সর্বশেষ
বুধবার ৭ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ২১ নভেম্বর ২০১৮

যে উপায়ে নিজেকে রাখবেন একেবারে স্ট্রেস ফ্রি

বুধবার, মে ২৩, ২০১৮

61EDg1EZJaL._SL1296__4.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

সারাদিন নানা রকম কাজ, দৈনন্দিন জীবনের নানান ঝামেলা আমাদের মস্তিষ্কে এক ধরনের চাপ তৈরি করে। তখন কিছু করতেই আর ভালো লাগে না। ভালো কিছু ঘটলেও মনের বিরক্তি যেন ছায়া ফেলে আড়াল করে দেয় সব সৌন্দর্য।

কাজের সময়ে আমরা কী কাজ করছি সে বিষয়টি খেয়াল থাকছে না। যা অবশ্যই একটি সমস্যা। সময় প্রতিযোগিতার বাজারে বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই গবেষণা শুরু হয়ে গেছে। ফল হিসেবে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, বিগত কয়েক দশক ধরে মানুষের কাজের প্রতি ইচ্ছাশক্তি হ্রাস পেয়েছে।

# মানসিক সক্রিয়তা এক্ষেত্রে উপহারের সমান। কাজের ক্ষেত্রে পূর্ণ মনোযোগ আপনার পারফর্মেন্সকে পরিণত করতে সাহায্য করবে। যা অবশ্যই একটি ইতিবাচক দিক। তাই, কর্মক্ষেত্রে মনোযোগই হল সেই চাবি যা দিয়ে আপনি সহজেই খুলতে পারেন সফলতার দরজা।

# কাজের ক্ষেত্রে লক্ষ্যবিন্দুকে স্থির রাখুন। 'মান্টিটাস্কিং' আমাদের লক্ষ্যবিন্দুকে নষ্ট করে দেয়। এছাড়া, 'মান্টিটাস্কিং' আমাদের মধ্যের সৃজনশীল দিকটিতেও মরচে ফেলে। সেটিও অবশ্য স্ট্রেসের অন্যতম একটি কারণ। একই সময়ে অনেক কাজ না করে একটি কাজ মনোযোগ সহকারে করার চেষ্টা করুন। এতে উপকার আপনারই।

# বিস্ময়কর হলেও সত্যি আকাশে মেঘের খেলা আপনার মস্তিষ্কের চাপ কমিয়ে দিতে পারে খুব দ্রুত। এই বিষয়টি আপনার কল্পনার করার শক্তিকেও বৃদ্ধি করে। তো পরেরবার যখনই আপনি খুব স্ট্রেস বোধ করছেন তখনই বাইরে যান, হাঁটতে হাঁটতে আকাশ দেখুন। এর জন্য আপনাকে কোনো রকম খরচা করতে হবে না

# অনেকক্ষণ একই ধরনের কাজ করতে থাকলে মস্তিষ্ক ভার লাগতে শুরু করবে এবং এটাই স্বাভাবিক। তাই কাজ থেকে বিরতি নিন, এক কাপ কফি পান করুন অথবা হেঁটে আসুন বাইরে থেকে। কিছুক্ষণ অন্য কোনো কাজও করতে পারেন। মোট কথা মস্তিষ্কে চাপ এবং একঘেয়েমি তৈরি করে এমন কাজ কিছুক্ষণের জন্য একেবারে বন্ধ করে দিন। ছোট্ট একটা বিশ্রাম নিয়ে ফিরে আসুন।

# অনেক সময় মানসিক ব্যস্ততা হতে পারে স্ট্রেসের কারণ। মানসিক ব্যস্ততা আবার দু প্রকারের হয়ে থাকে। যেমন অতিরিক্ত ইমেল, মিটিং ইত্যাদি হতে পারে বাহ্যিক ব্যস্ততার কারণ। আবার, এই কারণগুলির জন্যই আপনার মনের মধ্যেও হতে পারে চাপ সৃষ্টি।

কাজের ক্ষেত্রে সক্রিয়তা রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণে রেখে স্ট্রেস কমাতে সাহায্য করে। এটি লক্ষ্য স্থির করতে সাহায্য করবে। অন্যান্য বিভিন্ন ট্রেনিংয়ের মতো এই বিষয়টিকেও গুরুত্ব দেয়ার প্রয়োজন রয়েছে।


ঢাকা, বুধবার, মে ২৩, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ৯৩১ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন