সর্বশেষ
সোমবার ৯ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

‘সহনীয় ঘুষ’ নিয়ে মন্তব্যের জবাব দিলেন শিক্ষামন্ত্রী

বুধবার, ডিসেম্বর ২৭, ২০১৭

Capture_1.JPG
বিডিলাইভ ডেস্ক :

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, অতীত উদাহরণ তুলে ধরে তার দেয়া একটি বক্তব্য কতিপয় গণমাধ্যমে খণ্ডিতভাবে প্রকাশ হওয়ায় জনমনে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে। আর এই বিভ্রান্তির ওপর ভিত্তি করে কতিপয় বিশিষ্ট ব্যক্তি ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের মতামত জনমনে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে।

আজ বুধবার সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে শিক্ষামন্ত্রী এসব কথা বলেন। গত ২৪ ডিসেম্বর পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তরের প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ঘুষসংক্রান্ত একটি বক্তব্য দেন শিক্ষামন্ত্রী। সেটি নিয়ে এখন ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা চলছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় ইতিমধ্যে ব্যাখ্যা দিয়ে জানিয়েছে, আট বছর আগের উদাহরণ বলে শিক্ষামন্ত্রী বক্তব্যটি দিয়েছিলেন। কিন্তু অতীতের বক্তব্য বা তুলনাকে বর্তমানের কথা ধরে সংবাদ পরিবেশন করা হয়, যা বিভ্রান্তিকর।

আজ সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী বিস্তারিত ব্যাখ্যা দিলেন। শিক্ষামন্ত্রী বিশিষ্টজনদের উদ্দেশে বলেন, ‘সবিনয়ে বলতে চাই, সুদীর্ঘকাল ধরে আপনারা আমার সততার সংগ্রাম, নীতি, আদর্শ, দায়িত্ববোধ সম্পর্কে অবগত আছেন। গণমাধ্যমের খণ্ডিত ভিত্তিহীন সংবাদের ওপর ভিত্তি করে কোনো মন্তব্য করার আগে সরাসরি আমাকে প্রশ্ন করলে অনেক বেশি খুশি হতাম।’

আর সহনশীল মাত্রায় ঘুষ খাওয়ার কথার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াতের সময় ঘুষ এত বেশি পরিমাণে লেনদেন হত যে মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে গিয়েছিল। ফলে শিক্ষকরা বলতেন, ঘুষ খাবেন কিন্তু একটু সহনীয় হলে আমরা পরিবার নিয়ে খেয়ে পরে বেঁচে থাকতে পারি। সেই কথাই উদাহরণ হিসেবে এটা আমি বলেছিলাম। কিন্তু আমার সেই উদাহরণকে গণমাধ্যম খণ্ডিতভাবে তুলে ধরেছেন।’

এর মধ্যে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্যের ওপর ভিত্তি করে তার পদত্যাগ চায়। এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, তিনি আজ তার বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিয়েছেন। তাই এর বাইরে আজ তিনি কিছু বলতে চান না।


ঢাকা, বুধবার, ডিসেম্বর ২৭, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ৫৯৪ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন