সর্বশেষ
বুধবার ৮ই কার্তিক ১৪২৬ | ২৩ অক্টোবর ২০১৯

পঁচাত্তর পরবর্তী সময়ে বঙ্গবন্ধুকে কোটিবার হত্যা করা হয়: নোবিপ্রবি উপাচার্য

সোমবার, মার্চ ২৬, ২০১৮

vkkk.jpg
নোবিপ্রবি প্রতিনিধি :

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান বলেছেন, ১৯৭৫ সালের পর স্বাধীন বাংলাদেশে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে কোটি কোটিবার হত্যা করা হয়েছিলো। রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে সমস্ত প্রচারযন্ত্রে তার নামে মিথ্যাচার করা হয়, শহীদদের বুকের তাজা রক্তে রঞ্জিত সংবিধান ও বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাকে বেয়োনটের খোঁচায় ক্ষতবিক্ষত করা হয়।

মহান স্বাধীনতা দিবস ২০১৮ উদযাপন উপলক্ষে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (নোবিপ্রবি) আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধ, মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ এ তিনটি শব্দ একে অপরের সঙ্গে ওতপ্রতোভাবে জড়িত। তাই বাংলাদেশের আরেক নাম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ও কাঙ্খিত স্বাধীনতার চেতনাকে নস্যাৎ করার চেষ্টা হয়েছিলো এদেশে, বাঙালি জাতিয়তাবাদের পরিবর্তে পাকিস্তানি জাতিয়তাবাদ চালু করা হয়।

উপাচার্য তার বক্তব্যে বলেন, ’পৃথিবীর ইতিহাসে বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জন একটি বিস্ময়কর ঘটনা’, একটি পরিকল্পিত রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ এবং ছয় লাখ মা- বোনের সম্ভ্রম হারানোর মাধ্যমে বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করে। একজন অসীম প্রজ্ঞাবান ও গণমানুষের নেতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের নেতৃত্বে সমগ্র জাতি মহান মুক্তিসংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়ে। এসময় তিনি ২৬ মার্চের ঐতিহাসিক চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে একজন নিবেদিতপ্রাণ দেশকর্মী হিসেবে নোবিপ্রবি পরিবারের সকলকে দেশরত্ন শেখ হাসিনার সরকারের হাতকে শক্তিশালি করে দেশসেবায় ব্রতী হওয়ার আহ্বান জানান।

আজ (২৬ মার্চ) বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজি মো. ইদ্রিস অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মাঝে বক্তৃতা করেন উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. আবুল হোসেন, প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন ড. মোহাম্মদ হুমায়ূন কবীর, মানবিক ও সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সৈয়্যদ আতিকুল ইসলাম, শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. আবদুল্লাহ আল মামুন, রেজিস্ট্রার প্রফেসর মো. মমিনুল হক, অফিসার্স এসোসিয়েশন এর সভাপতি ডা. মো. মোখলেস-উজ-জামান, নোবিপ্রবি’র ছাত্রলীগ সভাপতি শফিকুল ইসলাম রবিন ও নোবিপ্রবি’র রসায়ন বিভাগের ছাত্র সেলিম রেজা প্রমুখ। সভা সঞ্চালনা করেন ছাত্র পরামর্শ ও নিদের্শনা পরিচালক জনাব আফসানা মৌসুমী।

দিনব্যাপী নানা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে স্বাধীনতা দিবস পালন করে নোবিপ্রবি পরিবার। বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানমালার মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিল- সমবেত জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মাধ্যমে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, র‌্যালি, উপাচার্য মহোদয়ের পুষ্পস্তবক অর্পণ, প্রীতি ম্যাচ ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ, ইনস্টিটিউট, হল ও ছাত্রফোরামগুলো ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এছাড়া দিবস উদযাপনে বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ ভোজ ও অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করে।

এদিন সোমবার সকাল ৯টায় দিনের প্রথমভাগে নোবিপ্রবি পরিবারে সকল শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের অংশগ্রহণে বিশ্ববিদ্যালয়ের গোল চত্ত্বরে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি ভাস্কর্যের সামনে সমবেত জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মাধ্যমে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামানের নেতৃত্বে সকলের অংশগ্রহণে স্বাধীনতা দিবসের র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালিটি প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ও পরিষদের পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শেষ হয়।

র‌্যালি ও পুষ্পস্তবক অর্পন অনুষ্ঠানে উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. আবুল হোসেন, অনুষদসমুহের ডিন, রেজিস্ট্রার, ইনস্টিটিউট ও দপ্তরসমুহের পরিচালক, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যানবৃন্দ, হলের প্রভোস্টবৃন্দ, প্রক্টর, শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ ও স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের আহ্বায়কবৃন্দ, নোবিপ্রবি অফিসার্স এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ এবং ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে নোবিপ্রবি পরিবারের ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দের জন্য আয়োজিত ফুটবল, ক্রিকেট ও ভলিবলসহ নানা ইভেন্ট কেন্দ্রিক “প্রীতি ম্যাচ’ এর উদ্বোধন ও বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান।


ঢাকা, সোমবার, মার্চ ২৬, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ৫৯৫ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন