সর্বশেষ
শুক্রবার ৩০শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮

কারিনাকে বিয়ের দিনই 'প্রাক্তন' অমৃতাকে চিঠি লেখেন সাইফ!

সোমবার, নভেম্বর ১৯, ২০১৮

9.png
বিডিলাইভ ডেস্ক :

সাইফ আলি খান, পতৌদি পরিবারের ছোট নবাবের বিবাহিত জীবনে দুই অধ্যায়। প্রথমে অমৃতা, দ্বিতীয় কারিনা। একথা কমবেশি প্রায় সকলেরই জানা।

১৯৯১ সালে ১২ বছরের বড় অমৃতা সিংকে বিয়ে করেছিলেন সাইফ। তবে সেই বিয়ে শেষ পর্যন্ত সুখের হয়নি। দীর্ঘ ১৩ বছর সংসার করলেও শেষপর্যন্ত ২০০৪ সালে বিবাহ-বিচ্ছেদ হয় সাইফ-অমৃতার। এই বিবাহিত জীবনে সাইফ ও অমৃতার দুই সন্তানও রয়েছে সারা আলি খান ও ইব্রাহিম খান।

যদিও সেসব এখন অতীত। পরবর্তীতে ২০১২ সালে ১৬ অক্টোবর কাপুর পরিবারের কন্যা কারিনাকে বিয়ে করেন সাইফ। বর্তমানে সাইফ-কারিনারও এক সন্তান রয়েছে, তৈমুর আলি খান।

তবে সম্প্রতি ফের উঠে এসেছে সাইফ আলি খানের প্রথম পক্ষের স্ত্রী অমৃতা সিংয়ের প্রসঙ্গ। সৌজন্য সারা। সাইফ-অমৃতা কন্যা বলিউডে ডিবিউ করতে চলেছে। তারই মাঝে বাবার সঙ্গে কফি উইথ করণ সিজন-৬ এ হাজির হয়েছিলেন সারা। সেখানেই উঠে এল অমৃতার প্রসঙ্গ।

সাইফ জানান, কারিনার সঙ্গে বিয়ের দিন তিনি 'প্রাক্তন' অমৃতাকে চিঠি লিখেছিলেন। অমৃতাকে পাঠানোর আগে সেই চিঠি আবার পরেছিলেন কারিনা কাপুর খান।  শুনে চমকে গেলেন?

হ্যাঁ, ঠিকই পরছেন। সাইফ জানান, কারিনাই নাকি তাকে অমৃতাকে চিঠি লেখার জন্য অনুরোধ করেন। চিঠিতে নাকি সাইফ তার নতুন জীবন শুরু করার কথা জানিয়ে ও অমৃতার সঙ্গে কাটানো কিছু পুরনো স্মৃতি উঠে এসেছিল। তবে তাতে ঠিক কী লেখা ছিল তা অবশ্যই সাইফ জানাননি। কারিনা তাকে কতটা সমর্থন করেন, সবসময় তার পাশে কীভাবে থাকেন, সেকথা বলতে গিয়েই 'প্রাক্তন' অমৃতাকে চিঠি লেখার কথা জানান ছোটে নবাব। আর এসব কথা মেয়ের সারার সামনেই বলেন সাইফ।

এই শোতে এসে ব্যক্তিগত অনেক মূহূর্তের কথাও ভাগ করে নিয়েছেন সাইফ। কারিনা বাড়ি থেকে বেরোনোর আগে তাকে কেমন লাগে, বাড়ি ফিরলে কেমন লাগে, মেয়ের সামনেই অকপটে এসব নিয়ে করণের সঙ্গে কথা বলেন সাইফ। যদিও সাইফের এধরনের কথাবার্তায় অপ্রস্তুত হয়ে পড়েন সারা। একবার তো সারা লজ্জায় দু’ কানে হাতই দিয়ে ফেলেন সাইফের কথায়।

প্রসঙ্গত, বেশ কিছুদিন সারার বলিউডের ডেবিউ নিয়ে অমৃতা ও সাইফের পৃথক দুই সাক্ষাৎকার সংবাদমাধ্যমের একই পাতায় উঠে এসেছিল। যদিও জানা যায়, সাইফ মেয়ের পছন্দকে সম্মান করলেও প্রথম দিকে তিনি নাকি চাননি যে সারা অভিনয়কে পেশা হিসাবে বেছে নিক। তিনি চেয়েছিলেন সারা নিউ ইয়র্কে যেমন পড়াশোনা করছে, সেখানেই পড়াশোনা শেষ করে চাকরি করুক। অভিনয় পেশাটা ভীষণ অনিশ্চয়তার সে কারণেই সাইফ এটা চাননি বলেও জানিয়েছিলেন। খবর- জিনিউজ


ঢাকা, সোমবার, নভেম্বর ১৯, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ২৪০১ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন