সর্বশেষ
মঙ্গলবার ২৯শে কার্তিক ১৪২৫ | ১৩ নভেম্বর ২০১৮

কোন বয়সে কোন পরীক্ষা করবেন?

শনিবার, জুলাই ২৮, ২০১৮

blood-test_1762730c-765x510_5127.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

যদি আপনি অসুস্থতা বা রোগ প্রতিরোধ করতে চান, তাহলে সঠিক সময়ে সঠিক স্ক্রিনিং গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু সঠিক সময় কখন? রিডার্স ডাইজেস্ট এর বরাত দিয়ে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছে রাইজিংবিডি।

৩০ এর দশকে: মস্তিষ্ক পরীক্ষা
ওয়েইল কর্নেল ব্রেইন অ্যান্ড স্পাইন সেন্টারের সভাপতি ও প্রতিষ্ঠাতা এবং নিউরোসার্জন ফিলিপ ই. স্টিগ বলেন, ‘সাম্প্রতিক গবেষণা ধারণা দিচ্ছে যে ক্রনিক্যালি প্রগ্রেসিভ ডিসঅর্ডার অ্যালজেইমার’স ও স্মৃতিভ্রংশতার অন্যান্য ফর্মের মতো মস্তিষ্কের ডিজেনারেটিভ রোগ মধ্যজীবনে শুরু হয়। এ কারণে উপসর্গ প্রকাশ পাওয়ার আগেই মস্তিষ্ক পরীক্ষা করা উচিত। এই পরীক্ষায় ম্যাগনেটিক রিজোন্যান্স ইমেজিং (এমআরআই) স্ক্যান, এমআর এনজিওগ্রাম ও ক্যারোটিড আল্ট্রাসনোগ্রাফি অন্তর্ভুক্ত। মস্তিষ্কের স্বাস্থ্য ভালো সংবহনের ওপর খুব বেশি নির্ভর করে এবং এসব টেস্টের মাধ্যমে আমরা নিশ্চিত হতে পারব যে সেখানে কোনো অস্বাভাবিকতা নেই।’

৪০ এর দশকে: ম্যামোগ্রাম
আমেরিকান কলেজ অব অবস্টেট্রিক্স অ্যান্ড গাইনিকোলজি স্তন ক্যানসারের স্বাভাবিক ঝুঁকির নারীদের ৪০ বছর বয়সে ম্যামোগ্রাম শুরু করতে পরামর্শ দিচ্ছে। কিন্তু যদি আপনার কোনো ফার্স্ট-ডিগ্রি রিলেটিভের (উদাহরণস্বরূপ, মা অথবা বোন) মেনোপজপূর্ব স্তন ক্যানসার থাকে, তাহলে আপনার আরো আগে ম্যামোগ্রাম আরম্ভ করা উচিত, বলেন ডা. জ্যানোট্টি। ইন্ডিয়ানা ইউনিভার্সিটি স্কুল অব মেডিসিনের ক্লিনিক্যাল এমেরিটাস প্রফেসর মর্টন ট্যাভেল বলেন, ‘৭৪ বছর বয়সের পর টেস্টিং ঐচ্ছিক এবং আপনার ফিজিশিয়ানের পরামর্শ মোতাবেক সবচেয়ে ভালো উপায়টিই বেছে নিন। ইউএসপিএসটিএফের রিপোর্ট নির্দেশ করছে যে অপ্রয়োজনীয় অস্ত্রোপচার ও উদ্বেগ ছাড়াও অধিক ঘনঘন ম্যামোগ্রামের রেডিয়েশন সামান্য কিন্তু উল্লেখযোগ্য স্তন ক্যানসারের ঝুঁকি বৃদ্ধি করে।’

৪০ এর দশকে: পিএসএ ব্লাড টেস্ট
ইউএসপিএসটিএফ পুরুষদের প্রোস্টেট ক্যানসার স্ক্রিনিং রিকমেন্ড করেনি এবং ডা. কারি বলেন যে এটি একটি বিতর্কিত বিষয় হিসেবে বিবেচিত। কারণ, ‘এটি স্পষ্ট নয় যে প্রারম্ভিক পর্যায়ে এই ক্যানসার শনাক্তকরণ ফলাফলে পরিবর্তন আনতে পারে।’ আমেরিকান ক্যানসার অ্যাসোসিয়েশনের মতে, পুরুষদের ৪৫ বছর বয়সে এই টেস্ট নিয়ে তাদের চিকিৎসকদের সঙ্গে আলোচনা করা উচিত। ডা. কারি বলেন, ‘এক্ষেত্রে আমরা আলোচনার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নিই। রোগী ও ফিজিশিয়ান ঝুঁকি ও উপকারিতা মূল্যায়ন করবেন।’ তিনি যোগ করেন যে যদি কোনো পুরুষের প্রোস্টেট ক্যানসারের পারিবারিক ইতিহাস থাকে অথবা যদি তিনি আফ্রিকান আমেরিকান হন, তার এই জাতীয় ক্যানসার বিকশিত হওয়ার ঝুঁকি বেশি, তাই স্ক্রিনিং প্রয়োজন হতে পারে।

৪০ এর দশকে: ডায়াবেটিস স্ক্রিনিং
ইউএসপিএসটিএফ ৪০ থেকে ৭০ বছর বয়সের অতিরিক্ত ওজন বা স্থূল প্রাপ্তবয়স্কদের অস্বাভাবিক রক্ত শর্করার জন্য স্ক্রিনিং রিকমেন্ড করছে। ডা. কারি বলেন, ‘এটি তাড়াতাড়ি শুরু করা গুরুত্বপূর্ণ, কারণ ডায়াবেটিস অনেক বছর ধরে অনির্ণীত থেকে যেতে পারে।’ তিনি যোগ করেন, ‘টাইপ ২ ডায়াবেটিসে (অ্যাডাল্ট ডায়াবেটিসের সর্বাধিক কমন টাইপ) ভোগা ব্যক্তিদের এই রোগ নির্ণীত হওয়ার পূর্বেই গড়ে ৫ বছর ধরে এটির অস্তিত্ব থাকে। এই সময়ে তাদের কোনো উপসর্গ অথবা ক্লান্তির মতো সমস্যা দেখা দেয় না, তাই তারা কোনোকিছুর জন্য পরীক্ষা করে না। কিন্তু এই রোগ তাদের মস্তিষ্ক, চোখ, হৃদপিণ্ড ও বৃক্কের ছোট ধমনীর ক্ষতি করছে এবং তাদের এই বিষয়ে কোনো ধারণা নেই।’

৫০ এর দশকে: কোলনোস্কপি
নিউ ইয়র্ক সিটির গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজিস্ট আলেক্স শেরম্যান বলেন, ‘আমার জানামতে, গড় ব্যক্তির জন্য সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ গ্যাস্ট্রোইন্টেস্টাইনাল স্ক্রিনিং হচ্ছে কোলনোস্কপি স্ক্রিনিং। এটি নিরীহ টিউমার বা পলিপ শনাক্তকরণ ও অপসারণে ভূমিকা রাখে, যা অন্যথায় ক্যানসারে রূপান্তর হতে পারে। কোলন ক্যানসারের সব ধরনের স্ক্রিনিং টেস্টের মধ্যে এটি সবচেয়ে কার্যকর, কারণ এটি শুরু থেকেই কোলন ক্যানসারের বিকাশ প্রতিরোধ করতে পারে।’ তিনি উল্লেখ করেন, ‘৫০ বছর বয়সের প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য এই টেস্ট সুপারিশকৃত। কিন্তু আফ্রিকান আমেরিকান এবং উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা অন্যান্য লোকদের (উদাহরণস্বরূপ, কোলন ক্যানসারের পারিবারিক ইতিহাস আছে এমন লোক) ৪৫ বছর বয়সেই কোলনোস্কপি আরম্ভ করা উচিত।’ আমেরিকান ক্যানসার সোসাইটি অনুসারে, যদি আপনার রেজাল্ট স্বাভাবিক আসে, তাহলে আগামী ১০ বছর পর্যন্ত আরেকটি কোলনোস্কপির প্রয়োজন নেই।

৫০ এর দশকে: হাড়ের ঘনত্বের স্ক্যান
ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিকের ডিপার্টমেন্ট অব রিউম্যাটিক অ্যান্ড ইমিউনোলজিক ডিজিজের সভাপতি অ্যাবি আবেলসন বলেন, ‘নারীদের মেনোপজ শুরুর দিকে প্রথম বোন ডেনসিটি স্ক্যান বা হাড়ের ঘনত্বের পরীক্ষা করা উচিত।’ পুরুষদের ৬৫ বছর বয়সের দিকে প্রথম বোন ডেনসিটি স্ক্যান করা উচিত। ডা. আবেলসন বলেন, ‘কিন্তু যদি কোনো রোগী প্রেডনিসোনের মতো স্টেরয়েড ও হাড়কে দুর্বল করে এমন ওষুধ গ্রহণ করে অথবা যদি তার প্রদাহ জনিত অন্ত্রীয় রোগের মতো দশা বা ট্রমার সঙ্গে জড়িত নয় এমন ফ্র্যাকচার থাকে, তাহলে তার খুব তাড়াতাড়ি টেস্ট প্রয়োজন হবে। আপনার ফিজিশিয়ানের পরামর্শ নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত।’

৫০ এর দশকে: শ্রবণ পরীক্ষা
নিউ ইয়র্ক সিটির প্রাইভেট প্র্যাকটিসের কান, নাক ও গলা বিশেষজ্ঞ এবং এনওয়াইইউ ল্যানগোন মেডিক্যাল সেন্টারের সহযোগী অধ্যাপক রিচার্ড নাস বলেন, ‘আমরা বয়স্ক হতে থাকলে আমাদের শোনার ক্ষমতা হ্রাস পেতে থাকে। শ্রবণসংক্রান্ত কোনো সমস্যা হওয়ার আগেই বেইসলাইন অডিওগ্রাম অথবা শ্রবণ পরীক্ষা করা ভালো আইডিয়া, কারণ এতে শ্রবণের পরিবর্তন ও সমস্যা নির্ভুলভাবে মূল্যায়ন করা যায়।’

৬০ এর দশকে: পেটের অ্যানিউরিজম স্ক্রিনিং
ইউএসপিএসটিএফ ধূমপায়ী পুরুষদের পেটের অ্যাওরটিক অ্যানিউরিজমের ঝুঁকি নির্ণয় করতে একটি ওয়ান-টাইম স্ক্রিনিং করতে পরামর্শ দিচ্ছে। অ্যাওরটিক অ্যানিউরিজম হচ্ছে স্বাভাবিক মহাধমনীর অস্বাভাবিক বৃদ্ধি, যা সাধারণত ফেটে যাওয়া ব্যতীত কোনো উপসর্গ সৃষ্টি করে না। অন্ত্রে এই বড় রক্তনালী ফেটে গেলে জীবননাশ হতে পারে। তামাকের ব্যবহার অ্যানিউরিজমের ঝুঁকি বৃদ্ধি করে। অ্যাবডোমিনাল অ্যাওরটিক অ্যানিউরিজম নারীদের চেয়ে পুরুষদের বেশি বিকশিত হয় এবং ইউএসপিএসটিএফ নারীদের এই স্ক্রিনিং রিকমেন্ড করেনি। কিন্তু আপনার চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলুন, যদি আপনি নারী হন ও অনেক বছর ধরে ধূমপান করেন- স্ক্রিনিং করাটাই ভালো আইডিয়া হতে পারে।


ঢাকা, শনিবার, জুলাই ২৮, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ৭৬৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন