সর্বশেষ
বুধবার ৩০শে কার্তিক ১৪২৫ | ১৪ নভেম্বর ২০১৮

পায়ের গোড়ালি ব্যথার কারণ ও করণীয়

রবিবার, মার্চ ১১, ২০১৮

pori-moni-daily-sun_3.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

গোড়ালির ব্যথাকে ইংরেজিতে ‘হিল পেইন’ বলে। গোড়ালির ব্যথা সাধারণত গোড়ালির নিচের দিকে অথবা গোড়ালির পেছন দিকে হয়। যদি আপনার গোড়ালির ব্যথা নিচের দিকে হয় তাহলে বুঝতে হবে এটার কারণ হলো প্লান্টার ফাসাইটিস।

হিল পেইন হলে পায়ের গোড়ালিতে ব্যথা বাড়ে, সকালবেলা ব্যথা বেশি থাকে এবং বেলা বাড়ার সাথে সাথে ব্যথা কিছুটা কমে; কখনো কখনো গোড়ালি শক্ত বলে মনে হয় এবং শক্ত জুতা ব্যবহার করলে ব্যথা বেড়ে যায়। গোড়ালি কখনো কখনো ফুলে যায়। আর পায়ের গোড়ালির পেছনের দিকে ব্যথা হয় সাধারণত অ্যাকিলিস টেনডিনাইটিস হলে। এই ব্যথা গোড়ালির হাড়ের সাথে যেখানে অ্যাকিলিস টেনডন মিশেছে সেখানে হয়।
 
ক্যালকেনিয়াম বা গোড়ালির হাড়ে এবং পায়ের তলার মাংসপেশিতে সমস্যা হলে সামান্য অথবা মারাত্মক ব্যথা হতে পারে। যেহেতু শরীরের সব চাপ পড়ে গোড়ালি ও পায়ের পাতার ওপর, তাই গোড়ালিতে ব্যথা হলে গোড়ালিতে ভর দিয়ে হাঁটাচলা করতে কিংবা কোনো কাজকর্ম করতে রোগী অসমর্থ হন। বিভিন্ন কারণে গোড়ালিতে ব্যথা হতে পারে।
 
# অ্যাকিলিস টেনডিনাইটিস। এ ক্ষেত্রে অ্যাকিলিস টেনডনে প্রদাহ জনিত কারণে ব্যথা হয়। ব্যথা বেশ তীব্র হয়।

# অ্যাকিলিস টেনডন রাপচার। এ ক্ষেত্রে অ্যাকিলিস টেনডেন ছিঁড়ে যায়।

# আঘাতজনিত কারণ। এ ক্ষেত্রে গোড়ালিতে আঘাত লাগলে ব্যথা অনুভূত হয়। হাড় ভাঙলে অথবা চাপ পড়লে ব্যথার সৃষ্টি হয়।

# হাড়ের টিউমার, বার্সাইটিস, ফাইব্রোমায়ালজিয়া, গোড়ালির হাড় ভাঙা, গাউট ইত্যাদি এবং গোড়ালির প্যাড ছিঁড়ে যাওয়া।

# হিল স্পার। দীর্ঘ দিন প্লান্টার ফাসাইটিস থাকলে ফাসা টিস্যু ব্যান্ড যেখানে আপনার হিল বোনের বা গোড়ালির হাড়ের সাথে সংযুক্ত হয়, সেখানে হিলস্পার (ক্যালসিয়াম জমা হওয়া) গঠন হতে পারে। আপনার হাড়ের উদ্ভেদ দেখার জন্য এক্স-রে করা যেতে পারে। উদ্ভেদ বা প্রকটন বিভিন্ন মাপের হতে পারে।

# প্লান্টার ফাসাইটিস। এটি গোড়ালির বিশেষ ধরণের বাত। বেশি দৌঁড়ালে বা লাফঝাঁপ দিলে টিস্যু ব্যান্ড বা ফাসার (এটি গোড়ালির হাড় থেকে পায়ের আঙুলের গোড়া পর্যন্ত বিস্তৃত) প্রদাহ হতে পারে। রিউমাটয়েড আর্থ্রাইটিস, স্ট্রেস ফ্রাকচার এবং টারসাল টানেল সিনড্রোম।
 
নিচের যে উপসর্গগুলো অনুভূত হলে দ্রুত ডাক্তারের শরণাপন্ন হবেন-
 ১.আপনার গোড়ালির আশপাশে তীব্র ব্যথা হলে ও ফুলে গেলে।
২.যদি আপনি আপনার পায়ের পাতা বাঁকা করে নিচের দিকে নামাতে না পারেন, পায়ের আঙুল ওঠাতে না পারেন কিংবা ভালোভাবে হাঁটতে না পারেন।
৩.যদি আপনার গোড়ালির ব্যথার সাথে জ্বর থাকে, গোড়ালি অবশ হয়ে যায় কিংবা ঝিনঝিন করে।
 
এই সমস্যা দেখা দিলে পূর্ণ বিশ্রামে থাকবেন এবং কিছু ব্যায়াম করবেন এবং ব্যথানাশক ওষুধ খাবেন। পেছনে খোলা- এমন জুতা পরবেন। নিচু হিলের (৩/র্৮র্  অথবা ১/র্২র্ ) জুতা পরবেন এবং প্রদাহ কমাতে আপনার গোড়ালির পেছনে বরফ দেবেন।


ঢাকা, রবিবার, মার্চ ১১, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ১২৯৯ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন