তারা এ্যাজমাতে অন্যদের তুলনায় কম আক্রান্ত হয়ে থাকেন।

প্রাপ্তবয়স্কদের এ্যাজমা থেকে সুরক্ষায় শাকসবজির ভূমিকা অনেক। এ ছাড়া দেখা যায়, শাকসবজির যে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান রয়েছে, তা শ্বাসনালির সুরক্ষা নিশ্চিত করে।

গাজর, টমেটোর রস ও বাঁধাকপিতে ক্যারোটিনয়েড নামের একটি উপাদান থাকে, যা পরবর্তী সময়ে ভিটামিন-'এ'তে পরিবর্তিত হয়। ভিটামিন-এ অন্য অনেক কাজের পাশাপাশি মানবদেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং শ্বাসনালির আবরণ কলাকে সুসংহত করে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, একজন মানুষের সুস্থতার জন্য কমপক্ষে পাঁচ ধরনের শাকসবজি ও ফলমূল খাওয়া উচিত। একই সঙ্গে প্রত্যেকের জানা জরুরি যে তার জন্য কোন শাকসবজি বা ফলমূল বেশি উপকারী অথবা কোনটি খাদ্যতালিকা থেকে বাদ পড়লে তাকে ঝুঁকির মুখোমুখি হতে হবে।

তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, পারিবারিক রোগ, পরিবেশ, শরীরের অ্যালার্জেনের মাত্রা—এসবও এ্যাজমা সংক্রমণে ভূমিকা রাখে। তাই এ্যাজমার মাত্রা বেশি হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

ঢাকা, রবিবার, এপ্রিল ৩০, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ৬৯৯ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন