সর্বশেষ
শনিবার ৭ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বিশ্বের সবচেয়ে দামি মোটরসাইকেল আনলো হার্লে ডেভিডসন

শনিবার, মে ১৯, ২০১৮

bike-600x371.jpg
বিডিলাইভ রিপোর্ট :

বিশ্বের সবচেয়ে দামি বাইক বাজারে আনল মার্কিন মোটরসাইকেল নির্মাতা হার্লে–ডেভিডসন।  বিশ্ব বাজারে বাইকটির দাম ১ দশমিক ৭৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। ভারতীয় মুদ্রায় এর দাম ১২ কোটি ২০ লাখ টাকা।

গত ৯ মে সুইজারল্যান্ডের জুরিখে এক অনুষ্ঠানে ব্লু-এডিশনকে প্রকাশ্যে আনল প্রতিষ্ঠানটি।

হার্লে-ডেভিডসনের ব্লু-এডিশন ভার্সন এই বাইকটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘সফ্টটেল স্লিম এস’। সুইজারল্যান্ডের বিখ্যাত গয়না ও ঘড়ি প্রস্তুতকারক সংস্থা ‘বুশারার’ এবং বাইক প্রস্তুতকারক সংস্থা ‘বান্ডানারবাইক’-এর যৌথ উদ্যোগে বাইকটি তৈরি করা হয়েছে।

দুই সংস্থার মোট আটজন বিশেষজ্ঞ এক বছর ধরে ২৫০০ ঘণ্টা নানা গবেষণা, পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে বাইকটির ডিজাইন তৈরি করেছেন।

এতদিন পর্যন্ত বিশ্বের সবচেয়ে দামি বাইক ছিল ১৯৫১ ভিনসেন্ট ব্ল্যাক লাইটনিং-এর দখলে। এ বছরের গোড়ায় নিলামে বাইকটির দাম ওঠে ৯ লাখ ২৯ হাজার ডলার, যা ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৬ কোটি টাকা।

‘সফ্টটেল স্লিম এস’ বাইকটি সাজাতে ৩৬০টি হিরে ব্যবহার করা হয়েছে। বাইকে যে স্ক্রুগুলো ব্যবহার করা হয়েছে সেগুলো সবই সোনার। ছ’টি স্তরে রঙের কোটিং দেওয়া হয়েছে বাইকটিতে।

হার্লে-ডেভিডসনের ব্লু-এডিশনের অন্যতম একটি বিশেষত্ব হচ্ছে, এর ফুয়েল ট্যাঙ্কের ডান পাশে একটি ঘড়ি লাগানো হয়েছে। গাড়ির ইঞ্জিনের কম্পন থেকে ঘড়িকে বাঁচাতে ট্যাঙ্কের উপর একটি বিশেষ খাঁচা তৈরি করা হয়েছে। ঘড়িটিকে ধরে রাখার জন্য সিলিকন রিং দিয়ে বিশেষ হোল্ডার তৈরি করা হয়েছে। বাইকটি অনেক দিন না চালালেও ঘড়িটি বন্ধ হবে না, কেননা ওই হোল্ডারটি ঘড়িটিকে সচল রাখবে।

ফুয়েল ট্যাঙ্কের ডান পাশে ৫ দশমিক ৪ ক্যারেটের ডায়মন্ড রিং লাগানো হয়েছে। ফুয়েল ট্যাঙ্কের এক পাশে ঘড়ি এবং অন্য পাশে হিরেখচিত রিং এবং তার থেকে ঠিকরে বেরিয়ে আসা আলো গাড়ির শোভা বহুগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে।


ঢাকা, শনিবার, মে ১৯, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ২২৪৮ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন