সর্বশেষ
শনিবার ২১শে চৈত্র ১৪২৬ | ০৪ এপ্রিল ২০২০

প্রতিশোধ নিতেই এমন উদযাপন: শরিফুল

সোমবার, ফেব্রুয়ারী ১৭, ২০২০

মাহমুদুল.jpg
বিডিলাইভ রিপোর্ট :

পচেফস্ট্রমে ফাইনাল ম্যাচের পর বাংলাদেশ ও ভারতের ক্রিকেটারদের সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ার বিষয়টি ভালো চোখে দেখেন নি ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি। এই ঘটনায় বাংলাদেশের ৩ এবং ভারতের ২ জন ক্রিকেটার নিষিদ্ধ হন।

ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে অবশ্য বাংলাদেশের দিকেই আঙুল তুলেন ভারতীয় যুব দলের অধিনায়ক প্রিয়ম গর্গ। তিনি বলেছিলেন, ‘বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের আচরণ ছিল জঘন্য।’ তবে এমন কথা বলে নিজের দেশেও সমর্থন পাচ্ছেন না প্রিয়ম গার্গ। কপিল দেব, মোহাম্মদ আজহারউদ্দিনের মতো কিংবদন্তিরা ভারতীয় যুবাদের আচরণেরই বরং সমালোচনা করেছেন।

সমালোচনা অবশ্য হতেই পারে। ফাইনাল জয়ের পর মাঠের মধ্যে আনন্দ-উদযাপনে ব্যস্ত ছিল বাংলাদেশ দল। যেহেতু তারা চ্যাম্পিয়ন হয়েছে, উচ্ছ্বাসটা বাধভাঙা হবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু হারের পর তাদের সামনে দাঁড়িয়ে এমনভাবে উচ্ছ্বাস করা মেনে নিতে পারেননি ভারতীয় খেলোয়াড়দের কয়েকজন। বাংলাদেশের পতাকা ধরে টান দেন এক খেলোয়াড়। যা নিয়েও সমালোচনা হয়েছে বিস্তর।

কিন্তু বাংলাদেশই বা কেন এত আগ্রাসী হয়ে উঠেছিল? জয়ের পর ভারতীয়দের সামনে গিয়ে উদযাপন করার পেছনে রহস্যই বা কী? এ নিয়ে এবার মুখ খুললেন বিশ্বকাপে বল হাতে আলো ছড়ানো বাংলাদেশি পেসার শরিফুল ইসলাম।

শরিফুল জানালেন, মূলত এর আগের কিছু ঘটনাই তাঁতিয়ে রেখেছিল তাদের। অতীতে বাংলাদেশের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ দুটি ম্যাচে জয় পাওয়ার পর বাড়তি উদযাপন করেছিল ভারত, সেই প্রতিশোধই মনের মধ্যে ঘুরছিল জুনিয়র টাইগারদের।

২০১৮ সালে এশিয়া কাপের সেমিফাইনাল আর ২০১৯ সালের এশিয়া কাপ ফাইনালে ভারতের কাছে হেরে গিয়েছিল বাংলাদেশ। সে সময় ভারতীয়রাও সামনে এসে উদযাপন করেছিল, জানান শরিফুল।


ঢাকা, সোমবার, ফেব্রুয়ারী ১৭, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // এ এম এই লেখাটি ২৬৮ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন