সর্বশেষ
রবিবার ১৭ই কার্তিক ১৪২৭ | ০১ নভেম্বর ২০২০

জাবি শিক্ষকের অনৈতিক কর্মকাণ্ড: বিচার দাবি করায় পরীক্ষা বন্ধ

সোমবার, মার্চ ১২, ২০১৮

pori-moni-daily-sun_6.jpg
জাবি প্রতিনিধি :

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগের এক ছাত্রীকে অনৈতিকভাবে প্রথম বানানোর ঘটনায় খাতা পূর্ণমূল্যায়ন ও জড়িতদের বিচার দাবি করায় বিভাগে চরম উত্তেজনা শুরু হয়েছে। ঘটনা ধামাচাপা দিয়ে অভিযোগকারী শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ দায়ের করার জন্য সাধারণ শিক্ষার্থীদের চাপ দেয়ার হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এদিকে গতকাল রোববার বিভাগে উত্তেজনা তৈরি করে ৪৪ তম ব্যাচের তৃতীয় বর্ষ ফাইনাল পরীক্ষা স্থগিত করেছেন তারা। পরীক্ষা বন্ধের পর সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর চাপ সৃষ্টি করতে অন্যান্য ব্যাচেরও ক্লাস-পরীক্ষা না নেয়ার হুমকি দিয়েছেন অভিযুক্ত দুই শিক্ষক।

জানা যায়, সোমবার সাড়ে ১২ টায় পরীক্ষা শুরুর মাত্র ২০ মিনিট আগে বিভাগে উচ্চ-বাচ্য ও অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করে পরীক্ষা স্থগিত করতে বাধ্য করান তারা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক শিক্ষার্থী বলেন, পূর্ব নোটিশ ছাড়া পরীক্ষা বন্ধ করা হয়েছে। স্নাতকোত্তরের ফলাফল পূর্ণমূল্যায়নের দাবিকারী শিক্ষার্থীদের দাবি মিথ্যা ও তাদের বিরুদ্ধে আন্দোলনের জন্য অন্যান্য শিক্ষার্থীদের চাপ দিতেই এটি করা হয়েছে। পরে গতকাল বিকালে শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগকারী শিক্ষার্থীদের বিভাগে ডেকে এনে অভিযোগপত্র প্রত্যাহার করতে স্বাক্ষর করতে বাধ্য করা হয়।

পরীক্ষা স্থগিতের বিষয়ে জানতে চাইলে পরীক্ষা কমিটির সভাপতি সহযোগী অধ্যাপক ফারহানা আফরোজ জানান, ‘বিভাগের শিক্ষকদের মধ্যে অস্থিতিশীল পরিবেশ থাকায় পরীক্ষা বন্ধ করা হয়েছে।’

এ বিষয়ে বিভাগের সভাপতি ড. জেবউননেছা বলেন, ‘স্নাতকোত্তরের ফলাফলে অনৈতিকতার অভিযোগ উঠায় বিভাগে জরুরি সভা ডাকা হয়েছে। তাই ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ করা হয়।’

প্রসঙ্গত, বিভাগের ৪১ তম ব্যাচের স্নাতকোত্তরে অনৈতিক উপায়ে এক ছাত্রীকে প্রথম বানানোর অভিযোগ ওঠে পরীক্ষা কমিটির সভাপতি মো. নুরুল আমিন ও বিভাগের সাবকে সভাপতি ড. ছায়েদুর রহমানের বিরুদ্ধে। ওই ঘটনার বিচার ও পরীক্ষার খাতা পূর্ণমূল্যায়নের দাবিতে ভিসি বরাবর আবেদন করেছে শিক্ষার্থীরা।


ঢাকা, সোমবার, মার্চ ১২, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ১০১৯ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন