সর্বশেষ
বৃহঃস্পতিবার ৫ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

সিরাজগঞ্জে রসুনের বাম্পার ফলন, দাম নিয়ে বিপাকে কৃষক

বুধবার, মার্চ ২১, ২০১৮

pori-moni-daily-sun_3.jpg
সোহেল রানা সোহাগ, সিরাজগঞ্জ থেকে :

সিরাজগঞ্জের চলনবিলে এ বছর রসুনের বাম্পার ফলন হলেও দাম নিয়ে বিপাকে কৃষকেরা। ফলন ভালও হলেও বাজারে রসুনের দাম কম হওয়ায় রসুন চাষে এ বছর লোকসান গুনতে হতে পারে চলনবিলের কৃষকদের।

সরেজমিনে বুধবার বিকেলে চলনবিলের তাড়াশ উপজেলার, রকুশাবাড়ী, নাদোসৈয়দপুর, ধামাইচ, সবুজপাড়া, চরহামকুরিয়া, বিন্নাবাড়ী, হামকুড়িয়া, মাগুড়াবিনোদ এলাকাসহ বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে দেখা যায়, জমি থেকে বিনা চাষে লাগানো রসুন তুলতে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষক-কৃষানীরা। তবে এ বছর রসুনে ফলন বাম্পার হলেও বিক্রয় করতে গিয়ে ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন কৃষকেরা।

গত বছর (২০১৭) সালে চলনবিলের কৃষকেরা প্রতিবিঘায় ৩৫-৪০ মন করে রসুনের ফলন পেয়ে তা বাজারে বিক্রয় করেছেন প্রতিমন ২০০০ থেকে ২৬০০ টাকা পর্যন্ত। তবে এ বছর (২০১৮) ফলন ৩০ থেকে ৩৫ মন হলেও দাম গত বছরের চেয়ে মুন প্রতি প্রায় ২ হাজার টাকা কম মূল্যে বিক্রয় করতে হচ্ছে।

চলনবিলের তাড়াশ উপজেলা কৃষি অধিদপ্তরের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, উপজেলায় গত বছর রসুনের চাষ হয়েছিল ৫৭৫ হেক্টর আর এবছর হয়েছে ৫০০ হেক্টর যা গত বছরের তুলনায় ৭৫ হেক্টর কম। চলনবিলের হাট-বাজারগুলো এখন রসুনের বিক্রেতা ও পাইকার দিয়ে ছেয়ে গেছে। রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন শহর থেকে বড় বড় রসুনের পাইকারের উপস্থিতিতে হাটগুলো যেন প্রাণ ফিরে পেয়েছে।

তাড়াশ উপজেলার নাদোসৈয়দপুর গ্রামের কৃষক মো.মোসলেম উদ্দিন বলেন, আমি আমার পাঁচ বিঘা জমিতে রসুন চাষ করেছি। ফলন ভালো পেয়েছি। তবে দামটা অনেক কম।

চরহামকুরিয়া গ্রামের রসুন চাষী আব্দুল মজিদ বলেন, অল্প জমিতে রসুন চাষ করেছি তবে বাজারে রসুনের দাম একেবারেই কম। বাজারে রসুনের দাম এমন থাকলে অনেক লোকসান গুনতে হবে।

রসুনের বাজার দরের বিষয়ে চাসকৈড় বাজারের মের্সাস আনিস বানিজ্যালয় এর পরিচালক মো.আনিসুর রহমান বলেন, এ বছর রসুনের দাম নাই বললেই চলে। এ বছর প্রতি মণ ভালো রসুন ৬০০ থেকে ৬৫০ টাকা দরে কিনছি। আর রসুনের মান একটু খারাপ হলে ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকা দরে কিনছি। তবে কিছুদিনের মধ্যে দাম বাড়তেও পারে।

এ ব্যাপারে তাড়াশ উপজেলা কৃষি অফিসার কৃবিদ সাইফুল ইসলাম বলেন, তাড়াশ উপজেলায় এ বছর রসুনের ফলন অনেক ভালো হয়েছে। তবে দাম সঠিক পাচ্ছে না কৃষকেরা।


ঢাকা, বুধবার, মার্চ ২১, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ৮১৬ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন