সর্বশেষ
বুধবার ৩০শে কার্তিক ১৪২৫ | ১৪ নভেম্বর ২০১৮

বৃষ্টিতে চট্টগ্রামের নিন্মাঞ্চল প্লাবিত, দুর্ভোগে নগরবাসী

শনিবার, অক্টোবর ২১, ২০১৭

434377727_1508588872.jpg
চট্টগ্রাম ব্যুরো :
বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিন্মচাপ থেকে তৈরি গভীর সঞ্চরণশীল মেঘমালার কারণে শুক্রবার সকাল থেকে শনিবার বিকেল পর্যন্ত অব্যাহত টানা বৃষ্টি ও বিরূপ আবহাওয়ায় নগরীর নিন্মাঞ্চল জলাবদ্ধতার ফলে হাঁটু থেকে কোমর পানির নিচে তলিয়ে গেছে। এতে সড়কে গণপরিবহন চলাচল কমে যাওয়ায় সৃষ্ট হয়েছে পরিবহন সংকট। ফলে বিভিন্ন শ্রেণির পেশা-শ্রমজীবী মানুষ ও নগরবাসী পড়েছে চরম দুর্ভোগে।

বৃষ্টিতে মুরাদপুর, দুইনম্বর গেইট, হামজারবাগ, মোহাম্মদপুর, শুলকবহর, হালিশহর, আগ্রাবাদ কে ব্লক, আগ্রাবাদ এসেস রোড, আগ্রাবাদ আবাসিক এলাকা, প্রবর্তক মোড়, কাপাসগোলা, বাদুরতলা, বহদ্দারহাট, কালুরঘাট, চকবাজারসহ নগরীর নিচু এলাকায় পানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। বিভিন্ন এলাকার সড়ক ছাপিয়ে বৃষ্টির পানি দোকানপাট-ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানেও ঢুকে পড়েছে।

এদিকে নগরীর ষোলশহর দুই নম্বর গেইট থেকে মুরাদপুর পর্যন্ত প্রধান সড়কে বৃষ্টির পানির কারণে যান চলাচল প্রায় বন্ধ রয়েছে। এতে জিইসি মোড়, আগ্রাবাদ, হালিশহর, ইপিজেড এলাকার অফিসগামীরা কর্মস্থলে যেতে পারেনি অনেকেই। একইভাবে সমস্যায় পড়েছেন বহদ্দারহাট ও কালুরঘাট এলাকায় অফিসগামী মানুষরা। এছাড়া রিকশা ও সিএনজি অটোরিকশাও সড়কে চলছে কম।

সুগন্ধা আবাসিক এলাকা থেকে হালিশহরে অফিসে যাওয়ার জন্য বের হয়েছেন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা মো. ওবায়দুর রহমান। তিনি বলেন, সকাল সাড়ে ৯ টায় বের হওয়ার পর দেখি রাস্তার উপর দিয়ে পানি থৈ থৈ করছে। রাস্তাগুলোতে পানি উঠে নদীতে পরিণত হয়েছে। গণপরিবহন একেবারে বন্ধ। তিনি বলেন, প্রায় ৩০ মিনিট অপেক্ষা করেও তিনি কোন যানবাহন পাননি। শেষ পর্যন্ত হেঁটে এসেছেন পাঁচলাইশ মোড় পর্যন্ত। এখানে এসেও কোন গাড়ী পাচ্ছিনা। গাড়ীর জন্য অপেক্ষা করছি।

চট্টগ্রাম আবহাওয়া অধিদপ্তরের ডিউটি অ্যাসিস্ট্যান্ট বিজন ধর বলেন, শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে শনিবার ৯টা পর্যন্ত মাত্র ৭ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। বৃষ্টিপাত কম হলেও আবহাওয়া গুমোট হয়ে আছে এবং থেমে থেমে বাতাসও বইছে। নিন্মচাপের কারণে এখনও তিন নম্বর সতর্ক সংকেত বহাল রয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস বলা হয়, শনিবারও দেশের বেশির ভাগ এলাকায় হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হতে পারে। আবার কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাতের আশঙ্কাও রয়েছে। উপকূলে ঝোড়ো হাওয়ার আশঙ্কায় চট্টগ্রাম, মংলা, পায়রা সমুদ্রবন্দর ও কক্সবাজারকে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত বহাল রাখা হয়েছে। এ ছাড়া নদীবন্দরগুলোতে ২ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে ও নৌযানগুলোকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। আগামীকাল রবিবার ভোর পর্যন্ত টানা বৃষ্টি অব্যাহত থাকতে পারে। এর মধ্যে ভারি থেকে অতিভারী বৃষ্টিও হতে পারে।

ঢাকা, শনিবার, অক্টোবর ২১, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // এস এইচ এই লেখাটি ১১৭ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন