সর্বশেষ
সোমবার ৯ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ত্রিভুজ প্রেমের বলি কলেজ ছাত্র রওনক

মঙ্গলবার, মার্চ ৬, ২০১৮

13_0.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

ত্রিভুজ প্রেমের বলি হয়েছেন কলেজ ছাত্র রওনক হোসেন। গত ১ মার্চ শাখাঁরি বাজারের হোলি উৎসবে ছুরিকাঘাতে নিহত হন রওনক। এ ঘটনায় ছুরিকাঘাতকারী রিয়াদ আলম ফারহানসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টায় ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া এন্ড কমিউনিকেশন্স বিভাগের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান লালবাগ জোনের উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ ইব্রাহীম খান।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- রিয়াজ আলম ওরফে ফারহান, মোঃ ফাহিম আহম্মেদ ওরফে আব্রো, মোঃ ইয়াসিন আলী, মোঃ আল আমিন ওরফে ফারাবী খাঁন ও মোসাঃ লিজা আক্তার ওরফে মাইসা আলম। হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত একটি চাকু উদ্ধার করা হয়েছে।

আজ ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে উপ-পুলিশ কমিশনার রওনক হত্যা রহস্য উদঘাটন সম্পর্কে বলেন, মাইশা নামের একজন মেয়ের সাথে রওনক এর সম্পর্ক ছিল। রওনক উক্ত সম্পর্ক ছিন্ন করে তুহু নামক এক মেয়ের সাথে প্রেমের সম্পর্ক স্থাপন করে। তুহুকে অপর একজন ছেলেও পছন্দ করত। এ বিষয় নিয়ে ভিকটিম রওনকের সাথে ঐছেলের কথা কাটাকাটি ও উত্যক্ত বাক্য বিনিময়সহ ঘটনার সূত্রপাত হয়।

তুহুর প্রেমিক রওনকের উপর প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য হলি উৎসবকে বেছে নেয়। রওনককে হলি উৎসবে আনার জন্য মাইশাকে ব্যবহার করে ঐ ছেলে। গত ১ মার্চ ঐ ছেলে তার বন্ধুদের একটি গ্রুপ নিয়ে ঘটনার ৩০/৪০ মিনিট পূর্বে লক্ষীবাজার কেএফসি এর সামনে একত্রিত হয়ে প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য পরিকল্পনা করে।

পরিকল্পনা অনুযায়ী ৩/৪টি ছুরি সংগ্রহ করে। পরবর্তী সময়ে রওনক তার ৭/৮ জন বন্ধুসহ শনি মন্দিরের সামনে আসলে পূর্বের পরিকল্পনা অনুযায়ী ঘাতকরা রওনককে একপাশে ডেকে নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে তারা ইচ্ছাকৃতভাবে রওনকের সাথে বাকবিতন্ডায় লিপ্ত হয়। এসময় ১০/১৫ জন রওনককে এলোপাথারি চর থাপ্পর মারতে থাকে। এদের মধ্যে কয়েকজন ছেলে ছুরি দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করে। পরবর্তী সময় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার সময় রওনক মারা যায়।

তিনি আরো বলেন, হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত অন্যান্য ব্যক্তিদের সনাক্ত করা হয়েছে। তাদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। অচিরেই তাদের গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে।


ঢাকা, মঙ্গলবার, মার্চ ৬, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ৩৭৯৪ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন