সর্বশেষ
শুক্রবার ২০শে অগ্রহায়ণ ১৪২৭ | ০৪ ডিসেম্বর ২০২০

মালয়েশিয়ায় বিজয় দিবস কাপে চ্যাম্পিয়ন 'মারিয়া মাসুদ যুবসংঘ'

মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ২৪, ২০১৯

aa_0.jpg
প্রবাসী ডেস্ক :

মালয়েশিয়ার জোহর প্রদেশে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে চার দলীয় টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনালে রোজমেরা সিক্সেস'কে ১০ রানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে 'মারিয়া মাসুদ যুবসংঘ'। শুক্রবার জোহর প্রদেশের জোহর ক্রিকেট কাউন্সিল একাডেমি এন্ড ওভালে'র সবুজ মাঠে সকাল থেকেই শুরু হয় তৃতীয় ও প্রথম স্থান নির্ধারণী ম্যাচ।

বিজয় দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এ খেলা দেখতে স্টেডিয়ামে জড়ো হতে শুরু করে নানা শ্রেণী পেশার প্রবাসী বাংলাদেশীরা। অনেকে স্বপরিবারে আসেন খেলা দেখতে। লাল-সবুজের আদলে জার্সি পরে, মাথায় বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা সম্বলিত ব্যান্ড আর জাতীয় পতাকা নিয়ে প্রতিটি দল মাঠে নামে জাতীয় সংগীত গাইতে। বুকে হাত বেঁধে খেলোয়াড় ও দর্শক যখন সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে, মুখে সোনার বাংলা গাইছিলো তখন এক মুহূর্তের জন্য মনে হচ্ছিলো এটি মালয়েশিয়া নয় সবুজ শ্যামল বাংলার কোন এক প্রান্তে।

টুর্নামেন্টে অংশ নেয়া বাকি দুটি দল জেবি সিটি ও পান্দান সিটি টাইগার। তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে ৩ উইকেটে জয় পায় পান্ডান সিটি টাইগার।

               

টানা দ্বীতিয় বছর এ আয়োজনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন আয়োজক কমিটির সভাপতি আবুল হোসেন। তিনি বলেন, ‘প্রবাসে থাকলেও দেশের সংস্কৃতি আমরা কখনও ভুলি না, দেশের মতো প্রত্যেকটি দিবসে আমরা ভিন্ন, ভিন্ন আয়োজন নিয়ে আসি। তবে বিজয়ের মাসটা আমাদের জন্য বিশেষ কিছু, এ মাসটা আমরা নানাভাবে উদযাপন করে থাকি। এরই অংশ হিসাবে আমাদের এই ক্রিকেট টুর্নামেন্ট। সফল টুর্নামেন্ট আয়োজনে সহযোগীতার হাত বাড়িয়েছেন যারা তাদের সকলকে ধন্যবাদ জানান, আবুল হোসেন।‘

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকা মালয়েশিয়া শ্রমিকলীগ সভাপতি নাজমুল ইসলাম বাবুল বলেন, আমাদের সবচেয়ে বড় অর্জন স্বাধীনতা। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে সেদিন দেশ স্বাধীন হয়েছিলো বলেই আজ আমরা সবুজ পাসপোর্ট বহন করতে পারছি। তিনি বলেন, জোহর কমিউনিটি বরাবর-ই ভিন্ন, ভিন্ন আয়োজন নিয়ে দেশীয় সংস্কৃতিকে বিদেশের মাটিতে ছড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করে থাকে। বিজয়ের মাসে এ ধরনের আয়োজন করায় জোহর কমিউনিটি'র নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ জানান নাজমুল ইসলাম বাবুল।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন জোহর কমিউনিটি নেতা ফাহিম প্রধান, নজরুল ইসলাম বাবু, জালাল, শামিম, শাকিল, শারফিন, আলমগীর, মনসুর আহমেদ, বাবলু মিয়াসহ অনেকে। ফাইনালে অনবদ্য পারফরমেন্সের সুবাদে ম‌্যান দ‌্যা ম্যাচের পুরস্কার পান মারিয়া যুব সংঘের রাসেল।

টুর্নামেন্টে স্পন্সর হিসেবে ছিলো মিজান গ্লোবাল, হ্যাপি পে, ওয়ারিসান উঙ্গুল এইটিএইট এসডিএন বিএইচডি, টুয়েন্টি ফোর ডট কম, বিক্রমপুর কন্সট্রাকশন, সেভেন-এইট-সিক্স মিনিমার্ট, ইয়ামি বিরিয়ানিহাউজসহ বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান।

মোস্তফা ইমরান রাজু
মালয়েশিয়া থেকে


ঢাকা, মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ২৪, ২০১৯ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ৬৩৬ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন