সর্বশেষ
শুক্রবার ২২শে অগ্রহায়ণ ১৪২৬ | ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯

ইন্দোনেশিয়ায় বিমান বিধ্বস্ত: ১৮৯ আরোহী নিহতের আশঙ্কা

মঙ্গলবার, অক্টোবর ৩০, ২০১৮

5.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তার বিমানবন্দর থেকে ১৮৯ জন যাত্রী নিয়ে ওড়ার অল্প সময় পর সাগরে বিধ্বস্ত হয়েছে লায়ন এয়ারের বোয়িং ৭৩৭ বিমান।

গতকাল সোমবার সকালে জাকার্তা বিমানবন্দর থেকে ওড়ার পর নিখোঁজ হয়ে যায় বিমানটি। এতে মোট ১৮৯ জন অরোহী ছিলেন। আরোহীদের মধ্যে কাউকে উদ্ধার করা যায়নি। তবে সাগরে ভেসে উঠছে দেহাবশেষ ও বিভিন্ন জিনিসপত্র।

দেশটির উদ্ধারকারী কর্মকর্তারা যাত্রীদের জীবিত উদ্ধার করা গেলে সেটি ‘অলৌকিক’ হবে বলে মন্তব্য করেছেন। লায়ন এয়ারের জেটি-৬১০ ফ্লাইটটি জাকার্তা বিমানবন্দর থেকে দেশটির দ্বীপ শহর পাংকাল পিনাংয়ের উদ্দেশে যাত্রা করেছিল; কিন্তু উড্ডয়নের কয়েক মিনিটের মাথায় সাগর পাড়ি দেয়ার সময় নিয়ন্ত্রণকক্ষের সাথে এর যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।

ঘটনাস্থল থেকে বিমানযাত্রীদের বিভিন্ন জিনিসপত্র উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া আশপাশের এলাকায় এসব সামগ্রী ছড়িয়ে পড়ার খবরও পাওয়া গেছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে, সমুদ্রের ২০ থেকে ৩০ মিটার গভীরে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে।

কর্মকর্তারা জানান, লায়ন এয়ার ফ্লাইটের ওই বিমানটি প্রায় নতুন ছিল। তারা এখনো বেঁচে থাকা কারো সন্ধান পাননি। পাওয়ার কোনো সম্ভাবনাও দেখা যাচ্ছে না। তবে উপকূল থেকে ১৫ কিলোমিটার দূরে দেহাবশেষ উদ্ধার করেছেন তারা।

সংস্থার প্রধান মুহাম্মদ সাইয়াগু বলেছেন, 'এই ঘটনায় কেউ জীবিত আছে কি না আমরা নিশ্চিত নই। আশা করছি, প্রার্থনা করছি; কিন্তু নিশ্চিত না।'

কী কারণে জেটি-৬১০ ফ্লাইটটি বিধ্বস্ত হয়েছে, তা অবশ্য জানা যায়নি। বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ৮ মডেলের উড়োজাহাজটি একবারেই নতুন। তবে জাকার্তা পোস্ট জানায়, রোববার রাতেই বিমানটিতে যান্ত্রিক ত্রুটি ধরা পড়েছিল, যা পরে ঠিক করা হয় বলে জানিয়েছেন লায়ন এয়ারের প্রধান নির্বাহী অ্যাডয়ার্ড সিরেইট।

এর আগে, ২০১৪ সালের ২৮ ডিসেম্বর ১৬২ জন আরোহী নিয়ে ইন্দোনেশিয়া থেকে সিঙ্গাপুরগামী এয়ার এশিয়ার একটি বিমান জাভা সাগরে বিধ্বস্ত হয়।


ঢাকা, মঙ্গলবার, অক্টোবর ৩০, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ২১৮৫ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন