সর্বশেষ
রবিবার ৮ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

‘ঠুমরির রানি’ গিরিজা দেবী আর নেই

বুধবার, অক্টোবর ২৫, ২০১৭

69341414_1508907636.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
উপমহাদেশের শাস্ত্রীয় সংগীতের প্রসিদ্ধ শিল্পী ‘ঠুমরির রানি’ বলে খ্যাত গিরিজা দেবী মারা গেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৮ বছর। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার রাত পৌনে ৯টার দিকে কলকাতার বিএম বিরলা হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্যজনিত নানা রোগেও ভুগছিলেন এই অশীতিপর সংগীতশিল্পী। বেনারস ও সেনিয়া ঘরানার এই কিংবদন্তি শিল্পী পরিচিত ছিলেন ধর্মশাস্ত্রীয় সংগীতের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং জনপ্রিয় ধারা অকৃত্রিম ভাবপ্রধান গীতি ঠুমরি’র রানি বলে।

হাসপাতালের একজন মুখপাত্র বলেন, ‘বিকেলে হাসপাতালে নিয়ে আসার সময় গিরিজা দেবীর অবস্থা খুবই সংকটাপন্ন ছিল। হাসপাতালে এনেই তাকে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) রাখা হয় এবং সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণ করা হয়। কিন্তু রাত পৌনে ৯টার দিকে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।’

১৯২৯ সালে ব্রিটিশ ভারতের বারানসিতে জন্মগ্রহণ করা গিরিজা দেবী প্রথমে খেয়াল ও টপ্পায় দীক্ষা নেন সংগীতশিল্পী ও সারেঙ্গিবাদক সারজুপ্রসাদ মিশ্রর কাছে। পরে তিনি আরো বিভিন্ন সংগীতরীতি রপ্ত করেন চাঁদ মিশ্রর কাছে।

গিরিজা দেবীর মৃত্যুতে ভারতসহ উপমহাদেশের সংগীতমহলে শোকের ছায়া নেমে আসে। তার মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিসহ সরকারের শীর্ষ কর্মকর্তারা।

পণ্ডিত রশিদ খান বলেন, ‘খুব দুঃখের বিষয়। ভীষণ ভালোবাসতেন। মায়ের মতো ছিলেন।’

গিরিজা দেবীর প্রয়াণে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গভীর শোক জানিয়েছেন। তার স্বজনদের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জানিয়ে মমতা টুইট করেন, ‘গিরিজা দেবীর মৃত্যু সংগীতজগতের বড় ক্ষতি। রাজ্যসরকার গিরিজা দেবীকে ২০১২ সালে সংগীত মহাসম্মান ও ২০১৫ সালে বঙ্গবিভূষণ সম্মাননা প্রদান করে।’

ওস্তাদ আমজাদ আলি খান মনে করেন, গিরিজা দেবীর মৃত্যুতে একটি অধ্যায়ের সমাপ্তি হলো। শোক জানিয়েছেন পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তী, ওস্তাদ রশিদ খানসহ আরও অনেকে। বাংলাদেশের সংগীতশিল্পীরাও শোক প্রকাশ করছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

ছয় দশকের বেশি সংগীতজীবনে গিরিজা দেবী পেয়েছেন অসংখ্য সম্মাননা ও পুরস্কার। এরমধ্যে ভারত সরকারের পদ্মশ্রী (১৯৭২), পদ্মভূষণ (১৯৮৯), পদ্মবিভূষণ (২০১৬), সংগীত নাটক একাডেমি পুরস্কার (১৯৭৭), সংগীত নাটক একাডেমি ফেলোশিপ (২০১০) ও মহাসংগীত সম্মান পুরস্কার (২০১২) উল্লেখযোগ্য। পৃথিবীর সাতটি বিশ্ববিদ্যালয় তাকে দিয়েছে সম্মানসূচক ডিলিট উপাধি। তার জীবন নিয়ে তৈরি হয়েছে প্রামাণ্যচিত্র গিরিজা।






ঢাকা, বুধবার, অক্টোবর ২৫, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ২৩০ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন