সর্বশেষ
সোমবার ৯ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ধরন অনুযায়ী যত্ন নিন প্রিয় শাড়ির

বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২৬, ২০১৭

625881639_1509002630.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
কাজের ব্যস্ততার মাঝে সময় পেয়েছেন তাই ভাবছেন শাড়ি পরে একটু ঘুরতে বের হবেন। কিন্তু হঠাৎই চোখে পড়ল শাড়িটা ভাঁজে ভাঁজে কেটে গেছে। তখন কি আর মন ভালো থাকে? অনেক দিন আলমারি খুলে বের করে পরা হয়নি শাড়িটা। সুন্দর করে ভাঁজ করে রাখার পরেও কেন এমন হলো? তবে একেক ধরনের শাড়ির যত্ন নিতে হবে একেকভাবে।

দেখা যায় ভালো ও দামি শাড়িগুলো কোনো উপলক্ষ ধরে পরা হয়। নয়তো ওঠানো থাকে আলমারিতে। তাই নির্দিষ্ট সময় পরপর শাড়ির যত্ন নিলে বছরের পর বছর নতুন রাখা যায়। এমনকি শাড়ির ভাঁজের ওপরও নির্ভর করে এর সৌন্দর্য। আমাদের দেশীয় ও ঐতিহ্যবাহী শাড়িগুলোর যত্ন নিতে হয় বিশেষভাবে।

সুতি শাড়ি :
সুতি শাড়ি ধোয়ার পর মাড় দিয়ে লন্ড্রি করে নিন। সুতি শাড়ি চাইলে ঘরেই পরিষ্কার করা যায়। ঠান্ডা কিংবা হালকা গরম পানিতে ডিটারজেন্ট মিশিয়ে তাতে আধা ঘণ্টা শাড়ি ভিজিয়ে রাখুন। তারপর ধুয়ে ফেলুন। রঙিন শাড়িতে গরম পানি না ব্যবহার করাই ভালো। তাতে শাড়ির উজ্জ্বলতা নষ্ট হয়ে যেতে পারে। সুতি শাড়ি ধোয়ার পর মাড় দিতে হবে। তাঁত ও টাঙ্গাইলের শাড়ি ড্রাইওয়াশ করাই ভালো হবে। তাঁত, টাঙ্গাইল বা সুতি ধরনের শাড়িগুলো সুন্দর করে ভাঁজ করে রাখলে তেমন কোনো সমস্যা হয় না।

জামদানি :
জামদানি শাড়ি অবশ্যই লন্ড্রিতে দিতে হয়। কাটা ওয়াশ পদ্ধতিতে জামদানি শাড়ি পরিষ্কার করা হয়। জামদানি শাড়ি ভাঁজ করে না রেখে হ্যাঙ্গারে ঝুলিয়ে রাখতে হবে। নইলে ভাঁজ করে রাখা জামদানি শাড়ি ভাঁজে ভাঁজে কেটে যায়। ঝুলিয়ে রাখলে তাতে বাতাসের চলাচল হয় বলে শাড়ি ভালো থাকে। এছাড়েও থান কাপড় পেঁচিয়ে রাখার রোলগুলোয় জামদানি শাড়ি পেঁচিয়ে রেখে দিলে তা অনেকদিন পর্যন্ত ভালো থাকে।

তবে রোল করা শাড়িটি এমনভাবে রাখতে হবে, যেন অন্য কোনো কিছুর চাপের ওপর না পড়ে। শাড়ি পরার পরে ঘামে অথবা বৃষ্টির পানি লাগলে বাসায় এসে ফ্যানের নিচে শুকিয়ে নিবেন। জামদানি শাড়ি আলাদা করে রোদে দেয়ার প্রয়োজন নেই।

সিল্ক শাড়ি :
রেশমি বা সিল্কের শাড়ি একটু সাবধানেই ব্যবহার করতে হয়। রেশমি শাড়ি ড্রাইওয়াশ করতে হবে। বেশিক্ষণ সিল্কের শাড়ি পানিতে ভিজিয়ে রাখবেন না। একবার পানিতে ভিজিয়ে সঙ্গে সঙ্গে তুলে ফেলুন। খুব জোরে কাপড় কাচবেন না। ব্রাশ দিয়ে পরিষ্কার করবেন না। শুকাতে দেয়ার সময় হালকা করে পানি ঝরিয়ে ছায়ায় শুকাতে দিন। এসব শাড়ি ভাঁজ না করে হ্যাঙ্গারে ঝুলিয়ে রাখতে হবে।

তবে ভারী কাজ কিংবা এমব্রয়ডারি করা শাড়ি হ্যাঙ্গারে না ঝুলিয়ে ভাঁজ করে রাখুন। সিল্কের শাড়ির মধ্যে ন্যাপথলিন বল রাখবেন না। এতে শাড়ি নষ্ট হতে পারে। এছাড়া কাপড়ে ন্যাপথলিনের গন্ধ রয়ে যাবে। তবে এর পরিবর্তে দারুচিনি, লবঙ্গ ব্যবহার করতে পারেন।

কাতান, বেনারসি :
কাতান ও বেনারসি শাড়ি পরিষ্কার করা হয় ক্যালেন্ডার ওয়াশ পদ্ধতিতে। যে দোকান থেকে কাতান বা বেনারসি শাড়ি কিনবেন, সেই দোকানে চাইলে পরিষ্কার করতে দিতে পারেন। কাতান-বেনারসি শাড়িগুলো হ্যাঙ্গারে ঝুলিয়ে রাখতে হয়। ভাজ করে রাখা যাবে না। তবে হ্যাঙ্গারে ঝুলিয়ে রাখলেও মাঝে একটা ভাঁজ পড়ে। সেটা কিছুদিন পরপর পাল্টে দিতে হবে ও একই ভাঁজে রাখা যাবে না। এসব শাড়ি কখনোই রোদে দেয়া যাবে না। রোদে দিলে শাড়ির উজ্জ্বলতা নষ্ট হয়ে যাবে।

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২৬, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ৩১৮ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন