সর্বশেষ
বুধবার ৭ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ২১ নভেম্বর ২০১৮

ফারুকির প্যাশন দেখে আমি মুগ্ধ: ইরফান খান

শুক্রবার, অক্টোবর ২৭, ২০১৭

1418769050_1509086234.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

প্রথমবারের মত বাংলা ছবিতে কাজ করেছেন বলিউড অভিনেতা ইরফান খান। বাংলাদেশের নামী পরিচালক মোস্তফা সরয়ার ফারুকির 'ডুব; নো বেড অব রোজ' ছবিতে কাজরে বিষয়ে এবং হলিউড, বলিউড নিয়ে কথা বলেছেন ওপার বাংলার জনপ্রিয় দৈনিকের সঙ্গে। তার সাক্ষাৎকারটি হুবহু তুলে ধরা হলো।

প্র: জাভেদ হাসানের চরিত্রটার জন্য কী ভাবে নিজেকে তৈরি করেছিলেন?

ইরফান: আমার কাছে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল বাংলায় কথা বলা। তার সঙ্গে বাংলাদেশি কথা বলার কায়দা রপ্ত করা। ভাষাটার জন্যই অনেকটা নিজেকে তৈরি করতে হয়েছে। বাকিটা তো আবেগনির্ভর।

প্র: এই চরিত্রটা করতে গিয়ে কোনও নতুন উপলদ্ধি?

ইরফান: ছবির মূল বিষয়টা কিন্তু চিরন্তন। একটি সম্পর্কে থেকে অন্য কারও প্রতি আকৃষ্ট হওয়া এবং পারস্পরিক সম্পর্কে জটিলতা তৈরি হওয়া। সম্পর্কের সমীকরণ যত না বেশি এলোমেলো হয়, সমাজের দৃষ্টিভঙ্গি বিষয়টাকে আরও জটিল করে তোলে।

প্র: মোস্তফা সারওয়ার ফারুকির সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা কেমন?

ইরফান: এই ছবিটা করার পিছনে একমাত্র কারণ ফারুকি। ওর একটা ছবি দেখেছিলাম, 'অ্যান্ট স্টোরি'। সেটা দেখেই স্থির করেছিলাম, ওর সঙ্গে কাজ করতেই হবে। ফারুকির সততা, এনার্জি, ছবি বানানোর প্যাশন দেখে আমি মুগ্ধ।

প্র: আপনি কি 'ডিরেক্টরস অ্যাক্টর'?

ইরফান: পরিচালকের একটা দৃষ্টিভঙ্গি থাকে গল্প বলার সময়ে। গল্পটাকে তার চেয়ে ভাল করে কেউ বোঝেন না। আমি সেটা অনুসরণেই বিশ্বাসী।

প্র: আপনি তো এই ছবির অন্যতম প্রযোজকও...

ইরফান: আমি ক্রিয়েটিভ প্রযোজক। এই ছবিতে বাংলাদেশের প্রযোজকও আছেন। দুটো দেশের প্রযোজক থাকলে, বিষয়টা একটু জটিল হয়ে যায়। আর এই ব্যাপারগুলো আমি এখনও শিখছি।

প্র: এই বছরে আপনি যে ছবিগুলো করেছেন, তাতে অভিনেত্রীরা কেউ পাকিস্তানি, কেউ বাংলাদেশি, কেউ বা মালয়ালি...

ইরফান: শিল্পীর কাছে এই অভিজ্ঞতাটা খুব দামি। বিভিন্ন দেশের মানুষকে কাছ থেকে দেখার সুযোগ, তাদের ভিন্ন ভিন্ন সংস্কৃতি জানার সুযোগ ব্যক্তি হিসেবেও আমাকে সমৃদ্ধ করেছে। আমিও যখন ট্র্যাভেল করি, এই অভিজ্ঞতাগুলো সঞ্চয় করার চেষ্টা করি।

প্র: ভারতীয় ছবির প্রতি পাশ্চাত্যের চিন্তাভাবনা কি আদৌ বদলাচ্ছে?

ইরফান: না, ভারতীয় ছবি বলতে এখনও সেই নাচ-গানের ছবিই বোঝানো হয়। আসলে কী জানেন, ভারতীয় প্রতিভা হলিউডে কাজ করছে। কিন্তু ভারতীয় ছবি এখনও সেখানে পৌঁছতে পারেনি। প্রতিভা কিন্তু দৃষ্টিভঙ্গি বদলাতে পারে না। অনেক বিদেশি কলাকুশলীও তো হিন্দি ছবিতে কাজ করেন। তাতে কি আমাদের চিন্তা-ভাবনায় খুব একটা বদল আসে? আর আমরা তো এখনও আন্তর্জাতিক দর্শকের জন্য ছবি বানাই না।

প্র: আপনি একবার বলেছিলেন, মিডিয়া আপনার ছবির সংজ্ঞা খুঁজে পায় না...

ইরফান: আমার কাছে ছবির কোনও ভেদাভেদ নেই। কমার্শিয়াল ছবি কি প্যারালাল  ছবি, এটা মিডিয়া বলে। আর আমি ছবির সংজ্ঞা খোঁজার চেষ্টাই করি না। দর্শক ছবি দেখবেন, আনন্দ পাবেন, সেটাই আমার প্রাপ্তি। আর সময়ই ছবির মূল্যায়ন করে, তার সংজ্ঞা নয়।


ঢাকা, শুক্রবার, অক্টোবর ২৭, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // কে এইচ এই লেখাটি ১৬৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন