সর্বশেষ
শনিবার ৩০শে অগ্রহায়ণ ১৪২৬ | ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯

সিডরের এক যুগ: এখনো শুকায়নি ক্ষত

শুক্রবার, নভেম্বর ১৫, ২০১৯

2.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

ঠিক এক যুগ আগে ২০০৭ সালের ১৫ নভেম্বর দেশের উপকূলে আঘাত হেনেছিলো প্রলয়ঙ্কারী ঘূর্ণিঝড় সিডর। ঘণ্টায় ২৬০ কিলোমিটার বেগে আঘাত হানা ঘূর্ণিঝড়ে বিধ্বস্ত হয়েছিল উপকূলীয় এলাকা। স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ১০ থেকে ১২ ফুট উচ্চতার পানি আঘাত হেনেছিল দক্ষিণাঞ্চলের কয়েকটি জেলায়।

মাত্র আধা ঘণ্টার তাণ্ডবেই লণ্ডভণ্ড হয়ে যায় উপকূল। চেনা জনপদ মুহূর্তে পরিণত হয় অচেনা এক ধ্বংসস্তূপে। তীব্র ঝড় আর জলোচ্ছ্বাসে কেড়ে নেয় উপকূলের বহু মানুষের প্রাণ। ওই দিনের ভয়াবহতা মনে পড়লে এখনো অনেকে আঁতকে ওঠেন উপকূলবাসী। এখনো অনেকের সেই ধ্বংসের ক্ষত শুকায়নি।

ভয়াবহ এই ঝড়ের পর গত ১২ বছরে অনেকটা ঘুরে দাঁড়িয়েছেন উপকূলীয় জেলা বরগুনার মানুষ। পরিবর্তন হয়েছে তাদের চিন্তা ভাবনার।

১২ বছর আগের এই দিনে সিডরের তাণ্ডবে মৃত উপত্যকায় পরিণত হয় দক্ষিণাঞ্চলের ৩০ জেলার দুই শতাধিক উপজেলা। সরকারিভাবে মৃতের সংখ্যা বলা হয় সাড়ে তিন হাজারের মতো। বিধ্বস্ত হয় ছয় লাখ মানুষের বসতবাড়ি, ফসলের ক্ষেত। ভয়াবহ বিপর্যয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয় সড়ক, নৌ, বিদ্যুৎ এবং টেলিযোগাযোগসহ আধুনিক সভ্যতার সার্বিক অবকাঠামো। সংবাদপত্র ও টেলিভিশনে প্রকৃতির এ ধ্বংসযজ্ঞের চিত্র দেখে শিউরে ওঠে গোটা বিশ্ব। সাহায্যের হাত বাড়ায় দেশি-বিদেশিরা।

সময়ের আবর্তনে বছর ঘুরে এসেছে সেই দিনটি। স্মৃতিচারণে চাপা কান্না আর দীর্ঘশ্বাস নিয়ে হারিয়ে যাওয়া স্বজনদের উদ্দেশে বহু জায়গায় আয়োজন করা হয় দোয়া ও মোনাজাতের। প্রলয়ংকারী সিডরের এক যুগ পার হলেও সেদিনের ভয়াল দৃশ্য আজও তাড়িয়ে বেড়ায় উপকূলবাসীকে।


ঢাকা, শুক্রবার, নভেম্বর ১৫, ২০১৯ (বিডিলাইভ২৪) // কে এইচ এই লেখাটি ৫১২ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন