সর্বশেষ
শনিবার ৩রা অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৭ নভেম্বর ২০১৮

দাঁতের যত্নে যা করা উচিত

শনিবার, জুলাই ১৪, ২০১৮

17_0.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

দাঁত শরীরের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ। শরীরের অনেক অঙ্গের মতই সংবেদনশীল না হলেও দাঁতের যত্নও প্রয়োজন একই ভাবে। দাঁতের ব্যথা, রক্তপাত এসবের পাশাপাশি ওরাল ক্যান্সার এর মত ভয়াবহ রোগ হতে পারে মুখগহ্বরে। তাই যত্ন নিতে হবে দাঁতেরও। কাজটা যে বেশ কঠিন এমনও না। নিয়মিত কিছু কাজ করলেই সুস্থ থাকবে দাঁত, মাড়ি ও মুখগহ্বরের স্বাস্থ্য।

জেনে নিন দাঁতের যত্নে যা করা উচিত-

দাঁত ব্রাশ:
প্রতি রাতে ঘুমানোর আগে ও সকালে নাস্তা খাওয়ার পর অবশ্যই দাঁত ব্রাশ করবেন। রাতে ঘুমানার আগে দাঁত ব্রাশ না করলে আপনার দাঁত ভালো থাকবে না।

যেমন ব্রাশ ব্যবহার করবেন:
সব সময় নরম ফাইবারযুক্ত একটি টুথব্রাশ দিয়ে দাঁত ব্রাশ করবেন। শক্ত ফাইবারযুক্ত টুথব্রাশ ব্যবহার করলে দাঁতের মাড়ির ক্ষতি হতে পারে। একটি টুথব্রাশ ছয় মাসের বেশি ব্যবহার করবেন না। তবে তিন মাস পরপর ব্রাশ পরিবর্তন করা ভালো।

যতক্ষণ ব্রাশ করবেন:
দাঁত পরিস্কার করা ও মাড়ি সুস্থ রাখাই দাঁত ব্রাশ করার প্রধান উদ্দেশ্য। ওপরের দাঁত ওপর থেকে নিচে এবং নিচের দাঁত নিচ থেকে ওপরের দিকে ব্রাশ করবেন। মোটামুটি দুই থেকে তিন মিনিট কার্যকর দাঁত ব্রাশ দাঁতের যত্নে যথেষ্ট। অনেককে দেখা যায়, বেশি সময় ধরে দাঁত ব্রাশ করে থাকেন, এটা কোনোভাবেই ঠিক নয়।

যে টুথপেস্ট ব্যবহার করবেন:
সব সময় ভালো টুথপেস্ট দিয়ে দাঁত ব্রাশ করবেন। তবে কোনো টুথপেস্টেই দাঁতের জন্য দরকারি সব উপাদান দেয়া সম্ভব নয়। তাই সবচেয়ে ভালো হয় দুই মাস পরপর টুথপেস্টের ব্র্যান্ড পরিবর্তন করলে। দাঁত শিরশির করলে সেনসোডিন নামক টুথপেস্ট ব্যবহার করতে পারেন।

ডেন্টাল ফ্লসিং:
ফ্লসিংয়ের মাধ্যমে সূক্ষ্ণ খাদ্য কণা যা ইন্টারডেন্টাল স্পেসে জমে থাকে তা পরিস্কার হয়ে যায়। যাদের দাঁত আঁকাবাঁকা তাদের ক্ষেত্রে ফ্লসিং করা অত্যন্ত জরুরি। সাধারণত দুধরনের ডেন্টাল ফ্লস দেখতে পাওয়া যায়। ওয়াক্সড এবং আনওয়াক্সড। যার যেটা পছন্দ সেটাই ব্যবহার করতে পারেন।

এভাবে নিয়মের মধ্য দিয়ে চললে আপনার দাঁতের সমস্যা অনেক কমে যাবে। আর বছরে অন্তত একবার ডেন্টাল সার্জনের পরামর্শ নেয়া উচিত।


ঢাকা, শনিবার, জুলাই ১৪, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ৮৫৫ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন