সর্বশেষ
বুধবার ১৮ই চৈত্র ১৪২৬ | ০১ এপ্রিল ২০২০

প্রতিদিনের যেসব খাবারে কমে যাচ্ছে বুদ্ধিমত্তা

মঙ্গলবার, মার্চ ১০, ২০২০

x.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

আমরা যা খাই তার প্রভাব আমাদের উপরে পরে। কারণ খাবারের সাথে আমাদের দেহের সকল কার্যক্রম জড়িত। পরিমিত এবং ভালো খাদ্যাভ্যাস আমাদের দেহ, মন ও মস্তিস্ক সবই রাখে সুস্থ। বাজে খাদ্যাভ্যাস কমিয়ে দেয় আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এবং আমাদের করে তোলে অসুস্থ।

অনেক আজেবাজে খাবার রয়েছে যার কারণে আমাদের দেহের ক্ষতি হচ্ছে প্রতিনিয়ত। এমন অনেক খাবার আছে যা আমরা বেশ আনন্দ নিয়ে খেয়ে থাকি। কিন্তু এই খাবারগুলো আমাদের মস্তিস্কের কার্যক্ষমতা কমিয়ে দিচ্ছে দিনের পর দিন। কমিয়ে দিচ্ছে আমাদের বুদ্ধিমত্তা ও চিন্তা করার ক্ষমতা। নিজেদের সুস্থতার কারণে আমাদের সতর্ক হয়ে বর্জন করতে হবে এসব খাবার।

ফাস্ট ফুড :

ছেলেবুড়ো সকলেরই পছন্দ ফাস্ট ফুড। কোনো উৎসব কিংবা পার্টিতে, অনেকে ইচ্ছা করে এবং বাধ্য হয়ে ফাস্ট ফুড খেয়ে থাকেন। ফাস্ট ফুড এমন একটি খাবার যা নেশা ধরায়। অর্থাৎ একবার খেলে খেতেই ইচ্ছা করে। কিন্তু ফাস্ট ফুড আমাদের মস্তিস্ক এবং বুদ্ধিমত্তার জন্য বেশ খারাপ।

প্রায় ৪০০০ বাচ্চার ওপর গবেষণা করে ব্রিটিশ স্টাডিজ তাদের রিপোর্টে বলেন, ‘যে বাচ্চারা প্রায় প্রতিদিন এবং বেশীরভাগ সময় ফাস্ট ফুড ধরণের খাবার খায় তাদের আইকিউ লেভেল একজন সাধারণ বাচ্চার তুলনায় অনেক কম’। শুধুমাত্র বাচ্চাদের জন্য নয় বড়দের জন্যও ফাস্ট ফুড খাওয়া অত্যন্ত খারাপ।

চিনি সমৃদ্ধ খাবার :

অনেকেই মিষ্টি জাতীয় খাবার বেশ পছন্দ করেন। খাবার শেষে একটু মিষ্টি জাতীয় খাবার না খেলে অনেকের খাওয়াই পূর্ণ হয় না। বাচ্চারাও ক্যান্ডি এবং মিষ্টি অনেক বেশি পছন্দ করে। চিনি সমৃদ্ধ খাবার আমাদের মস্তিস্কের কার্যক্ষমতা অনেকাংশে কমিয়ে দেয়।

ইউসিএলএ এর গবেষকদের মতে ‘ চিনি, ফ্রুক্টোজ কোনো কিছু শেখার ক্ষমতা এবং স্মৃতিশক্তি নষ্ট করে দেয়ার ক্ষমতা রাখে’। তাই যতটা সম্ভব চিনি থেকে দূরে থাকাই ভালো। তবে একেবারে না খাওয়াও স্বাস্থ্যের জন্য ভালো নয়।

বাটার এবং স্যাচুরেটেড ফ্যাট :

সকালের নাশতায় পাউরুটির ওপর বাটার এবং খাবারের স্বাদ বাড়াতে অনেকেই বাটার ব্যবহার করেন। কিন্তু বাটার আমাদের বুদ্ধিমত্তার জন্য হুমকি স্বরূপ। বাটার এবং স্যাচুরেটেড ফ্যাট আমাদের মস্তিস্কের চিন্তা করার ক্ষমতা নষ্ট করে দেয়। গবেষণায় দেখা যায় যারা এই ধরণের স্যচুরেটেড ফ্যাট বেশি খান তাদের চিন্তাশক্তি এবং স্মৃতিশক্তি মনোস্যাচুরেটেড ফ্যাট যারা খান তাদের তুলনায় অনেক কম।

টিনজাত এবং প্রসেসড ফুড :

অনেকেই কর্মব্যস্ত জীবনকে সহজ করার জন্য টিনজাত এবং প্রসেস করা খাবারের ওপর ভরসা করে থাকেন। বাজারে তো বলতে গেলে সবই টিনজাত এবং প্রসেস করা খাবার পাওয়া যায়। কিন্তু এই খাবার গুলোতে রয়েছে উচ্চমাত্রার আর্টিফিশিয়াল রঙ ও ফ্লেভার, ট্র্যান্স ফ্যাট এবং লবণ যা মস্তিস্কের কার্যক্ষমতা নষ্ট করে।

ইউনিভার্সিটি অফ ব্রিস্টলের গবেষকগণ দেখতে পান যারা এই ধরণের খাবার বেশি খান তাদের আইকিউ লেভেল অনেক নিচু থাকে এবং এই খাবারগুলো দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও নষ্ট করে।


ঢাকা, মঙ্গলবার, মার্চ ১০, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ৪২৭ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন