সর্বশেষ
সোমবার ৯ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বিশ্বের সবচেয়ে ৭টি ভয়ানক ট্রেন পথ

বুধবার, আগস্ট ২, ২০১৭

353797945_1501681458.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
বিশ্বের প্রায় সব দেশেই রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা রয়েছে। গণ পরিবহণ হোক অথবা পণ্য পরিবহণ, রেলপথ আবিষ্কারের ফলে যোগাযোগ ব্যবস্থায় বিপ্লব এসেছে তাতে সন্দেহ নেই। পৃথিবীর এমন কয়েকটি দেশ রয়েছে যেখানে কিছু জায়গায় রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা অত্যন্ত দুর্গম ও ঝুঁকিপূর্ণ। সেই সমস্ত জায়গা কোথায় কোথায় রয়েছে তা একনজরে দেখে নেওয়া যাক।

মায়েকলং রেলওয়ে মার্কেট, থাইল্যান্ড



বিশ্বের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর রেললাইনের মধ্যে অন্যতম থাইল্যান্ডের মায়েরলং রেলওয়ে মার্কেট। বাজার এলাকার একেবারে বুক চিরে রেললাইন চলে গিয়েছে। থাইল্যান্ডের অন্যতম বড় ও তাজা সি-ফুড বাজার এটি। রেল যখন আসে, তখন বাজারের সব মানুষ সরে যায় আবার রেল যখন চলে যায় তখন আবার তারা বাজারে ফিরে আসে।

বার্মা রেলওয়ে, থাইল্যান্ড



বার্মার এই রেলওয়ে মৃত্যুফাঁদ বলেও পরিচিত। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ে জাপানের সম্রাটরা এই রেলওয়ে তৈরি করেন। ২৫৮ মাইল লম্বা এই রেলওয়ে তৈরি করতে গিয়ে ১ লক্ষ ১০ হাজার মানুষের প্রাণ গিয়েছিল।

ভারতীয় রেলওয়ে, ভারত



ভারতে সারা পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে বেশি মানুষ ট্রেনে যাতায়াত করেন। নানা এলাকায় দুর্গম রেলপথ রয়েছে এদেশে। এছাড়া প্রতিবছর ২৫ হাজার মানুষ ভারতে রেলের কারণে মারা যান।

ইকুয়েডর রেলওয়ে, ইকুয়েডর



দ্য নারিজ দেল দায়াবলো রেলপথ ইকুয়েডরে রয়েছে। এই রেলপথ অত্যন্ত দুর্গম। তা নির্মাণ করা শুরু হয় ১৮৯৯ সালে। রেলপথ তৈরি করতে গিয়ে বহু মানুষ প্রাণ হারান। এর সর্বোচ্চ উচ্চতা ১১৮৪১ ফুট। ভয়ঙ্করতম রেলপথের মধ্যে এটি অন্যতম।

পাম্বান সেতু, ভারত



রামেশ্বরমে পাম্বান সেতু ৬৭৭৬ ফুট দীর্ঘ। সমুদ্রের উপরে তৈরি এই সেতু দিয়ে ভারতীয় রেল যাত্রা করে। ঘূর্ণিঝড় প্রবণ এই এলাকায় প্রচণ্ড জোরে বাতাস বয়। যার ফলে রেল চলাচল করা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ।

কুরান্দা রেলওয়ে, অস্ট্রেলিয়া



বিশ্বের সবচেয়ে দুর্গম রেলপথের মধ্যে অন্যতম অস্ট্রেলিয়ার এই কুরান্দা রেলওয়ে। ১৮৮২ সালে খনির কাজে সুবিধায় জন্য এর নির্মাণ শুরু হয়। বহু মানুষ প্রাণ হারিয়েছে এর নির্মাণকাজের সময়ে।

জেলমারবান ফুনিকুলার, সুইজারল্যান্ড



ফিতের মতো রেলপথ অত্যন্ত দুর্গম। বিশ্বের দ্বিতীয় সবচেয়ে সরু রেলপথ এটি। এই পথে রেল চড়লে মনে হবে রোলার-কোস্টার রাইড চড়ানো হচ্ছে।

ঢাকা, বুধবার, আগস্ট ২, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // আর এ এই লেখাটি ১০২৬ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন