সর্বশেষ
বুধবার ৫ই পৌষ ১৪২৫ | ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮

সৌম্য-ইমরুলকে দুবাই আনার কারণ জানেন না মাশরাফি

শনিবার, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৮

Untitled-1-517.gif
বিডিলাইভ ডেস্ক :

বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা দাবি করেছেন, সৌম্য সরকার এবং ইমরুল কায়েসকে দুবাই আনার ব্যাপারে তাকে আগে কিছু জানানো হয়নি। তিনি জানান, যে দু'জনকে আনা হচ্ছে তাদের বিষয়টা এখনো আমার কাছে পরিষ্কার না।

বাংলাদেশ ওপেনার তামিম ইকবাল বাঁ-হাতের আঙুলে চোট পাওয়ায় দল থেকে ছিটকে গেছেন। তার জায়গায় শেষ দু্ই ম্যাচে ওপেনে দেখা গেছে নবাগত নাজমুল হোসাইন শান্তকে। লিটন দাস এবং নাজমুল দু'জনই অনভিজ্ঞ ওপেনার। শেষ দুই ম্যাচে দলে সুযোগ পেয়ে ভালো করতে পারেননি কেউ। দু'জনের কেউই এখনো দুই অঙ্কের ঘরে নিজেদের রান নিয়ে যেতে পারেননি।

আর তাই দলে যোগ দিতে শনিবার সন্ধ্যা সাতটার ফ্লাইটে দুবাই যাওয়ার কথা দুই বাঁ-হাতি ওপেনার সৌম্য সরকার এবং ইমরুল কায়েসের। কিন্তু কোন যুক্তিতে এই দু'জনকে আনা হচ্ছে সেটা অজানা বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফির কাছে।

রোববারই বাংলাদেশ সুপার ফোরের দ্বিতীয় ম্যাচে আফগানিস্তানের মুখোমুখি হবে। যদি সৌম্য-ইমরুলের কেউ দলে সুযোগ পান তবে ভ্রমণ ক্লান্তি কাটিয়ে তারা আফগান বোলারদের খেলতে পারবেন কিনা তা নিয়ে থাকছে প্রশ্ন। এছাড়া সৌম্য সরকার এবং ইমরুল কায়েসকে ভালো পারফরমেন্স করতে না পারায় দলের বাইরে রাখা হয়। তারা এমন কি করেছেন যে তাদের দুর্বলতা তারা কাটিয়ে উঠেছে বলে মনে করছেন নির্বাচকরা। প্রশ্ন আছে সেটি নিয়েও।

মাশরাফি বলেন, 'যে দু'জন আসছেন আমি তাদের বিষয়ে এখনো কিছু নিশ্চিত করে বলতে পারছি না। আমাদের সঙ্গে আলাপ করে কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। বিষয়টি আমার কাছে এখনো অস্পষ্ট। তারা দলের বাইরে চলে ছিল ভালো পারফরমেন্স না করার কারণে। এখন আবার এই চাপের মুখে দলে যোগ করা হচ্ছে তাদের। তারা সমস্যা কাটিয়ে উঠতে এই সময়ের মধ্যে টেকটিক নিয়ে কি কাজ করেছে আমার অজানা। তারা যে সমস্যার কারণে দলের বাইরে ছিল সেটা কাটিয়ে উঠেছে কিনা জানি না। এই বিষয়গুলো এমন টুর্নামেন্টে বড় কারণ হয়ে দাঁড়ায়।'

তবে মাশরাফি মনে করেন ওপেনিং জুটি ভালো করতে না পারায় তার ফল মিডল অর্ডারের ওপর চুইয়ে পড়ছে। নতুন বলে ব্যাট করার জন্য উইকেট খুব কঠিন বলেও মনে করেন না তিনি। বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়ক বলেন, 'এখানে নতুন বল একটু সামলে ১০ ওভারে ৬০ রানের মতো না আসার কোন কারণ দেখি না। আমরা এর আগের ম্যাচ গুলোতে ১০ ওভারে হয়তো ৩০-৩৫ রান করেছি। কোন উইকেট হারায় নি। কিংবা এক উইকেট হারিয়েছে। দ্রুত উইকেট পড়ে গেলে মিডল অর্ডার সাধারণত ইনিংস গড়ার কাজ করে। কিন্তু তাদের কাছে প্রতিদিন রান চাওয়া কঠিন। দ্রুত ২ উইকেট হারালে তাদের ওপর চাপটা খুব বড় হয়ে আসে।'

তবে বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়ক এখনই দলের টুর্নামেন্ট শেষ এটা মানতে পারছেন না। তিনি বলেন, 'আমরা পরপর দুই ম্যাচেই দ্রুত উইকেট হারিয়েছে। তবে আমরা টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে পড়েছি এটা এখনই আমার মনে হয় না। আমাদের অবশ্যই ঘুরে দাঁড়নোর সুযোগ আছে। সামনের ম্যাচের আগে আমাদের একদিন হাতে সময় আছে। আমরা দল হয়ে সামনের ম্যাচ খেলতে হবে।'

সূত্র: সমকাল


ঢাকা, শনিবার, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ১৫০৬ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন