সর্বশেষ
বুধবার ৩০শে কার্তিক ১৪২৫ | ১৪ নভেম্বর ২০১৮

পর্তুগাল দূতাবাসে বিজয় দিবস উদযাপন

রবিবার, ডিসেম্বর ১৭, ২০১৭

1400499992_1513481507.jpg
প্রবাসী ডেস্ক :
গৌরবময় ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস ও জাতির​​ জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণকে জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সংস্থা UNESCO কর্তৃক “Part of World’s Documentary Heritage” হিসেবে স্বীকৃতি প্রদানকে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করেছে বাংলাদেশ দূতাবাস পর্তুগাল।

প্রথম পর্বে স্থানীয় সময় সকাল ১২টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন, ১২টা ৩০ মিনিটে দূতাবাসের দ্বিতীয় সচিব হাসান আব্দুল্লাহর সঞ্চালনায় এক মিনিট নীরবতা পালন ও পবিত্র কোরআন পাঠের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়।

এরপর বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রদূতের নেতৃত্বে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান দূতাবাসের কর্মকর্তাবৃন্দ এবং পর্তুগাল আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।

এরপর রাষ্ট্রদূত মোঃ রুহুল আলম সিদ্দিকী আগত প্রবাসীদের মাঝে শুভেচ্ছা বক্তব্যর রাখেন এবং ১টায় বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণকে ইউনেস্কোর এই স্বীকৃতি উদযাপনের বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে এক আনন্দ শোভাযাত্রা র‍্যালির শুভ সূচনা করেন। এতে দূতাবাসের সকল কূটনীতিক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ, পর্তুগাল আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দসহ প্রবাসীরা যোগদান করেন।

দ্বিতীয় পর্বে বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত মোঃ রুহুল আলম সিদ্দিকী সভাপতিত্বে দূতাবাসের দ্বিতীয় সচিব হাসান আব্দুল্লাহর সঞ্চালনায় মহান বিজয় দিবসের আলোচনা সভার সূচনাতে একে একে পড়ে শুনানো হয় মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্র ও প্রতিমন্ত্রীর বানী।

আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন পর্তুগাল আওয়ামী লীগে, ছাএলীগের নেতৃবৃন্দ। বক্তরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ভাষণ, মহান মুক্তিযুদ্ধেরে চেতনা ও স্বাধীনতার প্রকৃত ইতিহাসকে তুলে ধরার ও নতুন প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার এ প্রয়াসের জন্য বাংলাদেশ দূতাবাসকে ধন্যবাদ জানান।  সেই সাথে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু সহ নিহত বাংলার শ্রেষ্ঠ বীর সন্তানদের গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে।

এই সময় রাষ্ট্রদূত রুহুল আলম সিদ্দিকী বলেন, বাঙালি জাতির জীবনে ১৯৭১ হচ্ছে সবচাইতে গুরুত্ব ও তাৎপর্যপূর্ণ। স্বাধীনতা সংগ্রামের চূড়ান্ত পরিণতির ঠিক প্রাক্কালে ৭ই মার্চ বঙ্গবন্ধুর সেই কালজয়ী ভাষণ 'এবারের সংগ্রাম, আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম, স্বাধীনতার সংগ্রাম'- সেই ভাষণই তথা বঙ্গবন্ধুর দিক নির্দেশনা ঠিক করে দিয়েছিলো আমাদের জাতির নিশ্চিত ঠিকানা, স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ।

তাই বাঙালি জাতি এবং বাংলাদেশ রাষ্ট্রের জীবনে ৭ই মার্চ এবং বঙ্গবন্ধুর সেই কালজয়ী ভাষণের গুরুত্ব অনেক। সেই চেতনার আলোকে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গঠনে ২০২১ সালের মধ্যে একটি মধ্যম আয়ের দেশ, আর ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত দেশ গড়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে সুখী, সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ গঠনে এগিয়ে আসার জন্য সকল প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রতি আহবান জানান ।

সবশেষে পর্তুগাল প্রবাসীদের আয়োজনে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

পর্তুগালের পোর্তো থেকে,
রনি মোহাম্মদ

ঢাকা, রবিবার, ডিসেম্বর ১৭, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ২৩৫ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন