সর্বশেষ
বুধবার ১৩ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ | ২৭ মে ২০২০

রাজ্যে রাজ্যে পতন, চিন্তায় বিজেপি

মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী ১১, ২০২০

bjp.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

২০১৫ সালের বিধানসভা নির্বাচনে দিল্লিতে ৩টি আসনে জিতেছিল বিজেপি। এবারে বিজেপির সভাপতি মনোজ তিওয়ারি ৪৮টি আসনে জয়ের প্রত্যাশা করেছিলেন। শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত ক্ষমতায় আসবেন বলে আশাবাদী ছিলেন। কিন্তু দেখা যায়, দিল্লিতে বিজেপির মন ভেঙে দিয়ে ফের অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে চলেছে আম আদমি পার্টির বিজয়রথ।

সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে বিজেপির জনপ্রিয়তার সেই ঢেউয়ে ভাটা পড়তে চলেছে। কেননা দেখা যাচ্ছে গত দুই বছরে ৭ রাজ্য হারিয়েছে বিজেপি। সদ্য দিল্লি বিধানসভা নির্বাচন ঘিরে স্বপ্ন দেখেছিল বিজিপি শিবির, কিন্তু মঙ্গলবার যত সময় এগিয়েছে, ততই সেই আশা ফিকে হয়েছে।

দিল্লিসহ ১২টি রাজ্যে এখনও বিজেপি বিরোধী দলগুলির সরকার রয়েছে। এনডিএর সরকার রয়েছে অন্য ১৬টি রাজ্যে। দেশের মোট জনসংখ্যার ৪২ শতাংশ মানুষ এই রাজ্যগুলিতে বাস করে। কংগ্রেস নিজে বা অন্য দলের সঙ্গে জোট বেঁধে মহারাষ্ট্র, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিসগড়, পঞ্জাব, পুদুচেরিতে ক্ষমতায় রয়েছে। ডিসেম্বর ঝাড়খণ্ডেও সরকার গঠনের পরে কংগ্রেসের বর্তমানে মোট ৭টি রাজ্যে সরকার রয়েছে।

এদিকে দিল্লিতে, আম আদমি পার্টি টানা তৃতীয়বারের মতো জেতা প্রায় নিশ্চিত করেছে। অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গে শাসন ক্ষমতায় রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস, কেরলে সিপিআই (এম) নেতৃত্বাধীন জোট, অন্ধ্রপ্রদেশে ওয়াইএসআর কংগ্রেস, ওড়িশায় বিজেডি এবং তেলেঙ্গানায় শাসন ক্ষমতায় রয়েছে টিআরএস।

আর একটি রাজ্য তামিলনাড়ু, যেখানে বিজেপি এআইএডিএমকে সঙ্গে নিয়ে লোকসভা নির্বাচনে লড়েছিল, কিন্তু সে রাজ্যে তাদের দলের কোনও বিধায়ক নেই। সুতরাং, ওই রাজ্যেও ক্ষমতার অংশীদার নয় গেরুয়া শিবির।  অথচ ২০১৭ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত অনেকটাই ভাল অবস্থানে ছিল এনডিএ। বিজেপি এবং তার জোটশক্তির হাতে ১৯টি রাজ্য ছিল। তার এক বছর পরে, মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান এবং ছত্তিশগড়ের মতো তিনটি রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতা হারিয়েছে। ওই রাজ্যগুলিতে এখন কংগ্রেস সরকার রয়েছে।

ওদিকে চতুর্থ রাজ্য অন্ধ্রপ্রদেশ, যেখানে বিজেপি-টিডিপি জোট সরকার ছিল, কিন্তু ২০১৮ সালের মার্চ মাসে সেখানে টিডিপি-বিজেপি জোট ভেঙে যায়। ২০১৯ সালে সেখানে বিধানসভা নির্বাচনে জিতে সরকার গঠন করেছে ওয়াইএসআর কংগ্রেস। শেষ আশা ছিল দিল্লি, কিন্তু রাজধানীর মানুষও ফের একবার বিজেপিকে হতাশ করল।


ঢাকা, মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী ১১, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // এ এম এই লেখাটি ৮৭৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন