সর্বশেষ
শুক্রবার ২রা অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৬ নভেম্বর ২০১৮

টি-টোয়েন্টি সিরিজও বাংলাদেশের

সোমবার, আগস্ট ৬, ২০১৮

6.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরটা যাচ্ছে তাইভাবে শুরু হয়েছিল বাংলাদেশের। ২ ম্যাচ টেস্ট সিরিজে হয়েছিল ধবলধোলাই। তবে ওয়ানডেতে এসেই বদলে যায় টাইগাররা। চোখধাঁধানো পারফরম্যান্সে ৩ ম্যাচ সিরিজ জিতে নেয় ২-১ ব্যবধানে। টি-টোয়েন্টি সিরিজেও দেখা গেল আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশকে।

ফ্লোরিডায় টি-টুয়েন্টি সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-টুয়েন্টিতে বৃষ্টি আইনে উইন্ডিজকে ১৯ রানে হারিয়ে ইতিহাস গড়লো বাংলাদেশ৷

প্রথমবারের মতো র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষ ৮ দলের কাউকে টি-টুয়েন্টি সিরিজ হারালো টাইগাররা। এছাড়া ৬ বছর পর জিতলো কোন টি-টুয়েন্টি সিরিজ। টাইগাররা সর্বশেষ টি-টুয়েন্টি সিরিজ জিতেছিল ২০১২ সালে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে।

টাইগারদের দেয়া ১৮৫ রানের বড় টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে ওয়ালটনের ব্যাটে ভালোই শুরু পায় উইন্ডিজ। তবে ইনিংসের চতুর্থ ওভারের বোলিংয়ে এসেই মোস্তাফিজ ভয়ঙ্কর আন্দ্রে ফ্লেচারকে থার্ড ম্যান অঞ্চলে নাজমুল অপুর ক্যাচ বানিয়ে ফেরান। এরপর নিজের ওভারের ৩ বল করে হাতে ব্যথা পেয়ে মাঠ ছাড়েন নাজমুল অপু। তার পরিবর্তে ওভারের বাকি ৩ বল করতে এসেই ওয়ালটনকে ১৯ রানে ফেরান সাব্বির।

সাব্বির নিজের প্রথম ওভারে এসেই ভয়ঙ্কর সামুয়েলসকে ৬ রানে বোল্ড করে ফেরান। এরপর পাওয়েল-রামদিনের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে উইন্ডিজ৷ তবে ইনিংসের ১২তম ওভারে রামদিনকে ব্যক্তিগত ২২ রানে বোল্ড করে ফেরান রুবেল।

এরপর আবার আঘাত হানে কাটার মাস্টার মোস্তাফিজ। ২৩ রান করা রাভমান পাওয়েলকে রুবেলে ক্যাচে পরিনত করে ফিজ। তবে পাওয়েল ফিরে গেলেও অপরপ্রান্তে ঝড় অব্যাহত রাখেন রাসেল। তবে ১৭তম ওভারের প্রথম বলে রাসেলকে যখন আরিফুল ক্যাচ বানিয়ে ফেরান মোস্তাফিজ তখন জয় প্রায় নিশ্চিত হয়ে যায় টাইগারদের সাথে সিরিজও।

তবে রাসেল আউট হওয়ার পরেই ফ্লোরিডায় আবারো হানা দেয় বৃষ্টি। তখন উইন্ডিজের সংগ্রহ ছিল ১৭.১ ওভারে ৭ উইকেটে ১৩৫ রান। এরপর আর খেলা না শুরু হলে ডাকওয়ার্থ লুইস মেথডে ১৯ রানে জয় পায় বাংলাদেশ।

এর আগে, টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমেই বাংলাদেশকে দুর্দান্ত সূচনা এনে দিয়েছেন দুই ওপেনার তামিম ইকবাল এবং লিটন দাস। উইন্ডিজ বোলারদের একের পর বাউন্ডারী মেরে নাকানি-চুবানি খাইয়ে মাত্র ২২ বলে ফিফটি করে টি-টোয়েন্টিতে দ্রুততম পঞ্চাশের রেকর্ড করে এই দুই ওপেনার।

তবে ভালো শুরুর পরও ১৩ বলে ২১ রান করে ব্রাথওটের বলে ফিরে যান তামিম। আর এর পরেই ব্যাটিংয়ে নেমে আবারো ব্যর্থ হন সৌম‍্য সরকার। ৪ বলে ৫ রান করে কিমো পলের বলে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান তিনি।

কিন্তু ওপর প্রান্তে দুর্দান্ত খেলে ক্যারিয়ারের প্রথম টি-টোয়েন্টি ফিফটির স্বাদ পেলেন লিটন কুমার দাস। মাত্র ২৪ বলে মাইলফলকে পৌঁছান ডানহাতি ব্যাটসম্যান। হাফ সেঞ্চুরির ইনিংসটি সাজিয়েছেন ৫ চার ও ৩ ছক্কায়। শেষ পর্যন্ত ৩২ বলে ৬১ রান করেন লিটন। ৬ চার ও ৩ ছক্কায় লিটন তার ইনিংসটি সাজান।


ঢাকা, সোমবার, আগস্ট ৬, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ১৭৯৯ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন