সর্বশেষ
রবিবার ৮ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

চিরিরবন্দরে ধান ক্ষেতের ক্ষতিকর পোকা খাচ্ছে পাখি

সোমবার, জুলাই ৩১, ২০১৭

1745829557_1501496295.jpg
চিরিরবন্দর প্রতিনিধি, দিনাজপুর :
ক্ষতিকর পোকা দমনে এক সময় জমিতে ব্যাপকভাবে কীটনাশক ব্যবহার করা হতো। এখন সে প্রবণতা কমেছে। ধান ক্ষেতে পোকা খেকো পাখি বসার ব্যবস্থা করে পোকা দমন করা হচ্ছে। দিনাজপুরের বৃহত্তর চিরিরবন্দরে কৃষকদের কাছে দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে বিনা খরচে পোকা দমনের পরিবেশ বান্ধব এ পদ্ধতি। কৃষিবিদরা জানান, কৃষি বিভাগের নতুন উদ্ভাবিত এ পদ্ধতির নাম পার্চিং পদ্ধতি।

উপজেলা কৃষিসম্প্রসারন অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, চলতি রোপা আমন মৌসুমে উপজেলায় শতভাগ জমিতে জীবন্ত ধৈঞ্চা গাছের চারা রোপণ ও ডেড পার্চিং বাঁশের কঞ্চি লাগানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। যা গত বছরের তুলনায় দ্বিগুণ। পার্চিং পদ্ধতি দুই ধরনের হয়ে থাকে। একটি ডেথ পার্চিং জমিতে শুকনো ডাল অথবা কঞ্চি পুঁতে দেয়া। আরেকটি জীবন্ত পার্চিং জমিতে ধৈঞ্চা গাছ লাগানো।

ধান ক্ষেতের সবুজের মধ্যে ধৈঞ্চা গাছের হলুদ ফুলের সমারোহ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অনেক খানি যেমন বাড়িয়ে দেয় তেমনি করে পোকা দমনের জন্য হাজার হাজার টাকা খরচ করে নানা ধরনের কীটনাশক স্প্রে করতে হয় না। কীটনাশক স্প্রে ব্যবহারে একদিকে যেমন চাষীদের আর্থিক ক্ষতি হয়, অন্যদিকে পরিবেশ ও বায়ুদূষণ হয়। এছাড়াও বিষাক্ত ধানের বিষাক্ত ভাত। ফলে মানুষের নানা ধরনের রোগবালাই সৃষ্টি হয়।

তাই রোগবালাই থেকে রক্ষা পেতে কীটনাশক প্রয়োগ ছাড়াই বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট আফ্রিকান জাতের ধৈঞ্চার দ্বারা জীবন্ত পার্চিং পোকা দমনের সবচেয়ে সহজ উপায় এবং কম খরচে পরিবেশবান্ধব কৃষি ব্যবস্থাপনার জন্য কৃষকদের পরামর্শ দিচ্ছেন।

উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এ পদ্ধতি অনুসরণকারী কৃষকদের মধ্যে রফিকুল ইসলাম, মুকুল হোসেন, অরিফ হোসেন, শওকত আলী, জাকির হোসেন, বেলাল, শাহীনুর, লাবলু, নজরুল ইসলাম, দয়াল রায়, সাইদুর রহমানসহ অনেকের সাথে কথা হলে তারা জানান, পার্চিং পদ্ধতি বোঝানোর সময় তারা বিশ্বাস করতে পারেনি। পরে এ পদ্ধতির গুনাগুন দেখে বিস্মিত হন। তারা এ বছর স্ব-উদ্যোগে গত বছরের তুলনায় দ্বিগুন হারে এ পদ্ধতি অনুসরণ করেছেন।

উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা রোহিনী কান্ত, খাদেমুল ইসলাম ও শামীমসহ সকল উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা জমিতে পার্চিং স্থাপনে সাধারণ কৃষকদের উদ্বুদ্ধকরণ অব্যাহত রেখেছেন। ফলে ডেড ও জীবন্ত পার্চিং পদ্ধতি চিরিরবন্দর উপজেলার চাষীদের মধ্যে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।

উপজেলা কৃষি অফিসার ও কৃষিবিদ মো: মাহামুদুল হাসান জানান, কৃষি বিভাগ কৃষকদের এই পদ্ধতি ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করছে। এর ফলে উড়ন্ত পোকামাকড়, দৃশ্যমান পোকাসহ ক্ষতিকারক পোকা পাখিরা খেয়ে ফেলছে।

প্রাকৃতিকভাবে পোকা-মাকড় দমনে পার্চিং পদ্ধতি সফলতা দেখাবে বলে মনে করছেন এ কৃষি অফিসার।

ঢাকা, সোমবার, জুলাই ৩১, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ১২৯ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন