সর্বশেষ
রবিবার ৩০শে শ্রাবণ ১৪২৯ | ১৪ আগস্ট ২০২২

তিন ছেলে পুলিশ, তবুও ভিক্ষা করেন মা

সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৭

1279775310_1505736321.jpg
বরিশাল ব্যুরো :
বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার ক্ষুদ্রকাঠি গ্রামের মৃত আইয়ুব আলী সরদারের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম (৭৫)। তার ছয় সন্তানই প্রতিষ্ঠিত। তার তিন ছেলে আছে পুলিশ বাহিনীতে, মেয়ে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা।

এ বয়সে যার আরাম-আয়েশে দিন কাটানোর কথা তার। কিন্তু সেখানে দু'বেলা খাবার জোটাতে ভিক্ষা করতে হয় তাকে। ভিক্ষা না করলে খাবার জোটে না তার ভাগ্যে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০১৪ সালের ১ অক্টোবর মনোয়ারা বেগমের স্বামী আইউব আলী সরদার মৃত্যুবরণ করেন। আইউব আলী ও মনোয়ারা দম্পতির ছয় সন্তানের মধ্যে তিন পুত্র যথাক্রমে-ফারুক হোসেন ও নেছার উদ্দিন পুলিশের এএসআই এবং জসিম উদ্দিন পুলিশ সদস্য হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। একমাত্র মেয়ে মরিয়ম সুলতানা শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত। অন্য দুই পুত্র শাহাবউদ্দিন ব্যবসা এবং গিয়াস উদ্দিন ইজিবাইক ভাড়ায় চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছেন।

সূত্রমতে, বৃদ্ধা মনোয়ারা বেগম বয়সের ভারে স্বাভাবিক ভাবে হাঁটতে পারছেন না। গত চার মাস আগে গ্রামে ভিক্ষা করতে গিয়ে পড়ে কোমরের হাড় ভেঙ্গে যায়। সেই থেকে আজ পর্যন্ত বাবুগঞ্জের স্টিল ব্রিজের পাশের একটি খুঁপরী ঘরে বিনাচিকিৎসায় অর্ধাহারে বেঁচে আছেন বৃদ্ধা মনোয়ারা বেগম।

মনোয়ারা বেগমের পুত্র ইজিবাইক চালক গিয়াস উদ্দিন বলেন, আমার সাধ্য মতো মাকে চিকিৎসা দেবার চেষ্টা করেছি। এখন আমিও সহয় সম্বলহীন তাই বৃদ্ধ মা আজ বিনা চিকিৎসায় মৃত্যুর পথযাত্রী। সে আরও বলেন, আমার তিন ভাই পুলিশ বাহিনীতে কর্মরত রয়েছেন। তারা তাদের স্ত্রী-সন্তান নিয়ে কর্মস্থলের সুবাধে বিভিন্নস্থানে বসবাস করেন। তারা মায়ের কোন খোঁজ খবর নেয় না।

ঢাকা, সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // এস এ এই লেখাটি ২১৫২ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন