সর্বশেষ
বৃহঃস্পতিবার ১লা অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৫ নভেম্বর ২০১৮

মোনালিসার হাসির রহস্য উন্মোচন করলেন বিশেষজ্ঞরা

বৃহস্পতিবার, মে ১১, ২০১৭

2030497718_1494478516.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
বিখ্যাত চিত্রশিল্পী লিওনার্দো দা ভিঞ্চির আঁকা চিত্রকর্ম মোনালিসার হাসিতে নানা রহস্য খেলা করে। কখনও মনে হয়, মোনালিসার মুখে লেগে রয়েছে তির্যক ব্যঙ্গের হাসি। আবার একটু সময় নিয়ে তাকালে মনে হয়, কোনো অব্যক্ত বেদনা যেন ফুটে বেরোচ্ছে সেই হাসিতে। মোনালিসার এই হাসির রহস্য ভেদ করতে বিগত পাঁচ শতাব্দী ধরে গলদঘর্ম হয়েছেন অজস্র শিল্পবিশেষজ্ঞ এবং সাধারণ দর্শক।

শেষ পর্যন্ত মোনালিসার হাসির রহস্য যে কী, সেই প্রশ্নের কোনো সর্বজনসম্মত উত্তর মেলেনি। কিন্তু এবার সেই প্রশ্নের বহু প্রতীক্ষিত উত্তরটি পাওয়া গেছে। অন্তত ইউনিভার্সিটি অফ ফ্রেইলবার্গের স্নায়ুরোগ বিশেষজ্ঞরা তেমনটাই দাবি করছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক জুয়েরগেন কোরনিমিয়ের জানাচ্ছেন, একটি বিশেষ সমীক্ষার ফল হিসেবে তারা এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন যে, কোনো বিশেষ মানসিক বিচলন নয়, মোনালিসার হাসি সুখের হাসি। আনন্দের কারণেই হেসেছিলেন মোনালিসা। কিন্তু কীভাবে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছলেন বিশেষজ্ঞরা?

তারা জানাচ্ছেন, মোনালিসার হাসির রহস্য ভেদ করতে একটি বিশেষ সমীক্ষা চালানো হয়েছিল। লিওনার্দো দা ভিঞ্চির আঁকা এই অমর চিত্রকলার কেন্দ্রস্থ নারীটির ঠোঁটের দুটি প্রান্ত সামান্য ওপরের দিকে তুলে অথবা নিচের দিকে বেঁকিয়ে মোনালিসার চারটি একটু বেশি খুশি এবং চারটি একটু বেশি বিষণ্ন সংস্করণ তৈরি করেন তারা। তারপর প্রকৃত মোনালিসা কোনটি, তা জানতে না দিয়ে ১২ জন দর্শককে এই ৯টি ছবি অদল-বদল করে দেখানো হয় মোট ৩০বার।

দর্শকদের জানাতে বলা হয়, কোন মোনালিসাটিকে তারা খুশি বলে মনে করছেন এবং কোন মোনালিসার মুখে তারা দেখছেন বিষণ্নতার ছাপ।

দেখা যায়, প্রত্যেক দর্শক প্রতিবারই আসল মোনালিসাকে দেখে, তার হাসিটিকে আনন্দের হাসি বলেই চিহ্নিত করেন। কোনো মানুষের মুখের অভিব্যক্তি অন্য মানুষের মনে তার সম্পর্কে কী ধারণা গড়ে তোলে, সেই সম্পর্কে ধারণা পাওয়ার লক্ষ্যেই এই সমীক্ষা চালানো হয়েছিল।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, সমীক্ষার এই ফলাফল মানুষের মনের সেই গহীন রহস্য ভেদে অনেকটাই সহায়ক হবে।

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, মে ১১, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ১২৬২৮ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন