সর্বশেষ
বৃহঃস্পতিবার ৮ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ২২ নভেম্বর ২০১৮

মালদ্বীপে বাংলাদেশ দূতাবাস কর্তৃক যথাযথ মর্যাদায় স্বাধীনতা দিবস পালিত

বৃহস্পতিবার, মার্চ ২৯, ২০১৮

ffff.jpg ছবি উৎস : বিডিলাইভ২৪
প্রবাসী ডেস্ক :

মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস ২০১৮ যথাযোগ্য মর্যাদায় এবং উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ দূতাবাস মালে, মালদ্বীপে উদযাপন করা হয়।

এ উপলক্ষে রাষ্ট্রদূত রিয়ার এডমিরাল আখতার হাবীব ২৬ মার্চ সকাল ৭.৩০ ঘটিকায় চ্যান্সারি ভবনে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। দূতাবাসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ তাদের পরিবারের সদস্যগণ এবং প্রবাসী বাংলাদেশীগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয় পতাকা উত্তোলনের পর চ্যান্সারী ভবনে জাতীয় সংগীতে সকলে একসঙ্গে অংশগ্রহণ করেন। দূতাবাসের কর্মকর্তা, কর্মচারী, তাঁদের পরিবারের সদস্যগণ, প্রবাসী বাংলাদেশীগণ একযোগে জাতীয় সংগীত পরিবেশনে অংশগ্রহণ করেন। এরপর মহামান্য রাষ্ট্রপতি এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়। রাষ্ট্রদূত মহোদয় তার বক্তব্যে দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে বঙ্গবন্ধু এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা শীর্ষক এক আলোচনার সূত্রপাত করেন এবং প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়।

আলোচনা সভায় মালদ্বীপে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশীদের প্রতিনিধিবৃন্দ, স্থানীয় অতিথিবৃন্দ এবং দূতাবাসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ ও তাঁদের পরিবারের সদস্যগণ উপস্থিত ছিলেন।

স্বাধীনতা দিবসের দ্বিতীয় ধাপে ছিল সাংস্কৃতিক ও আলোচনা অনুষ্ঠান। রাজধানী মালের স্থানীয় একটি স্কুলে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের প্রথমেই ছিল কোরআন তেলাওয়াত এরপর দু দেশের জাতীয় সংগীত এর মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত মহোদয় তাঁর বক্তব্যে মহান স্বাধীনতার মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অপরিসীম অবদানের কথা গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন। ৩০ লক্ষাধিক শহীদের আত্মত্যাগ এবং ১০ লক্ষাধিক মা ও বোনের সম্ভ্রমহানীর বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের কথা তিনি ও অন্যান্য বক্তারা বিনম্র শ্রদ্ধাসহকারে স্মরণ করেন। বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য উত্তরসূরি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক দেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নে গৃহীত পদক্ষেপ এবং অর্জনের উপর মান্যবর রাষ্ট্রদূত তাঁর বক্তব্যে আলোকপাত করেন।

রাষ্ট্রদূত বলেন আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে রোল মডেল। তিনি বলেন, ২০২১ সালের আগেই বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হবে। তিনি বলেন, বাংলাদেশকে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলায় পরিণত করতে সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে।


Photo

অনষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মালদ্বীপ সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। আরো উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূতগণ, মালদ্বীপ ডিফেন্স এর চীফ, প্রবাসী বাংলাদেশীগণ, মালদ্বীপের বিভিন্ন ব্যবসায়ী, মালদ্বীপে জাতিসংঘের প্রতিনিধি, প্রবাসী ডাক্তারসহ আরো অনেকে। আলোচনা সভার পরে জমকালো এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান  এবং বাচ্চাদের নিয়ে ফ্যাশন শো এর আয়োজন করা হয়। অবশেষে নৈশভোজের মাধ্যামে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।

আল মামুন, মালদ্বীপ থেকে


ঢাকা, বৃহস্পতিবার, মার্চ ২৯, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ৩২৯ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন