সর্বশেষ
সোমবার ৫ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৯ নভেম্বর ২০১৮

মুসলিম অভিবাসী নিষিদ্ধের প্রস্তাব করে সমালোচিত অস্ট্রেলীয় সিনেটর

বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১৬, ২০১৮

multi-table.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

মুসলিম ও ইংরেজি না জানা অভিবাসীদের আসা বন্ধ করতে পারলেই সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে বলে মন্তব্য করেছিলেন অস্ট্রেলিয়ার এক স্বতন্ত্র সিনেটর ফ্রেসার অ্যানিং। ১৪ আগস্ট মঙ্গলবার দেশটির জাতীয় সংসদে তিনি এমনটা বলেছিলেন। আর এরই মধ্যে এই প্রস্তাবের তীব্র নিন্দা শুরু হয়ে গেছে। এমনকি নিন্দা জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুলসহ বড় রাজনৈতিক দলগুলো। খবর রয়টার্স।

ফ্রেসার অ্যানিং বলেন, ‘মুসলমানেরা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ও অপরাধের জন্য দায়ী। অস্ট্রেলিয়ায় জঙ্গিবাদ রুখতে মুসলিম অভিবাসীদের নিষিদ্ধ করাই সবশেষ সমাধান।

এছাড়া তিনি তার প্রস্তাব বাস্তবায়ন করতে একটি গণভোটের আয়োজন করারও আমন্ত্রণ জানান সংসদে।

এ নিয়ে দেশটির রাজনীতিবিদরা জানায়, ১৯৯৬ সালে অস্ট্রেলিয়ার সংসদে হামলার ঘটনার পর ফ্রেসারের মন্তব্যই সবচেয়ে বড় বিবাদ সৃষ্টিকারী বক্তব্য।

ফ্রেসারের এমন মন্তব্যে সংসদে চরম সমালোচনা শুরু হয়। এমনকি উগ্র ডানপন্থী সিনেটর ওয়ান ন্যাশন দলের নেতা পোলিং হ্যানসনও ফ্রেসারের মন্তব্যের নিন্দা করেন।

তিনি বলেন, আমি তার কথায় হতভম্ব হয়েছি, আমি বিশ্বাস করি ফ্রেসার তার সীমা ছাড়িয়েছেন।

ফ্রেসারের মন্তব্যের নিন্দা জানিয়ে বক্তব্য দিতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন দেশটির জাতীয় সংসদের প্রথম মুসলিম নারী সাংসদ সিনেটর অ্যানি এলি।

অ্যানি বলেন, বারবার ঘৃণার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে দাঁড়াতে আমি ক্লান্ত। আমাদের পরবর্তী প্রজন্মের জন্য একটি সুন্দর ভবিষ্যৎ রেখে যেতে আমাদের এই বৈষম্যবাদ বন্ধ করতে হবে।

উল্লেখ্য, আদমশুমারিতে দেখা গেছে, অস্ট্রেলিয়ার জনসংখ্যার তিন শতাংশেরও কম হচ্ছে মুসলমান।


ঢাকা, বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১৬, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // এস এ এই লেখাটি ৪৯২ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন