সর্বশেষ
বৃহঃস্পতিবার ৫ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

শুধু ছবিতে নয়, টাইটানিক জাহাজেও ছিলেন সেই দম্পতি

সোমবার, ডিসেম্বর ৪, ২০১৭

646527389_1512379809.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
জেমস ক্যামেরন মানেই অসাধারণ আর ব্লকবাস্টার সব চলচ্চিত্র। ক্যামেরন নির্মিত সব চাইতে আলোচিত, বিখ্যাত আর নজরকাড়া ব্যয়বহুল সিনেমাগুলোর মধ্যে অন্যতম টাইটানিক। ১৯৯৭
সালে মুক্তি পাওয়া এই সিনেমার মূল গল্প গড়ে উঠেছিল টাইটানিক জাহাজকে কেন্দ্র করে। যার প্রথম যাত্রাতে আটলান্টিক সাগরের ঠান্ডা পানিতে ডুবে গিয়েছিল। খুব কম মানুষেরই ভাগ্য হয়েছিল অন্ধকার আর শীতল ভয়ের সেই রাতটাকে পেরিয়ে পরের দিনের ভোরের আলো দেখার।

রোজ আর জ্যাকের ভালোবাসার গল্পে বোনা জনপ্রিয় এই সিনেমাটির নাম শোনেননি এমন মানুষ খুব কমই পাওয়া যাবে। ১৯৯৭ সালে মুক্তি পাওয়া জেমস ক্যামেরুনের ওই ছবিতে এক বৃদ্ধ দম্পত্তিকে দেখানো হয়েছিলো। জাহাজ ডুবে যাওয়ার সময়ও বেরিয়ে আসেননি প্রথম শ্রেণির কেবিনে থাকা এই দুই জন। একে অপরকে আঁকড়ে ধরে মৃত্যুবরণ করেছিলেন। এবার সামনে এল তাদের আসল পরিচয়।

এই দম্পত্তিদের চরিত্র শুধু ছবির প্রয়োজনে নির্মিত নয়, বাস্তবেও এই দম্পত্তির অস্তিত্ব বাস্তবেও ছিল। মিরর ইউকে’র খবর অনুযায়ী, ওই দম্পতির নাম ইসিডর স্ত্রাউস এবং ইডা স্ত্রাউস। ১৮৭১-এ তাদের বিয়ে হয়। ‘টাইটানিক’ দুর্ঘটনার ঠিক ৪১ বছর আগে। আমেরিকায় একটি ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের অন্যতম মালিক ছিলেন ইসিডর। ফ্রান্সে ছুটি কাটিয়ে আমেরিকায় ফেরার পথে ওই দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, প্রথম শ্রেণির যাত্রী হওয়ার কারণে তারা লাইফবোটে ওঠার অধিকার পেতেন। মহিলা হওয়ার কারণে আগে সেই সুযোগ পেতেন ইডা। ইসিডও পেতেন। ইসিড নাকি আগে মহিলা ও শিশুদের যাওয়ার ব্যবস্থা করতে বলেছিলেন। তবে ইডা কোনোভাবেই লাইফবোটে উঠতে রাজি হননি।



মৃত্যু আসন্ন জেনে স্বামীকে ছেড়ে যেতে আর মন চায়নি। তাই একসঙ্গে মৃত্যুবরণ করতে চেয়েছিলেন। ইডার ইচ্ছেকে সম্মান জানিয়েছেন ইসিডর। সে সময় নাকি এক প্রত্যক্ষদর্শীরও খোঁজও পাওয়া গিয়েছিল। তিনি দুর্ঘটনার সময় ওই দম্পতিকে টাইটানিকের ডেকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখেছিলেন।



তারপরের কাহিনী সকলেরই জানা। ইসিডর-ইডার নাতির ছেলে পল কুর্জম্যান এই ঘটনার কথা জানিয়েছেন। ইসিডরের দেহও নাকি সমুদ্র থেকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছিল। তবে ইডার দেহ পাওয়া যায়নি।


ঢাকা, সোমবার, ডিসেম্বর ৪, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ৩৩৬ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন