সর্বশেষ
সোমবার ১৬ই চৈত্র ১৪২৬ | ৩০ মার্চ ২০২০

চীনের উহানে আতংকে বাংলাদেশিরা

শনিবার, জানুয়ারী ২৫, ২০২০

bbb.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

সম্প্রতি চীনে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত শহর উহানে আমি বাস করছি। এখানে আমরা প্রায় ৫০০ জনেরও অধিক বাংলাদেশী উহানের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যাচেলর, মাস্টার্স ও পিএইচডিও প্রোগ্রামে অধ্যায়নরত।

উহান থেকে বহির্গামী সব বাস-ট্রেন এবং বিমান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত অন্তত ৪১ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং ১৩৩০ জনেরও বেশি মানুষ এতে আক্রান্ত হয়েছে।

এখানে অবস্থিত বাংলাদেশ কমিউনিটিতে আতংক বিরাজ করছে। শহরে জন উপস্থিতি কমনোর লক্ষে সরকার সকল ধরনের গণপরিবহন তথা বাস, ট্রেন, মেট্রো এবং বিমানবন্দর পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করেছে।

এমন অবস্থায় উহান শহর কর্যত ভূতুড়ে নগরীতে পরিনত হয়েছে। এক কোটি লোকের শহরে রাস্তা এখন জনমানব শূন্য। সকল ধরনের মাছ, মাংস, ডিম বিক্রি বন্ধ রয়েছে এবং স্বাস্থ্য উপদেশে এগুলো পরিহার করতে বলা হয়েছে।

ক্যাম্পাসের আশপাশে সকল ২৪ ঘন্টা সেবা দেওয়ার সুপার শপগুলো বন্ধ হওয়াতে বিপাকে পড়েছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

উহান ইউনিভার্সিটিতে অধ্যায়নরত বাংলাদেশী ছাত্র ইমরান খান জানান, ‘একদিকে চাইনিজ নতুন বছরের ছুটি অন্যদিকে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের আতংকে ছাত্রাবাসগুলোতে একরকম বন্দি জীবন যাপন করতেছি আমরা। ক্যান্টিন এবং শপগুলো বন্ধ থাকার কারণে খাদ্য ফুরিয়ে আসছে।’

এই পরিস্থিতে যারা পরিবার নিয়ে বসবাস করেন তাদের ভোগান্তি আরও বেশি। সেন্ট্রাল চায়না নরমাল ইউনিভার্সিটিতে পিএইচডি গবেষক আব্দুল্লাহ আল হাফিজ  পরিবার নিয়ে থাকেন। তিনি জানান, ‘ছোট শিশুদের নিরাপত্তা নিয়ে খুব চিন্তিত এই দিকে বাচ্চার খাবার দুধও ফুরিয়ে আসছে। এই পরিস্থিতি আমরা চাইলেও এখন নিজ দেশে ফিরে যেতে পারছি না।’

ভাইরাস মহামারি আকার ধারণের পর চীনে আবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের কমার্সিয়াল কাউন্সিল একটি ফোন নম্বর প্রদান করে যেকোন সমস্যায় যোগাযোগ করতে অনুরোধ করেছেন।

যোগাযোগের নম্বর:

মিস্টার মনসুর,

কমার্সিয়াল কাউন্সিলর,

বাংলাদেশ দূতাবাস, চীন।

ফোন: +8618513311748

লেখক: বেলাল হোসাইন, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগ, উহান ইউনিভার্সিটি, হুবে, চীন।


ঢাকা, শনিবার, জানুয়ারী ২৫, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // কে এইচ এই লেখাটি ২৭০ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন