সর্বশেষ
শনিবার ১০ই ফাল্গুন ১৪২৬ | ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ঠান্ডা নাকি গরম পানি দিয়ে গোসল করবেন

শনিবার, ডিসেম্বর ২১, ২০১৯

hotwater.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

শীতে অনেকেই নিয়মিত গরম পানি দিয়ে গোসল করেন।

গবেষকদের মতে, শীতকালে ঠাণ্ডার হাত থেকে বাঁচতে গোসলের পানি সামান্য উষ্ণ হলে ক্ষতি নেই। বোস্টন ইউনিভার্সিটির গবেষকদের মতে, শুষ্ক আবহাওয়ায় নিয়মিত গরম পানি দিয়ে গোসল করলে ত্বক তার আর্দ্রতা দ্রুত হারিয়ে ফেলে। এ ছাড়াও প্রতিদিন গরম পানি দিয়ে গোসল করলে হজমে নানা সমস্যা দেখা দেয়। বেড়ে যেতে পারে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যাও।

গরম পানিতে গোসলের সময় সারা শরীরে রক্তের সরবরাহ ঠিক রাখার পাশাপাশি রক্তচাপ স্বাভাবিক রাখতে হার্টকে বেশি বেশি করে কাজ করতে হয়। ফলে যাদের হার্টের রোগ রয়েছে তাদের জন্য ঝুঁকি বাড়ে।

গরম পানি শরীরে পরা মাত্র রক্তচাপে হেরফের হতে শুরু করে। ফলে শরীরের কর্মক্ষমতা কমে গিয়ে মাথা ঘোরা, গা গোলানোর মতো লক্ষণ দেখা দিতে থাকে।

যারা শরীরচর্চা করেন তাদের ঠাণ্ডা পানিতে গোসল না করাই ভালো। কেননা বেশি ঠাণ্ডা পানিতে পেশি (মাসল) সংকুচিত হয়ে যায়। শরীরচর্চার পর গরম পানিতে গোসল করে নিলে পেশি ঠিক থাকবে।

আপনি জানেন কি, ঠান্ডা পানিতে গোসল করার রয়েছে অনেক উপকারিতা। তাই একটু কষ্ট করে হলেও ঠান্ডা পানিতে গোসলটা সেরে নিন-

ঠান্ডা পানিতে গোসল করলে দেহের রক্ত প্রবাহমাত্রা বেড়ে যায় এবং শিরা-উপশিরায় দ্রুত গতিতে ধাবিত হতে থাকে।

ঠান্ডা পানি গায়ে ঢাললে বাইরের পরিবেশের তাপমাত্রার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার জন্য দেহ নিজেই তাপ উৎপন্ন করে। এর জন্য শরীরে সঞ্চিত কার্বোহাইড্রেট পোড়াতে হয়।

ঠান্ডা পানির গোসলে প্রতিরোধক ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। পেশির ক্ষত নিরাময়েও সাহায্য করে ঠান্ডা পানিতে গোসল।

ঠান্ডা পানি মুহূর্তেই দেহের সতেজতা ফিরিয়ে আনে। এতে অনিদ্রা রোগের উপশম হয়।

ঠান্ডা পানিতে গোসল করলে অনেক পুরনো ব্যথা হ্রাস পায়। দেহের অস্বস্তিকর উত্তেজনা প্রশমিত হয় এবং স্নায়বিক দুর্বলতা দূর হয়।


ঢাকা, শনিবার, ডিসেম্বর ২১, ২০১৯ (বিডিলাইভ২৪) // রি সু এই লেখাটি ৫৫৬ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন