সর্বশেষ
মঙ্গলবার ২৯শে কার্তিক ১৪২৫ | ১৩ নভেম্বর ২০১৮

৪২তম আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলা শুরু

বুধবার, জানুয়ারী ৩১, ২০১৮

9_0.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

উদ্বোধন হল ৪২তম কলকাতা আন্তর্জাতিক বই মেলার। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সল্টলেক সেন্ট্রাল পার্ক-এ পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির উপস্থিতিতে ঘণ্টা বাজিয়ে বই মেলার উদ্বোধন করেন প্রখ্যাত অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়।

আজ বুধবার বইমেলা সর্বসাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হবে। মেলা চলবে দুপুর ১২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত। মেলায় আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি পালন হবে শিশু উৎসব। ৮-১০ ফেব্রুয়ারি থাকছে কলকাতা লিটারেচার ফেস্টিভ্যাল।

এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন ভারতে নিযক্ত ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত আলেক্সজান্ডার জেইগলার, পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়, নগরায়নমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, বইমেলার আয়োজক পাবলিশার্স এন্ড বুকসেলার্স গিল্ড'র সাধারণ সম্পাদক ত্রিদিব চ্যাটার্জি, গিল্ডের সভাপতি শুধাংশু শেখর রায় প্রমুখ।

এবারের বইমেলা চলবে আগামী ১১ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত। বইমেলার এবারের থিম কান্ট্রি ফ্রান্স। স্বভাবতই মেলার কেন্দ্রবিন্দু থাকবে ১৪ হাজার বর্গফুট জুড়ে ফ্রান্সের প্যাভিলিয়ন।

ফ্রান্স ছাড়াও ইতালি, জাপান, বাংলাদেশ, আমেরিকা, ব্রিটেন, ফ্রান্স, ভিয়েতনাম, মেক্সিকো, ব্রাজিল একাধিক দেশ এবারের বই মেলায় অংশগ্রহণ করছে। মোট স্টলের সংখ্যা প্রায় ৬০০টি, এর মধ্যে ২০০টি লিটল ম্যাগ্যাজিনের স্টল।

এদিনই কলকাতা বইমেলায় এক বিশেষ অনুষ্ঠানে ফ্রান্স সরকারের সর্বোচ্চ নাগরিক সম্মান 'লিজেয়ঁ দ্য অনার' তুলে দেয়া হয় প্রখ্যাত অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে।

ফ্রান্সের পাশাপাশি এবার নজর থাকবে 'বাংলাদেশ প্যভিলিয়ন'র দিকেও। এবারে প্রায় সাড়ে তিন হাজার বর্গফুট জায়গাজুড়ে থাকছে 'বাংলাদেশ প্রাভিলিয়ন'। ঢাকার ঐতিহ্যবাহী ও সুপরিচিত 'আহসান মঞ্জিল'র আদলে নির্মিত হবে বাংলাদেশ প্যাভিলিয়ন। সরকার ও বেসরকারি মিলিয়ে মোট ৪২টি স্টল থাকবে, যার মধ্যে অন্যতম বাংলা একাডেমি, নজরুল ইন্সিটিউট, জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র, বাংলাদেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশন, বাংলাদেশ শিশু একাডেমী, চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তর, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘর।

বইমেলার উদ্বোধন করে মুখ্যমন্ত্রী জানান, প্রতি বছরই আমরা এই দিনটার জন্য অপেক্ষা করে থাকি। দুর্গাপূজা যেমন আমাদের হৃদয়-মন জুড়ে থাকে তেমনি বইও থাকে হৃদয় জুড়ে। যারা লেখক, সাহিত্যিক, প্রকাশক, বই প্রেমী-তারা অপেক্ষা করে থাকেন কখন বই মেলা আসবে।

মেলায় অংশগ্রহণকারী দেশগুলিকে অভিনন্দন জানিয়ে মমতা ব্যানার্জি বলেন, 'বাংলাদেশ থেকে শুরু করে জাপান, রাশিয়াসহ অনেক ভাল বন্ধু আছেন যারা এবারের বইমেলায় অংশগ্রহণ করেছে, তাদের জন্য অনেক অভিনন্দন।

মমতা জানান, বই হচ্ছে মনের জানালা। বই হচ্ছে হৃদয়ের গীতবিতান, শিক্ষার আলো, সভ্যতার আলো, সংস্কৃতির আলো, মানবিকতার আলো। বই আমাদের কুশমিত করে, আন্দোলিত করে, বিকশিত করে। বই আমাদের বেঁচে থাকার প্রেরণা জোগায়।

আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি কলকাতা আন্তর্জাতিক বইমেলায় উদযাপিত হবে ‘বাংলাদেশ দিবস’। এ উপলক্ষ্যে ওই বিশেষ দিনটিতে কলকাতাস্থ বাংলাদেশ ডেপুটি-হাইকমিশন 'বাংলাদেশের সাহিত্যে মুক্তিযুদ্ধ' শীর্ষক একটি সেমিনার আয়াজন করছে।

সেমিনারে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি, পশ্চিমবঙ্গের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, বাংলাদেশের নারী ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি এমপি, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য পঙ্কজ দেবনাথ এমপি।

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করবেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: ইব্রাহিম হোসেন খান। এছাড়া উদ্বোধনী বক্তব্য রাখবেন কলকাতাস্থ বাংলাদেশ ডেপুটি হাইকমিশনার তৌফিক হাসান।


ঢাকা, বুধবার, জানুয়ারী ৩১, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ৪২৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন