সর্বশেষ
সোমবার ৪ঠা অগ্রহায়ণ ১৪২৬ | ১৮ নভেম্বর ২০১৯

চুলের হারানো জেল্লা ফিরে পেতে যা করবেন

মঙ্গলবার, অক্টোবর ২২, ২০১৯

DhakaDistrict_0.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

মানুষ মাত্রই সৌন্দর্যের পূজারী। দেহের অন্যান্য অঙ্গের মতো চুলও মানবদেহের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে। সেই চুল যদি সুন্দর না হয় খোঁপা হোক কিংবা খোলা চুলের ফ্যাশন, কোনোটাই ঠিকভালো লাগবে না। তাই সঠিক সময়ে চুলের যত্ন না নিলে চুলের গোড়া আলগা হয়ে চুল পড়ার পরিমাণ বেড়ে যাওয়া এবং চুলের মসৃনতা হারিয়ে যেতে পারে।

তবে বুদ্ধি খাটাতে পারলে চুলের আর্দ্রভাব কাটাতে এবং হারিয়ে যাওয়া উজ্জ্বলতা ফিরে পেতে সাত দিনই যথেষ্ট।তাই চুলের যত্নে মেনে চলুন কিছু ঘরোয়া টোটকা। তাই চুলের ধরন অনুযায়ী প্রয়োগ করতে হবে এই টোটকাগুলি।

হট অয়েল ট্রিটমেন্ট :

এই ট্রিটমেন্ট চুলের যত্নে সবচেয়ে কার্যকরী উপায়। সহজেই এই ট্রিটমেন্ট বাড়িতেই করতে পারবেন আপনি। বিশেষ করে চুলে রং করা থাকলে এই হট অয়েল মাসাজ চুলের স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত কার্যকর। শুষ্ক চুলে সপ্তাহে ৩ দিন নারকেল তেল ও ক্যাস্টর অয়েল মিশিয়ে গরম করে চুলে ও মাথার ত্বকে আলতো ম্যাসাজ করুন।

চুল খুব শুষ্ক বা তৈলাক্ত কোনোটাই না হয়ে মাঝারি ধরনের হলে আলাদা করে সাপ্তাহিক নিয়মে অয়েল ট্রিটমেন্টের প্রয়োজন পড়ে না। তবে চুলকে ঝলমলে আর সুস্থ্য রাখতে মাসে দু’বার হট অয়েল ট্রিটমেন্ট করাতে পারেন। সেক্ষেত্রেও নারকেল তেল ও ক্যাস্টর অয়েলে ভরসা রাখতে পারেন। আপনার চুল অতি তৈলাক্ত হলেও হট অয়েল ট্রিটমেন্ট চুলের গোঁড়াকে মজবুত করবে। এ ক্ষেত্রে আমন্ড তেল ও ক্যাস্টর অয়েল মিশিয়ে গরম করে এই ধরনের চুলে মাসাজ করুন। তবে সারা রাত চুলকে তেলে মুড়ে না রেখে আধ ঘণ্টা ভিজিয়ে রেখে শ্যাম্পু করে নেয়া ভালো।

মধু ও টক দইয়ের মিশ্রণ :

চুলকে মোলায়েম ও ঝলমলে করতে বাড়িতে সহজেই বানিয়ে ফেলুন হেয়ার প্যাক। দু’চামচ টক দই ও তিন চামচ মধু মিশিয়ে একটা প্যাক বানিয়ে নিন। স্নানের আগে এই মিশ্রণ মেখে নিন চুলে। তারপর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন চুল। শুষ্ক চুলের সমস্যা থাকলে এখনই ব্যবহার করুন এই হেয়ার প্যাক।

বর্ষায় চুলে খুব জট পড়ে। দুটো ডিম ভেঙে তাতে তিন চামচ মধু যোগ করে ফেটিয়ে নিন। এই প্যাকটিও স্নানের আগে চুলে লাগিয়ে ধুয়ে ফেলুন খুব ভাল করে। শ্যাম্পুর পর ক্ষারবিহীন বা খুব অল্প ক্ষারযুক্ত কোনও কন্ডিশনার দিয়ে ধুয়ে ফেলুন চুল। রুক্ষ ও তেলতেলে উভয় প্রকার জন্যই বিশেষ কার্যকরী এই প্যাক।

স্নানের সময় এক মগ জলে মিশিয়ে নিন আধ কাপের চেয়ে একটু বেশি পরিমাণ মধু। শ্যাম্পুর পর কন্ডিশনার ব্যবহারের পরিবর্তে এই মিশ্রণ ঢেলে দিন চুলে। আঙুল চালিয়ে হালকা ম্যাসাজ করুন। জল দিয়ে ভাল করে ধুয়ে নিন চুল। উপকার পাবেন সব ধরনের চুলেই।

চুলের জেল্লা ফিরে পেতে :

অ্যালোভেরা পাতা চিরে তার শাঁসটা বার করে নিন। বাজারেও অনেক রকম অ্যালোভেরা জেল কিনতে পাওয়া যায়। তবে সেখানেও রাসায়নিকের উপস্থিতি থাকে। তাই প্রাকৃতিক উপায়ে সে জেল হাতে এলে সেটাই ব্যবহার করুন। চুল ও মাথার ত্বকে পিএইচ-এর ভারসাম্য রক্ষা করতে অ্যালোভেরা অত্যন্ত কার্যকর। তবে অনেকের এই শাঁস মাথার ত্বকে সহ্য হয় না, তারা ফুটিয়ে নিয়ে ব্যবহার করুন। চুলের আগা থেকে গোড়া এই শাঁস লাগান ও মাথার ত্বকে আঙুলের সাহায্যে ম্যাসাজ করুন। শ্যাম্পুর পর এটি ব্যবহার করুন।

গ্রীষ্ম হোক বা বর্ষা, স্নানের পরে ভিজে চুল শুকনোর জন্য আমরা বেশির ভাগ সময়ই ব্যবহার করি হেয়ার ড্রায়ার। কিন্তু এই ব্লো ড্রায়ারের মাধ্যমে চুল শুকানো যে ক্ষতি করতে পারে তার কোনো সীমা নেই। চুল রুক্ষ হওয়া তো রয়েইছে, এছাড়া হেয়ার ড্রায়ারের গরম হাওয়া মাথার ত্বকেরও ক্ষতি করে। ঘন ঘন হেয়ার ড্রায়ার চুলের গোড়াকেও নষ্ট করে। তাই হেয়ার ড্রায়ার ছাড়া প্রাকৃতিক রোদ, হাওয়া অথবা পাখার হাওয়ায় চুল শুকানো ভালো মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

প্লাস্টিকের চিরুনি বাতিল করে ব্যবহার করুন কাঠের দাঁড়া যুক্ত চিরুনি। এই উপায়ে চুল পড়ার হাত থেকে রক্ষা পেতে পারেন আপনি।


ঢাকা, মঙ্গলবার, অক্টোবর ২২, ২০১৯ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ২৩৮ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন