সর্বশেষ
সোমবার ২রা পৌষ ১৪২৬ | ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯

সাকিবের মত ভুল করেছিলেন যারা

বুধবার, অক্টোবর ৩০, ২০১৯

9e8f8db7-c434-4c15-9128-18c04b491073_0.jpeg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব পেয়েও সেটি গোপন রাখার অভিযোগে আইসিসি কর্তৃক সব ধরনের ক্রিকেট থেকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তবে অপরাধ স্বীকার করে নেয়ায় এক বছরের শাস্তি স্থগিত করা হয়েছে।

ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসি’র দুর্নীতি বিরোধী ধারা অনুযায়ী, কারো কাছ থেকে অনৈতিক কিছুর প্রস্তাব পেলে যত দ্রুত সম্ভব আইসিসি বা সংশ্লিষ্ট বোর্ডকে জানাতে হয়। প্রতিটি সিরিজের আগে ক্রিকেটারদের ক্লাস নিয়ে এ নিয়ম মনে করিয়ে দেয়া হয় আনুষ্ঠানিকভাবে। অপরাধের মাত্রা অনুযায়ী, এই ধারা ভঙ্গের শাস্তি হতে পারে ৬ মাস থেকে ৫ বছরের নিষেধাজ্ঞা। সাকিব আল হাসান জুয়াড়িদের প্রস্তাব গোপন করে এই ভুলটাই করেছেন। যার ফলে এক বছরের স্থগিত নিষেধাজ্ঞাসহ ২ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন দেশসেরা এই ক্রিকেটার। তবে সাকিবই প্রথম নন। এর আগেও কয়েকজন এমন ভুলের মাশুল দিয়েছেন। তারা হলেন শ্রীলঙ্কান কুসাল লুকরচ্চি, নিউজিল্যান্ডের লু ভিনসেন্ট, ভারতের সিদ্ধার্থ ত্রিভেদি ও হংকংয়ের ইরফান আহমেদ।

কুসাল লোকুরচ্চি :

২০১৪ সালে ১৮ মাসের জন্য নিষিদ্ধ হন শ্রীলঙ্কান অলরাউন্ডার কুসাল লোকুরচ্চি। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল) দ্বিতীয় আসরে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরসের হয়ে খেলার সময় ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব পেয়েছিলেন তিনি। জুয়ারিদের প্রস্তাবে রাজি না হলেও বিষয়টি চেপে যান তিনি। এ কারণে বিপিএল অ্যান্টি-করাপশন ট্রাইব্যুনাল দেড় বছরের জন্য নিষিদ্ধ করে লোকুরচ্চিকে।

সিদ্ধার্থ ত্রিভেদি :

আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজি রাজস্থান রয়্যালসের ভারতীয় ক্রিকেটার সিদ্ধার্থ ত্রিভেদি। ২০১৩ সালে আইপিএলে কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে যান ডানহাতি এই পেসার। কোন অনৈতিক কর্মকাণ্ডে না জড়িয়েও ১ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন। বিষয়টি দুর্নীতি দমন কমিশনকে না জানোই ছিল তার অপরাধ। সিদ্ধার্থের সতীর্থ হারমিত সিংয়ের বিরুদ্ধেও একই অভিযোগ আনা হয়। তবে প্রমাণ না থাকায় বেঁচে যান হারমিত। সেবার রাজস্থানের আরেক বোলার শ্রীশান্তকে আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ করে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)। আপিলের ভিত্তিতে যেটি ৭ বছরে নেমে আসে।

লু ভিনসেন্ট :

২০১৩ সালে বিপিএল কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে যান নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটার লু ভিনসেন্টও। কুসাল লোকুরচ্চির মতো জুুয়ারিদের প্রস্তাব গোপন করে ২০১৪ সালের জুনে ৩ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হন এই কিউই ওপেনার। পরের মাসে ভিনসেন্ট স্বীকার করেন অতীতে বেশ কয়েকবার ম্যাচ ফিক্সিং করেছেন তিনি। এর মধ্যে ২০১১ সালে ইংলিশ কাউন্টিতে সাসেক্সের হয়ে কেন্টের বিপক্ষে একটি ম্যাচও ছিল। যে ম্যাচ গড়াপেটার দায়ে তাকে আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ করে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। নিউজিল্যান্ডের হয়ে ২৩ টেস্ট, ১০২ ওয়ানডে ও ৯ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন লু ভিনসেন্ট।

ইরফান আহমেদ :

হংকংয়ের ক্রিকেটার ইরফান আহমেদ ২০১৬ সালে ৩০ মাসের জন্য নিষিদ্ধ হন। ২০১২ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত দুর্নীতির বেশ কয়েকটি প্রস্তাব পান তিনি। কিন্তু এ ব্যাপারে দুর্নীতি বিরোধী ইউনিটকে কিছু জানাননি ইরফান। এ বছর ম্যাচ ফিক্সিংয়ে জড়িত থাকার অভিযোগে ইরফানকে আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ করে আইসিসি।


ঢাকা, বুধবার, অক্টোবর ৩০, ২০১৯ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ৫৭৫ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন