সর্বশেষ
সোমবার ৯ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ডিজিটাল মিটার ব্যবহারের প্রয়োজনীয় কিছু তথ্য

রবিবার, জুলাই ২২, ২০১৮

10.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

অগ্রিম বিল প্রদান, জরুরি অবস্থায় ক্রেডিট গ্রহণ, কম ক্রেডিটে সতর্ক বার্তা প্রদান, স্মার্ট কার্ডের মাধ্যমে ক্রেডিট সংযোজন ইত্যাদি বিষয়গুলো প্রিপেইড মিটারকে অন্যান্য মিটার থেকে আলাদা করেছে। এসব সুবিধার কারনেই প্রিপেইড মিটার প্রকল্পটির সফল বাস্তবায়ন বিদ্যুৎ ব্যবস্থাপনায় একটি দৃষ্টান্তমূলক পরিবর্তন আনতে সক্ষম।

ডিজিটাল মিটারে প্রথমবার ১০০০ টাকা রিচার্জে আপনি পাবেন ৭৯২ টাকা।

কারণঃ

#আপনাকে প্রথমেই মিটারের সাথে ১০০ টাকা দেওয়া হয়েছিল। তাই ১০০ টাকা কাটবে।

#ডিমান্ড চার্জ আগে প্রতি কিলো ছিল ২৫ টাকা এখন ডিজিটাল মিটারের ক্ষেত্রে ১৫ টাকা।(প্রতি মাসে একবার)

#মিটার ভাড়া ৪০ টাকা। (প্রতি মাসে একবার)

#সরকারি ভ্যাট আগেও ছিল ৫% এখনো ৫%।

#সার্ভিস চার্জ ১০ টাকা। (প্রতি মাসে একবার)

এই সব কারণে ডিজিটাল মিটার প্রথম রিচার্জে টাকা ১০০০ টাকার স্থানে ৭৯২ টাকা দেখাইতেছে। কিন্তু আপনি ঐ মাসেই যদি আবার ১০০০ টাকা রিচার্জ করেন তাহলে শুধু সরকারি ভ্যাট ৫% টাকা কাটার পর বাকি টাকা মিটারে রিচার্জ হবে।

এছাড়াও আপনি কত ইউনিট ব্যবহার করেছেন তা চেক করতে ৮০০ চাপুন। আপনার ব্যালেন্স জানতে ৮০১ চাপুন। ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স জানতে ৮১০ চাপুন। মিটার টি চালু বা অফ করতে ৮৬৮ চাপুন। আপনার মিটার টি কত ওয়ার্ডের তা জানতে ৮৬৯ চাপুন।


ঢাকা, রবিবার, জুলাই ২২, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ৪৮৬৪ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন