সর্বশেষ
শনিবার ৩রা অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৭ নভেম্বর ২০১৮

কুয়ালালামপুরে বিজয় দিবস পালন

শনিবার, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৭

979854695_1513415968.jpg
প্রবাসী ডেস্ক :
নানা আয়োজনে মহান বিজয় দিবস পালন করেছে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে অবস্থিত বাংলাদেশ হাইকমিশন। এসবের মধ্যে ছিল-জাতীয় পতাকা উত্তোলন, দোয়া, নিরাবতা পালন, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

দিবসটি উপলক্ষে আজ শনিবার কুয়ালালামপুরের বাংলাদেশ দূতাবাস প্রাঙ্গনে স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে নয়টায় কর্মকর্তাদের নিয়ে পতাকা উত্তোলন করেন হাইকমিশনার মো. শহীদুল ইসলাম। এ সময় মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।  

পরে স্বাধীনতা যুদ্ধে নিহত বীর শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নিরাবতা পালন, দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন দূতাবাসের প্রশাসনিক কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন ভূইয়া।
 
দুপুরে অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে স্থানীয় রেনেসা হোটেলের বলরুমে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। শ্রম কাউন্সিলর সায়েদুল ইসলাম মুকুলের সঞ্চালনায় ও হাইকমিশনার শহীদুল ইসলামের সভাপতিত্বে এ সময় রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন যথাক্রমে হাইকমিশনের ডিফেন্স উইং প্রধান এয়ার কমোডর মো. হুমায়ূন কবির, দূতালয় প্রধান ওয়াহিদা বেগম, কমার্শিয়াল উইং প্রধান ধনঞ্জয় কুমার দাস ও দ্বিতীয় সচিব পলিটিক্যাল তাহমিনা ইয়াছমিন।  

সভাপতির বক্তব্যে হাইকমিশনার বলেন, স্বাধীনতার লাল সূর্য অর্জিত হয়েছিলো বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানে নেতৃত্বে। বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ আজ বিশ্বের বুকে মাথা উচু করে সামনের দিকে এগিয়ে চলেছে। দেশের ভাবমূর্তি উজ্জল করতে প্রবাসী বাংলাদেশিদের আরো  সচেতনভাবে চলার পরামর্শ দেন তিনি।      

সংক্ষিপ্ত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে কবিতা, গান ও নাচ পরিবেশন করেন হাইকমিশনের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও তাদের পরিবারের সদস্যরা।  পরে একে একে দেশাত্ববোধক গান ও গানের তালে তালে নাচ পরিবেশন করেন শিল্পীরা। বিশেষ আকর্ষণ হিসাবে ছিলো জয় ও পার্থিবের  গাওয়া স্বাধীনতা যুদ্ধকালীন সময়ে জর্জ হ্যারিসনের ‘বাংলাদেশ বাংলাদেশ হয়ার সো মিন পিপল আর ডায়িং ফাস্ট’ গানটি।

অনুষ্ঠানে দূতাবাসের ফার্স্ট সেক্রেটারি এম এস কে শাহীন, শ্রম শাখার প্রথম সচিব মো. হেদায়েতুল ইসলাম মণ্ডল, পাসপোর্ট ও ভিসা শাখার প্রথম সচিব মো. মশিউর রহমান তালুকদার, দ্বিতীয় সচিব শ্রম মো. ফরিদ আহমেদ, কল্যান সহকারী মোকছেদ আলীসহ দূতাবাসের অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত কমিটির সভাপতি মকবুল হোসেন মুকুল, সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান কামাল, সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির, মুক্তিযোদ্ধা শওকত হোসেন পান্না, যুবলীগের যুগ্ন-আহ্বায়ক আবু হানিফ, জহিরুল ইসলাম জহির, ব্রাউন সোহেল, শ্রমিকলীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম বাবুল, সহ-সভাপতি শাহ আলম হাওলাদার, স্বেচ্ছাসেবক লীগের ভারপ্রাপ্ত  সভাপতি শেখ জাহাঙ্গীর, সাধারন সম্পাদক মোনায়েম খানসহ অনেকে।  রিপোর্ট: মোস্তফা ইমরান রাজু, মালয়েশিয়া (কুয়ালালামপুর) থেকে।

ঢাকা, শনিবার, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // এস এ এই লেখাটি ৩৮৪ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন