সর্বশেষ
বৃহঃস্পতিবার ১লা অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৫ নভেম্বর ২০১৮

স্কিন ক্যান্সারের লক্ষণ ও প্রতিকার

বুধবার, এপ্রিল ৪, ২০১৮

NID-0000000000005821.jpg
বিডিলাইভ রিপোর্ট :

স্কিন ক্যান্সার হল এক ধরনের ম্যালিগন্যান্ট টিউমার যা ত্বকে হয়। শরীরের যেসব অংশ উন্মুক্ত থাকে যেমন মুখ, গলা, হাত, পিঠ ইত্যাদি অংশে সাধারণত এই ক্যান্সার দেখা দেয়।

সাধারণত ৩০-৫১ বছর বয়সে এই ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি বেশি। শ্বেত বর্ণের অধিকারীদের এই ক্যান্সার বেশি হয়।

 

স্কিন ক্যান্সারের লক্ষণ

১. চামড়ার উপরিভাগ খসখসে হয়ে উঠে যেতে পারে। অনেক ক্ষেত্রে তরল জাতীয় কিছুর নির্গমন হতে পারে।

২. ত্বকে বিভিন্ন বর্ণের সংমিশ্রণ দেখা দেয় যেমন- বাদামি, কালো, লাল, সাদা, নীল ইত্যাদি।

৩. শরীরের উপরিভাগের ত্বকে এডিমা বা তেলশূন্যতা দেখা দিতে পারে।

৪. অস্বাভাবিক অনুভূতি যেমন- চুলকানি, জ্বালাপোড়া ইত্যাদি দেখা দিতে পারে।

স্কিন ক্যান্সার হয়েছে কিনা যেভাবে নিশ্চিত হবেন

১. হাতের করতল, আঙ্গুল, বাহু ইত্যাদির চামড়া পরীক্ষা করতে কনুই ভাঁজ করে নিজেই দেখতে হবে যে উপরের কোনো লক্ষণ দেখা যায় কিনা।

২. শরীরের বহির্ভাগ যেমন- মুখ, গলা, বুক, পেট ইত্যাদির ত্বক পরীক্ষা করা।

৩. আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে শরীরের পেছনের অংশের চামড়াও পরীক্ষা করতে হবে। এক্ষেত্রে অন্য কারো সাহায্য নেয়া যেতে পারে।

৫. চিরুনি দিয়ে আঁচড়াবার সময় লক্ষ করতে হবে মাথার ত্বকে অস্বাভাবিক কোনো কিছু অনুভূত হয় কিনা।

৬. পা, পায়ের পাতা, আঙুল ইত্যাদিও পরীক্ষা করতে হবে। ত্বকে অস্বাভাবিক কোনকিছু লক্ষ করা মাত্রই চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে।

স্কিন ক্যান্সারের চিকিৎসা

১. স্কিন ক্যান্সারের ক্ষেত্রে সবচেয়ে কার্যকরী চিকিৎসা হল সার্জারি। সার্জারির মাধ্যমে ক্যান্সার কোষ অপসারণ করলে ভালো ফল পাওয়া যায়।

২. কেমোথেরাপিও স্কিন ক্যান্সারের ক্ষেত্রে অন্যতম চিকিৎসা ব্যবস্থা।

৩. দুর্বলতাজনিত কারণে যেসব রোগীদের সার্জারি করা সম্ভব হয় না তাদের ক্ষেত্রে রেডিও থেরাপি হল বিকল্প ব্যবস্থা। রেডিও থেরাপি দেওয়ার ক্ষেত্রে শরীরের স্বাভাবিক টিস্যুগুলো যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সেটা নিশ্চিত করতে হবে।

৪. সূক্ষ্ম আক্রমণকারী থেরাপি দেওয়া হয়। এটি ট্র্যাডিশনাল সার্জারি এবং কেমোথেরাপির ঘাটতিগুলো পূরণ করে। এই থেরাপি ক্যান্সার কোষ ধ্বংস করার পাশাপাশি শরীরের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতাকেও বাড়িয়ে দেয় এবং পুনরায় ক্যান্সার ফিরে আসাকে প্রতিরোধ করে। এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হল এটি সার্জারির জটিলতা মুক্ত এবং কোনো ধরনের রক্তপাত নেই।


ঢাকা, বুধবার, এপ্রিল ৪, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ৩১২৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন