সর্বশেষ
শুক্রবার ২রা অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৬ নভেম্বর ২০১৮

কবি দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের ১৫৪তম জন্মবার্ষিকী আজ

বুধবার, জুলাই ১৯, ২০১৭

1868765117_1500446043.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
দ্বিজেন্দ্রলাল রায়, যিনি ডি এল রায় নামেও পরিচিত ছিলেন। তিনি একাধারে কবি, নাট্যকার ও সংগীতস্রষ্টা। ১৮৬৩ সালের ১৯ জুলাই পশ্চিমবঙ্গের নদিয়া জেলার কৃষ্ণনগরে জন্মগ্রহণ করেন।

দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের বাবা কার্তিকেয়চন্দ্র রায় ছিলেন কৃষ্ণনগর রাজবংশের দেওয়ান। তার বাড়িতে বহু গুণীজনের সমাবেশ হত। কার্তিকেয়চন্দ্র নিজেও ছিলেন একজন বিশিষ্ট খেয়াল গায়ক ও সাহিত্যিক। আর সাংস্কৃতিক পরিবেশ দ্বিজেন্দ্রলালের প্রতিভার বিকাশে বিশেষ সহায়ক হয়। তার মায়ের নাম প্রসন্নময়ী দেবী। দ্বিজেন্দ্রলালের দুই ভাই রাজেন্দ্রলাল ও হরেন্দ্রলাল এবং এক ভাবি মোহিনী দেবীও ছিলেন বিশিষ্ট সাহিত্যস্রষ্টা।

দ্বিজেন্দ্রলাল সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডলে বেড়ে উঠেছেন। তাদের বাড়িতে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, মাইকেল মধুসূদন দত্ত, দীনবন্ধু মিত্র প্রমুখের যাতায়াত ছিল। এই রকম পরিবেশে কৈশোরেই তিনি কবিতা রচনা শুরু করেন। ১৯০৫ সালে তিনি কলকাতায় ‘পূর্ণিমা সম্মেলন’ নামে একটি সাহিত্য সংগঠন প্রতিষ্ঠা করেন।

অল্প বয়স থেকেই কাব্য রচনার প্রতি তার ঝোঁক ছিল। তিনি প্রায়  ৫০০ গান রচনা করেন। এই গানগুলি বাংলা সংগীত জগতে দ্বিজেন্দ্রগীতি নামে পরিচিত। তার বিখ্যাত গান  ‘ধনধান্যে পুষ্পে ভরা’, ‘বঙ্গ আমার! জননী আমার!’ আজো সমান জনপ্রিয়। তিনি অনেকগুলি নাটক রচনা করেছেন।

বিখ্যাত নাটকগুলির মধ্যে উল্লেখযোগ্য একঘরে, কল্কি-অবতার, বিরহ, সীতা, তারাবাঈ, দুর্গাদাস, রাণা প্রতাপসিংহ, মেবার-পতন, নূরজাহান, সাজাহান, চন্দ্রগুপ্ত, সিংহল-বিজয় ইত্যাদি। আর তার রচিত কাব্যগ্রন্থগুলির মধ্যে জীবদ্দশায় প্রকাশিত আর্যগাথা (১ম ও ২য় ভাগ) ও মন্দ্র বিখ্যাত।

ঢাকা, বুধবার, জুলাই ১৯, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ৫৮৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন