সর্বশেষ
শনিবার ১০ই ফাল্গুন ১৪২৬ | ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ভয়াবহ দাবানলেও বিখ্যাত সেই আতশবাজি

বুধবার, জানুয়ারী ১, ২০২০

Aus2019.jpg
বিডিলাইভ রিপোর্ট :

খ্রিষ্টীয় নববর্ষ শুরু হওয়ার মুহূর্তে সিডনির হারবার ব্রিজ ও অপেরা হাউসে জমকালো আতশবাজি দেখতে মুখিয়ে থাকে গোটা বিশ্ববাসী। তবে এবার ভয়াবহ দাবানলের মধ্যে বিখ্যাত সেই আতশবাজি কতটা জমবে, তা নিয়ে সন্দেহ ছিল। ভয়াবহ দাবানলে দেশটির দুই অঙ্গরাজ্যে অন্তত ২৫০ বাড়ি পুড়ে গেছে। এর মধ্যে ভিক্টোরিয়া রাজ্যে ৪৩ টি ও নিউ সাউথ ওয়েলসে ২০০ বাড়ি পুড়ে গেছে বলে বিবিসি অনলাইন এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে।

বিশ্ববাসীকে হতাশ করেনি সিডনি, সমালোচকদের বাধা সত্ত্বেও খ্রিষ্টীয় নববর্ষ উপলক্ষে সিডনি সেজেছে নতুন সাজে। প্রতিবছরের মতো এ বছরও চোখধাঁধানো আতশবাজিতে রঙিন হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে বড় শহর সিডনির আকাশ। সিডনি হারবারে আতশবাজির এ প্রদর্শনী দেখতে প্রায় ১০ লাখের মত দর্শনার্থী জড়ো হয়।

বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সপ্তাহ খানেক ধরে দাবানলে পুড়তে থাকা সিডনিতে এবার আতশবাজি বন্ধ রাখার বিষয়ে একটি পিটিশন দায়ের করা হয়েছিল। ২ লাখ ৮০ হাজারের বেশি মানুষ সেই পিটিশনে সইও করেছিল। কিন্তু সিডনির মেয়র ক্লোভার মুর জানান, আতশবাজির এ আয়োজনের পরিকল্পনা ১৫ মাস আগেই শেষ করা হয়েছে এবং তা কোনোভাবেই বাতিল হতে পারেনা। সিডনির ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ সবুজ সংকেত দেওয়ার পর আতশবাজি নিয়ে সব ধোঁয়াশা কেটে যায়। আয়োজন করা হয় জমকালো প্রদর্শনীর।

সমালোচকেরা দাবি জানিয়েছিলেন, আতশবাজি দেখাতে যে সাড়ে ৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ হবে, সেটি সিডনির দাবানল নিয়ন্ত্রণের কাজে ব্যবহার করা হোক। এর জবাবে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এই অনুষ্ঠান বাতিল করলেই আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের পরিস্থিতির উন্নতি হয়ে যাবে না। বরং এই আলোকসজ্জার অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ১৩০ মিলিয়ন অস্ট্রেলিয়ান ডলারের সমমূল্যের বাণিজ্য হয়, যা দিয়ে আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা করা সম্ভব। সিডনির মেয়র ক্লোভার মুর বলেছেন, ‘এই আয়োজনের মাধ্যমে অনেক অর্থ তুলে আমরা আগুন ও খরায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের সহায়তা করতে চাই।’

উল্লেখ্য, ১২ মিনিটের এই চোখধাঁধানো অনুষ্ঠানে সিডনির আকাশে এক লাখেরও বেশি আতশবাজি পোড়ানো হয়। স্থানীয় সময়ে ঘড়ির কাঁটা ১২টা ছুঁতেই ঝলমলে হয়ে ওঠে গোটা আকাশ।


ঢাকা, বুধবার, জানুয়ারী ১, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // রি সু এই লেখাটি ১৭৯ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন