সর্বশেষ
সোমবার ৫ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৯ নভেম্বর ২০১৮

বেনাপোলকে ইউনিফাইড বন্দর করা হবে: নৌ-পরিবহন মন্ত্রী

শুক্রবার, আগস্ট ১৭, ২০১৮

uuuuu.jpg
বেনাপোল প্রতিনিধি :

নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান এমপি বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকার আসার আগে বেনাপোল স্থলবন্দর থেকে মাত্র ২৬ কোটি টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে। শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় আসার পর বেনাপোল স্থল বন্দর থেকে ১১১ কোটি টাকা লাভ হযেছে। চট্রগ্রাম বন্দরে রিজার্ভ ছিল মাত্র সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা বর্তমানে চট্রগ্রাম বন্দরের রিজার্ভ দাঁড়িয়েছে ১১ হাজার কোটি টাকা। মংলা বন্দরের লোকসান ছিল ১১ কোটি টাকা আজ সেখানে ৭৫ কোটি টাকা লাভ দাঁড়িয়েছে।

বেনাপোল বন্দরকে আরো উন্নত করতে এবং ব্যবসা বাণিজ্য সম্প্রসারণ করতে ১৭৫ একর জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে। আজ সেই জমির ভিতর ২৬ একর জমির চেক দেওয়া হলো। আওয়ামলীগ সরকার ক্ষমতায় থাকলে দেশের উন্নয়ন হয় কথাগুলো বললেন বেনাপোল আন্তর্জাতিক প্যাসেঞ্জার টার্মিনালে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান এমপি।

বেনাপোল বন্দরেরর ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করে বলেন আমাদের আমদানি পণ্য বিজিবি পথে পথে আটক করে হয়রানি করে। অনেক সময় বিজিবি ভুল তথ্যের ভিত্তিতে এগুলো আটক করে দীর্ঘ সময় আমাদের নাজেহাল করে থাকে। আমরা বিজিবি’র এরকম হয়রানি থেকে মুক্তি পেতে চাই। এ কথা বলে ক্ষোভ প্রকাশ করে ব্যবসায়ীরা।

উপদেষ্টা কমিটির সভাপতি নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান এমপি বলেন, বেনাপোল বন্দরকে ইউনিফাইড বন্দর হিসাবে গড়ে তোলার জন্য ১৭৫ একর জমি অধিগ্রহণের মধ্যে আজ ২৬ একর জমির চেক জেলা প্রশাসকের কাছে প্রদান করা হলো। আর বিজিবি যদি এরকম হয়রানি করে থাকে তাহলে বিজিরি’ব সাথে আলাপ আলোচনা করে এর সমাধান করতে হবে। কারণ বিজিবি ও একটি বাহিনী। তাদের অনেক সময় গোয়েন্দা তথ্যর ভিত্তিতে গাড়ি তল্লাশি করতে হয়। তবে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ থাকলে সে ক্ষেত্রে বিজিবি তল্লাশি করবে। এ সময় তিনি বলেন আগ্নেয়াস্ত্র ও বিস্ফোরক দ্রব্য থাকলে সে ক্ষেত্রে বিজিবি তল্লাশি করতে পারে। তিনি এসময় বলেন, সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়া কোন গাড়ি আটক করা যাবে না।

মন্ত্রী শাহজাহান খান বলেন, আমাদের যত রকম সহযোগিতার প্রয়োজন তা করা হবে বন্দর উন্নয়নের জন্য। যদি আরো জামি লাগে তা আপনারা দেখে আমাদের জানান। টাকার সমস্যা নাই আমরা আরো জমি অধিগ্রহণ করব বেনাপোল বন্দরের জন্য। এখানে যানজট এবং পণযজট এর জন্য দ্রুত জায়গা নিয়ে টার্মিনাল ও আমদানি পণ্য রাখতে হবে।

আওয়ামী লীগ সরকার ১২ টি গেজেট ভূক্ত বন্দর থেকে ২৩ বন্দরকে গেজেট ভূক্ত করেছে। ইতিমধ্যে নদী পথে আমদানি বাড়াতে ১৫০০ কিলোমিটার নদী খনন বা ড্রেজিং করা হয়েছে। প্রধান মন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশকে আরো গতিশীল করে স্বল্প উন্নত দেশ হতে উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে পরিণত করা হয়েছে। আগামীতে বাংলাদেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করার লক্ষে কাজ করছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ।


ঢাকা, শুক্রবার, আগস্ট ১৭, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ৪১৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন